ফিচার

স্পিনার থেকে স্মিথের পুরোদস্তুর ব্যাটসম্যান হবার কাহিনি

নিউজ ডেস্ক

১৬ জানুয়ারী ২০২১, সকাল ৭:৯ সময়

[ steve-smith-ashes-wallpaper-hd ]
স্টিভেন স্মিথ (ছবিঃ সংগৃহীত)
অস্ট্রেলিয়া দল থেকে শেন ওয়ার্নের বিদায় নেয়ার পর লেগ স্পিনার শূন্যতা পূরণ করতেই জাতীয় দলে অভিষেক করানো হয় স্টিভ স্মিথকে। স্মিথ ক্রিকেট ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন একজন লেগ স্পিনার হিসেবেই। তবে তার ব্যাটিং অ্যাবিলিটিটা ছিলই। ২০১০ সালে মেলবোর্নে নামিয়ে দেয়া হয় ২১ বছর বয়সী স্মিথকে। অভিষেকেই ৩৪ রান খরচায় তুলে নিয়েছিলেন ২ টি উইকেট। দীর্ঘদিন যাবত অস্ট্রেলিয়া দলে খেলে গেছেন একজন বোলার হিসেবেই। টি-২০ তে ওয়াটসন, ক্লার্ক, হাসিদের নিয়ে গড়া টপ অর্ডারে উপরের দিকে ব্যাট করার কোনও সুযোগই ছিলনা স্মিথের। একই সিরিজের শেষ এবং ৫ম ম্যাচে ওয়ানডেতেও অভিষেক হয়ে যায় তার। প্রথম ম্যাচে ব্যাটহাতে সুযোগ না হলেও পরের সিরিজে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে কার্ডিফে সুযোগ পান ব্যাট করার। ৭ নাম্বারে নেমে ৫৩ বলে ৪১ রানের ইনিংস খেলে জানান দিয়েছিলেন সুযোগ পেলে ব্যাটটা তিনি করতে পারবেন। [caption id="attachment_986" align="alignnone" width="1024"] শেন ওয়ার্নের বিদায়ের পর হঠাতই অস্ট্রেলিয়া দলে এক বেবি ফেস ক্রিকেটারের আগমন। একজন লেগ স্পিনার একদিন বিশ্বসেরা ব্যাটসম্যান হবেন, তা কি ভেবেছিলেন কেউ? ছবিঃ গেটি ইমেজ[/caption] কালের পরিক্রমায় নিজেকে একজন পুরোদস্তুর ব্যাটসম্যান হিসেবে প্রমান করেছেন স্মিথ। বর্তমান সময়ে কোহলি কেন উইলিয়ামসন, বাবর আজমদের মত ব্যাটসম্যানদের পিছনে ফেলেছেন তিনি। শুধু তাই নয় বর্তমান সময়ের সেরা ব্যাটসম্যান বললেও সম্ভবত ভুল হবে না। ২০১৪ সাল পর্যন্তও টেস্টে স্মিথের ব্যাটিং গড় ছিল ৩৮ এর ঘরে। ২০১৪ তে আবুধাবিতে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৬ নাম্বারে নেমে ৯৭ করার পরের টেস্টে নাম্বারে নেমে ভারতের বিপক্ষে অপরাজিত ১৬২ এবং ৫৩। তার পর, পর-পর ৪ টেস্টেই হাকিয়েছেন শতক। ফলে অনেককেই পিছনে ফেলে সুযোগ পান ৪ নাম্বারে। এর পর আর পিছু ফিরে তাকাতে হয়নি। স্মিথকে। সেই ৩৮ গড়কে বানিয়েছেন ৬৩। ওয়ানডেতেও প্রথম ৪৪ ইনিংসের ৩০ গড়কে ৪৩-এ। ১৬ ডিসেম্বর ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার এক সাক্ষাতকারে মুখোমুখি প্রশ্ন উত্তর পর্বে বসেন সময়ের অন্যতম সেরা দুই ব্যাটসম্যান কোহলি-স্মিথ। এক সময় কোহলি স্মিথকে প্রশ্ন করেন, তুমি যখন প্রথম আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে এলে, সবাই মনে করেছিল অস্ট্রেলিয়া নতুন শেন ওয়ার্ন পেয়েছে। সেখান থেকে আজ তুমি বিশ্বের এক নম্বর টেস্ট ব্যাটসম্যান। কী ভাবে সম্ভব হল? স্মিথ জানান, "আমি বল করতে ভালবাসি। তবে লেগস্পিন বল করা খুব পরিশ্রমের। একই সময় বল, ব্যাট, ফিল্ডিং তিন দিকেই নজর দেওয়া বেশ কঠিন হয়ে যাচ্ছিল। ধীরে ধীরে ব্যাটিংয়েই মন দিলাম।"