ফুটবল > ক্লাব ফুটবল

নয় গোলের ম্যাচে শেষ হাসি এভারটনের

নিউজ ডেস্ক

১১ ফেব্রুয়ারি ২০২১, রাত ৩:৩৪ সময়

[ images-2021-02-11t093128-074 ]
ছবিঃ ইন্টারনেট।
গুডিসন পার্কে গত রাতে যেন গোলের বৃষ্টি নেমেছিল। দুই দল মিলিয়ে একে একে স্কোর শিটে নয় বার নাম লিখিয়েছে। এক বার এভারটন এগিয়ে যায় তো আরেকবার টটেনহ্যাম। তবে শুরুটা করেছিলো স্পার্সরাই। ম্যাচের তিন মিনিটেই সানচেজের গোলে লিড পায় মরিনহোর দল। সনের বাড়ানো বল মাথা ছুইয়ে সহজেই জালে জড়ায় সানচেজ। গোল হজমের পর ম্যাচে ফিরতে ৩৬ মিমিট পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয় এভারটনের। ডি-বক্সের মধ্য থেকে ডান পায়ের জোরালো হাফ ভলি শটে বল জালে জড়ান কার্লভেট লেয়িন। ম্যাচে লিড নিতে মাত্র দুই মিনিট সময় নেয় এভারটন। ডি-বক্সের বাইরে থেকে ডান পায়ের শটে স্কোর শিটে নাম লেখান ব্রাজিলিয়ান রিচার্লিসন। এক গোলের লিড নিয়ে যেন শান্তি হচ্ছিলো না এভারটনের, তাই তো ৪৩ মিনিটে পেনাল্টি আদায় করে সফল ভাবে স্পট কিক থেকে দলকে এগিয়ে নেন সিগোরসন। বিরতির আগে ব্যবধান কমায় টটেনহ্যাম। এবার স্কোর শিটে নাম লেখান এরিক লামেলা। বিরতি থেকে ফিরেই ৫৭ মিনিটে ম্যাচে সমতায় ফেরে স্পার্স। আবারও গোল করেন ডিফেন্ডার সানচেজ। এই গোলের পরেই শুরু হয় উত্তেজনা। ৬৮ মিনিটে আরও একবার এগিয়ে যায় মরিনহোর শিষ্যরা। এবার এগিয়ে নেন ব্রাজিলিয়ান রিচার্লিসন। ৮৩ মিনিটে উত্তেজনার বারুদ ছিটান হ্যারি কেইন। বাম পাশ থেকে সনের ক্রস মাথা ছুইয়ে গোলকিপারকে ফাকি দিয়ে গোলের দেখা পান এই ইংলিশ স্ট্রাইকার। ম্যাচে ৪-৪ এ সমতায় ফিরে স্পার্সরা। নির্ধারিত নব্বই মিনিট ৪-৪ এ সমতায় থাকায় খেলা গড়ায় অতিরিক্ত ৩০ মিনিটে। স্নায়ু চাপের এই ৩০ মিনিটের শুরুর ৭ মিনিটেই গোলের দেখা পায় এভারটন। ডি-বক্সের মধ্য থেকে বাম পায়ের শটে গোল করে এভারটনের জয় নিশ্চিত করে বার্নাড। ২০১৫-১৬ সিজনের পর আবারও এফএ কাপের কোয়ার্টার ফাইনালে পা দিল এভারটন।