ক্রিকেট > আন্তর্জাতিক ক্রিকেট

বৃষ্টি বিঘ্নিত ২য় দিনে ভারতের অস্বস্তির কারণ নাথান লায়ন

নিউজ ডেস্ক

১৬ জানুয়ারী ২০২১, সকাল ৭:৩৬ সময়

[ er08anmu0aayqu8 ]
নিজের শততম টেস্টে ব্যাটে বলে আলো ছড়াচ্ছেন অস্ট্রেলিয়ার নাথান লায়ন। ব্রিসবেনে বৃষ্টি বিঘ্নিত দ্বিতীয় দিনে ভারতকে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিতে দেননি এই স্পিনার। ব্যাট হাতে কার্যকরী এক ক্যামিও ইনিংসে দলকে চলতি সিরিজে সর্বোচ্চ রান সংগ্রহে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন। আর বল হাতে ফিরিয়েছেন স্বাগতিকদের জন্য বিপদজনক হয়ে উঠা রোহিত শর্মাকে৷ তাইতো দ্বিতীয় দিনে ভালো পারফরম্যান্স করেও খুব একটা স্বস্তিতে নেই ভারত। প্রথম ইনিংসে স্বাগতিকদের চেয়ে ৩০৭ রানে পিছিয়ে আছে তারা। দুই ওপেনারকে হারিয়ে দিনশেষে তাদের সংগ্রহ ৬২ রান। হাতে আছে এখনও ৮ উইকেট। সিরিজ বাঁচাতে কাল বড়সড় পরীক্ষা দিতে হবে রাহানে-পূজারাদের। দ্বিতীয় দিনে প্রথম ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি সফরকারীদের। দলীয় ১১ রানেই প্রথম উইকেট হারায় তারা। ব্যক্তিগত ৭ রানে প্যাট কামিন্সের বলে দ্বিতীয় স্লিপে স্মিথের দারুণ ক্যাচে প্যাভিলিয়নে ফিরেন শুভমান গিল। এ ধাক্কা সামলে উঠে দ্বিতীয় উইকেটে পূজারাকে নিয়ে দারুণ খেলছিলেন রোহিত শর্মা। কিন্তু সিডনির মত ব্রিসবেনেও দারুণ শুরুর পর উইকেট বিলিয়ে এসেছেন ভারতীয় ওপেনার। নাথান লায়নের ফাঁদে পা দিয়ে ক্রিজ ছেড়ে বেরিয়ে এসে শট খেলতে যেয়ে লং অনে মিচেল স্টার্কের হাতে ধরা পড়েন রোহিত। ৭৪ বলে ৬ চারে ৪৪ রান আসে তার ব্যাট থেকে। আউট হওয়ার তার অভিব্যক্তি দেখে দিব্যি আন্দাজ করা গেছে, নিজের প্রতি কতটা অসন্তুষ্ট ডানহাতি ব্যাটসম্যান। চা পানের বিরতির পর আর এক বলও মাঠে গড়ায়নি ম্যাচ। দিনশেষে চেতেশ্বর পূজারা ৪৯ বলে ৮* এবং অধিনায়ক অজিঙ্কা রাহানে ১৯ বলে ২ রানের অপরাজিত আছেন। এর আগে ৫ উইকেটে ২৭৪ রানে প্রথম দিন শেষ করা অস্ট্রেলিয়া স্কোরবোর্ডে আজ আরও ৯৫ রান যোগ করতে শেষ ৫ উইকেট হারায়। দ্বিতীয় দিনের শুরুর সেশনেই দ্রুত তিন উইকেট হারালেও নাথান লায়ন এবং মিচেল স্টার্কের দৃঢ়তায় চলতি সিরিজে প্রথমবারের মত ৩৫০ রানের গন্ডি পার করে অস্ট্রেলিয়া এবং শেষ পর্যন্ত এবারের বোর্ডার-গাভাস্কার ট্রফিতে নিজেদের সর্বোচ্চ দলীয় স্কোর ৩৬৯ রান সংগ্রহ করে। [caption id="attachment_916" align="alignnone" width="679"] ছবিঃ আইসিসি[/caption] দ্বিতীয় দিনে দলীয় ৩১১ রানে দিনের প্রথম উইকেট হারায় স্বাগতিকরা। ক্যারিয়ারের নবম অর্ধশতক পূরণ করার পরপরই শার্দুল ঠাকুরের বলে দ্বিতীয় স্লিপে রোহিত শর্মার হাতে ধরা পড়েন অজি দলপতি টিম পেইন। টেস্ট ক্যারিয়ারে মাত্র দ্বিতীয়বার এক সিরিজে দুই ফিফটির দেখা পেলেন পেইন। এর আগে এমন পরিসংখ্যান ২০১০/১১ সালে একই প্রতিপক্ষ ভারতের বিপক্ষেই গড়েছিলেন তিনি। এরপর মাত্র ৪ রানের ব্যবধানেই আরও দুই উইকেট হারায় স্বাগতিকরা। ৪৭ রান করে ওয়াশিংটন সুন্দরের বলে বোল্ড আউট হন ক্যামেরন গ্রিন। আর ২ রান করে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়ে শার্দুল ঠাকুরের তৃতীয় শিকার হন প্যাট কামিন্স। দ্রুত ৩ উইকেট হারালেও নবম উইকেটে মিচেল স্টার্ককে নিয়ে ৪০ বলে ৩৯ রানের পার্টনারশিপ গড়েন শততম টেস্ট খেলা নাথান লায়ন। ৪ চারে ২২ বলে ২৪ রানের ক্যামিও ইনিংস খেলে ওয়াশিংটন সুন্দরের বলে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফিরেন লায়ন। এই জুটির বদৌলতেই চলতি সিরিজে প্রথমবারের মত ৩৫০ রানের গন্ডি পার করে স্বাগতিকরা। শেষ উইকেটে আরও ১৫ রান যোগ করেন জশ হ্যাজেলউড - মিচেল স্টার্ক জুটি। ১১ রান করে অভিষিক্ত নাটরাজনের তৃতীয় শিকার হন হ্যাজেলউড। ২০* রানে অপরাজিত থাকেন মিচেল স্টার্ক। ভারতের হয়ে দুই অভিষিক্ত নাটরাজন ও ওয়াশিংটন সুন্দর এবং শার্দুল ঠাকুর ৩টি করে উইকেট নেন। বাকি উইকেটটি পেয়েছেন মোহাম্মদ সিরাজ। চার ম্যাচের টেস্ট সিরিজে ১-১ এ সমতায় আছে দুই দল। অ্যাডিলেডে প্রথম টেস্টে ভারতকে ৮ উইকেটে হারিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। দ্বিতীয় টেস্টে মেলবোর্নে স্বাগতিকদের ৮ উইকেটে হারিয়েই সমতায় ফিরেছিল সফরকারী ভারত৷ আর সিডনিতে রোমাঞ্চ ছড়ানো তৃতীয় টেস্ট হয় ড্র। সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ (প্রথম ইনিংস) ভারতঃ ৬২/২ (২৬ ওভার) রোহিত ৪৪, পূজারা ৮*, গিল ৭, রাহানে ২*; লায়ন ১/১০, কামিন্স ১/২২। অস্ট্রেলিয়াঃ ৩৬৯/১০ (১১৫.২ ওভার) লাবুসেন ১০৮, পেইন ৫০, ওয়েড ৪৮, গ্রিন ৪৭, স্মিথ ৩৬, লায়ন ২২ ; শার্দুল নটরাজন ৩/৭৮, সুন্দর ৩/৮৯, শার্দুল ৩/৯৪। টসঃ অস্ট্রেলিয়া।