ফুটবল > বাংলাদেশ ফুটবল

আব্দুল্লায় রক্ষা শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রের

নিউজ ডেস্ক

২০ জানুয়ারী ২০২১, দুপুর ১২:৫৪ সময়

[ img-20210120-wa0012 ]
গোলের পর উদযাপনে আব্দুল্লাহ,হেমন্ত ও সোহেল।
নিজেদের প্রথম ম্যাচে ব্রাদার্স ইউনিয়নকে হারিয়ে ফুরফুরে মেজাজে ছিল সাইফুল বারী টিটুর শিষ্যরা। অন্যদিকে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের বিপক্ষে দুর্দান্ত খেলেও ড্র নিয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছিল রহমতগঞ্জ মুসলিম ফ্রেন্ডস সোসাইটি। তাই এ ম্যাচে জয়ের লক্ষ্যেই মাঠে নামে রহমতগঞ্জ। প্রথমার্ধে দু'দলই অগোছালো ছিল। কোন দলই তেমন আক্রমণ করতে পারেনি। বল দখলের লড়াইয়ের যুদ্ধ হয় দুই দলের মিডফিল্ডারদের মধ্যে। তবে ম্যাচের ২৮ মিনিটের মাথায় মোহাম্মদ আব্দুল্লার ফ্রিকিক গোলকিপার লিটনের হাত ছুইয়ে কর্ণারে পরিণত হয়। দ্বিতীয়ার্ধে ম্যাচের ৬৪ মিনিটে আবারো মোহাম্মদ আব্দল্লার দূর পাল্লার শট গোল বারের সামান্য বাইরে দিয়ে চলে যায়। ফেডারেশন কাপের পর এ ম্যাচেও ব্যর্থ ছিলেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড জিয়ান কার্লো রদ্রিগেজ। বেশ কয়েক বার সুযোগ পেয়েও গোলে পরিণত করতে পারেনি। অবশেষে ৭৪ মিনিটের মাথায় ডেড লক ভাঙে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র। বখতিয়ারের কর্ণার থেকে ডি-বক্সে মধ্য থেকে ডান পায়ের ভলিতে দুর্দান্ত গোল করেন মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ।   [caption id="attachment_1968" align="alignnone" width="1280"] গোলের পর উদযাপনে আব্দুল্লাহ, হেমন্ত ও সোহেল।[/caption] গোল হজমের পর ম্যাচে ফেরার জন্য মরিয়া হয়ে উঠে পুরান ঢাকার ক্লাবটি। শেষ ১০ মিনিটে বেশ কয়েকবার শেখ রাসেলের ডি-বক্সে কাপন ধরায় রহমতগঞ্জের ফরোয়ার্ডরা। যার শুরু হয় ৮০ মিনিটে, আইভরি কোস্টের ফরোয়ার্ড ক্রিস রেমির ডান পায়ের শট আশরাফুল রানার গায়ে লেগে গোল পোস্টের দিকে আগালেও গোল লাইন থেকে ক্লিয়ার করেন ডিফেন্ডার আসাদুজ্জামান বাবলু। এ যাত্রায় গোল থেকে বঞ্চিত হতে হয় গোলাম জিলানির শিষ্যদের। এরপর ৮৩ মিনিটে আবারো কপাল চাপড়াতে হয় রহমতগঞ্জকে। মিডফিল্ডার মোহাম্মদ সানোয়ারের ডিরেক্ট ফ্রিকিক আশরাফুল রানাকে ফাকি দিয়ে গোল পোস্টে লাগে, যার ফলে আবারও গোল থেকে বঞ্চিত হতে হয় রহমতগঞ্জকে। আজ যেন দুর্ভাগা কপাল নিয়েই মাঠে এসেছিল রহমতগঞ্জ, না হলে ম্যাচের ৮৮ মিনিটে ডান পাশ থেকে আসা ক্রস ক্রিস রেমির মাথা লাগালেও জালের নিশানা খুজে পায়নি। এরপর আর কোনো গোল না হলে ১-০ গোলের জয় পায় শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র। ম্যাচ শেষে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রের কোচ সাইফুল বারী টিটু বলেন, "কঠিন ম্যাচ ছিল, তবে পূর্ণ ৩ মিনিট পেয়ে ভাল লাগছে। তবে প্রথম হাফে ছেলেরা কোনো চান্স ক্রিয়েট করতে পারেনি কিন্তু ম্যাচের সময় যত গড়িয়েছে তারা নিজেদের গুছিয়ে নিয়েছে।" অন্য দিকে রহমতগঞ্জ কোচ গোলাম জিলানি বলেন, "আমি ছেলেদের বলেছিলাম যার যার সেরাটা দিতে। প্রথম হাফে ভাল করলেও ২য় হাফে শেখ রাসেল লং পাস খেলার কারণে ছেলেরা তা বুঝে উঠতে পারেনি। যার ফলে ম্যাচ থেকে ছিটকে পড়েছি।"