ফুটবল > বাংলাদেশ ফুটবল

ঢাকা ডার্বির লড়াই এবার কুমিল্লায়

নিউজ ডেস্ক

২৭ জানুয়ারী ২০২১, দুপুর ৪:৪৮ সময়

[ picsart_01-27-10-40-34 ]
যদি প্রশ্ন করা হয় এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ ফুটবলে কোন দুটি দল আপনার মনে দাগ কেটেছে? আমি নিশ্চিত, আপনি এই উত্তর দিতে এক মুহুর্তও সময় নষ্ট করবেন না। চিন্তা মুক্ত মনে সোজা উত্তর দিবেন ঢাকা মোহামেডান ও আবাহনী। সত্তর, আশি, নব্বই এর দশকবা বিংশ শতাব্দির শুরুতেও ঢাকা ডার্বি মানে ছিল পুরা দেশের ফুটবল প্রেমিদের দুভাগে ভাগ হয়ে যাওয়া। আবাহনী - মোহামেডান ম্যাচ মানেই ছিল অস্তিত্ব রক্ষার লড়াই। সে সময়ে ঢাকা ডার্বি কথা শুনলে দর্শকেরা নিজেদের কাজ ফেলে চলে আসতো বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে ম্যাচ দেখতে। এসব দর্শকদের তখন ঢাকা ঢার্বি মানে ছিল আবেগ ও ভালবাসার নাম। দুই ক্লাব প্রাঙ্গনে এই ম্যাচের আগে দর্শকদের আনাগোনাও লক্ষ্য করা যেতো। স্টেডিয়ামে গ্যালারির সিট না পেয়ে দর্শকেরা গ্রিলের উপর বসেও খেলা দেখেছে এমনও ঘটনা ঘটেছে। তাহলে বুঝতেই পারছেন কতটা জমজমাট লড়াই হতো সেকালের ঢাকা ডার্বিতে। কিন্তু বর্তমানে এই চিত্র পুরাই ভিন্ন প্রকৃতির। দর্শকহীন মাঠে ঢাকা ডার্বি অনুষ্ঠিত হয়।নেই কোনো উত্তেজনা, উদ্দিপনা। জৌলুসহীন ডার্বি দেখতে দর্শকদের মধ্যে কোন আগ্রহও লক্ষ্য করা যায় না। গত ৯-১০ বছরে ঢাকা ডার্বিতে সেই জৌলুস আর খুঁজে পাওয়া যায় না। আবাহনী তাদের শক্তিমত্তা ধরে রাখলেও মোহামেডান নিজেদের ইতিহাস, ঐতিহ্য হারিয়ে খুঁজছে। গত কয়েক বছর আবাহনী চ্যাম্পিয়ন হওয়ার লক্ষ্যে দল গড়লেও মোহামেডানের লক্ষ্য থাকে কোন ভাবে রেলিগেশন এড়িয়ে পেশাদার লীগে টিকে থাকা। তবে এবার ঢাকা ছেড়ে ঢাকা ডার্বির উত্তেজন ছড়াবে কুমিল্লায়। ঢাকার বাইরের দর্শকেরাও এবার মাঠে বসেই ঐতিহ্যবাহী এই লড়াই দেখতে পাবে। আগামীকাল ( বৃহস্পতিবার) কুমিল্লার শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হবে দুই ঐতিহ্যবাহী দল ঢাকা মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাববো আবাহনী লিমিটেড ঢাকা। ঢাকা আবাহনীতে বর্তমানে জাতীয় দলের সাত ফুটবলার নিয়মিত খেলছে। দেশি ফুটবলারদের মধ্যে আবাহনীর ভরসার প্রতীক জাতীয় দলের এই সাত জন ফুটবলারই। গোলকিপার শহিদুল আলম, ডিফেন্ডার রাইহান হাসান, টুটুল হাসান বাদশা, মিডফিল্ডার মামুনুল ইসলাম, সোহেল রানা এবং ফরোয়ার্ড সাদ উদ্দিন ও নাবীব নেওয়াজ জীবন। মোহামেডান কে হারিয়ে জয়ের ধারা অব্যাহত রাখতে চান কোচ মারিও লামোস। তার চাওয়া ফেডারেশন কাপের মত লীগেও মোহামেডানকে হারানো। ব্রাজিলিয়ান রাফায়েল অগোস্তোকে যদিও এ ম্যাচে পাচ্ছে না আবাহনী, তবে বাকি তিন বিদেশী ম্যাচের জন্য ফিট আছে বলে জানিয়েছেন এই পর্তুগিজ কোচ। তবে নিয়মিত অধিনায়ক নাবীব নেওয়াজ জীবন ইঞ্জুরির কারণে এ ম্যাচেও থাকছে না। বিপরীতে মোহামেডান থেকে গত কয়েক বছরে বলার মত কোনো ফুটবলার জাতীয় দলে জায়গা পায়নি। তবে তারুণ্য নির্ভর দলে ভরসার প্রতীক হয়ে থাকবেন জাপানিজ উরু নাগাতা, মালির সোলেমান ডাইবেট। এই দুজনই গত সিজন থেকে মোহামেডানের হয়ে খেলছে। এছাড়াও এ সিজনে যোগ দিয়েছে বুরকানো ফাসোর ডিফেন্ডার মউনজির, নাইজেরিয়ান মিডফিল্ডার আবিওলা নুরাত। তবে শন লেন মনে করছেন, তারুণ্যের শক্তি দিয়েই আবাহনীকে হারানো সম্ভব। তার চাওয়া ঢাকা ডার্বি যেন জমজমাট ভাবেই শেষ হয়। ফেডারেশন কাপে হারলেও লীগের এই ম্যাচে হার মানতে নারাজ শন লেন। ঢাকা ডার্বি প্রথম অনুষ্ঠিত হয় ১৯৭৩ সালে, যেখানে জয় পায় ঢাকা আবাহনী। এখন পর্যন্ত ঢাকা ডার্বিতে দুই দল মুখোমুখি হয়েছে ১২৯ বার। এর মধ্যে ঢাকা আবাহনীর জয় ৫৪ এবং মোহামেডান জয় পেয়েছে ৪১ বার, ড্র ২১ এবং পরিত্যাক্ত ৩ ম্যাচ। চলতি লীগে এখন পর্যন্ত তিন ম্যাচের ৩টিতেই জয় পেয়েছে আবাহনী লিমিটেড ঢাকা। অন্য দিকে তিন ম্যাচে একটি জয়, এক ড্র এক ম্যাচে হারের স্বাদ পেয়েছে সাদা-কালোরা। বর্তমান শক্তি, সামর্থ্যে আবাহনী অনেকটা এগিয়ে থাকবে মোহামেডান থেকে, তবে ফুটবল মাত্র ৯০ মিনিটের খেলা। তাই এই ৯০ মিনিটে যে দল নিজেদের সেরা টা দিতে পারবে তারাই দিন শেষে জয় নিয়ে ফিরবে।