ফুটবল > বাংলাদেশ ফুটবল

বসুন্ধরা কিংসকে সুবিধা দিতেই রেফারিদের এমন সিদ্ধান্ত - সত্যজিত দাস রুপু

নিউজ ডেস্ক

১০ ফেব্রুয়ারি ২০২১, রাত ২:৩৭ সময়

[ images-2021-02-10t021643-264 ]
ছবিঃ সংগ্রহীত
গতকাল (মঙ্গলবার) বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগে শেখ জামাল ধানমণ্ডি ক্লাব ও আবাহনী লিমিটেড ঢাকার ম্যাচ ২-২ গোলে ড্র'তে শেষ হয়। ম্যাচের ফলাফল তেমন আলোচনায় না আসলেও ম্যাচ শেষে রেফারির নেওয়া বিতর্কিত সিদ্ধান্ত ছিল সমালোচনায় ঘেরা। ম্যাচের ৩৬ থেকে ৪০ মিনিটের মাঝে ঘটে যাওয়া ঘটনায় লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন শেখ জামাল ধানমণ্ডি ক্লাবের গাম্বিয়ান সোলেমন কিং ও আবাহনী লিমিটেড ঢাকার জুয়েল রানা। দুই দলের দু'জনকে লাল কার্ড দেখালেও উপযুক্ত কারণ উপস্থাপন না করায় রেফারির এমন সিদ্ধান্ত বিতর্ক তৈরি করেছে। এছাড়া ম্যাচের একদম অন্তিম মুহূর্তে নাসির হোসেনের করা গোল অফসাইডে বাতিল করে ম্যাচ শেষের ঘোষণা দেন রেফারি নয়ন। তবে আবাহনীর দাবি নাসির উদ্দিন অফসাইডে ছিলেন না, প্রতিপক্ষকে সুবিধা দেওয়ার জন্যই রেফারি নিশ্চিত গোল অফসাইডে বাতিল ঘোষণা করেছেন। ম্যাচ শেষে আবাহনী লিমিটেড ঢাকার ফুটবলার, কোচিং স্টাফ, ম্যানেজার থেকে শুরু করে গ্যালারিতে থাকা আবাহনীর দর্শকেরাও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। রাগে-ক্ষোভে গ্যালারি থেকে দর্শকদের মাঠের উদ্দেশ্যে বোতল ছুড়য়ে মারার দৃশ্যও দেখা গিয়েছে এ দিন। এদিকে আবাহনী লিমিটেড ঢাকার ম্যানেজার সত্যজিত দাস রুপু মনে করেন, লাল কার্ড দেখা জুয়েল রানা তেমন গুরুতর দোষ করেনি। তিনি আরও বলেন, "শেখ জামাল ধানমণ্ডি ক্লাবের পরবর্তী ম্যাচ বসুন্ধরা কিংসের বিপক্ষে। এ ম্যাচে সোলেমান কিং যেন মাঠে না থাকতে পারে সে কারণেই তাকে লাল কার্ড দেখানো হয়েছে। কেননা শেখ জামালের সেরা প্লেয়ার এই কিং। একজনকে যেহেতু লাল কার্ড দেখানো যায় না, তাই জুয়েল রানাকেও দেখানো হয়েছে।" ম্যাচ শেষে ভিআইপি গ্যালারির সামনে ভিড়ের মধ্য থেকে শোনা গেল, বেশ কয়েকটি দল ও রেফারি, বসুন্ধরা কিংসকে সুবিধা দিতেই এরকম সিদ্ধান্ত নেয়। আবাহনী ম্যানেজারের কন্ঠেও শোনা গেলো তেমনি সুর। তিনি বলেন,
"বসুন্ধরা কিংসের বিপক্ষে গত ম্যাচে মুক্তিযোদ্ধা তাদের দুই বিদেশি ছাড়াই মাঠে নেমেছিল। যাতে মুক্তিযোদ্ধাকে সহজেই হারাতে পারে। এছাড়া ফেডারেশন কাপের সেমিফাইনালেও জীবনের গোল অফসাইডে বাতিল করে। এটা অফসাইড ছিল না তা পরিষ্কার ভাবে দেখা গিয়েছে। এ সবই বসুন্ধরা কিংসকে সুবিধা প্রদানের জন্যই করা হয়েছে।"
এক পর্যায়ে আবাহনী লিমিটেড ঢাকার ম্যানেজার সত্যজিত দাস রুপু বলেই ফেললেন, দেশের ফুটবলের উন্নয়ন শেষ। এভাবে মাঠে ফুটবল চলতে পারে না।