বিজ্ঞাপন

অফিসিয়াল গ্রুপে যোগ দিন

বাংলাদেশের স্পোর্টসভিত্তিক শীর্ষ অনলাইন ম্যাগাজিন

টপ ট্রেন্ডিং সাকিব আল হাসান/ তামিম ইকবাল/ মুশফিকুর রহিম/ বিরাট কোহলি/ বাবর আজম/ মেসি/ নেইমার/ রোনালদো/ ব্রাজিল/ আর্জেন্টিনা/ রিয়াল মাদ্রিদ/ বার্সেলোনা/ পিএসজি

রিয়াল ‘রাজকীয়’ মাদ্রিদ

প্রকাশ: শনিবার, ৬ মার্চ, ২০২১ | ১৪:১১:৪৭

ডেইলি স্পোর্টসবিডি ডেস্ক

ছবিঃ ইন্টারনেট
ছবিঃ ইন্টারনেট

আচ্ছা, আপনার কাছে ‘সমৃদ্ধ’ শব্দটির অর্থ কি? সমৃদ্ধ এই শব্দটি অনেকবেশি আপেক্ষিক! আর ইতিহাস, তার থেকেও অনেক বেশি পেছনের জিনিস। তবে এই দুইয়ের মেলবন্ধনকে যারা আজ ঐতিহ্যে পরিণত করে ছেড়েছেন; গুতি হার্না‌ন্দেজ, ফ্যাবিয়ো ক্যানভারো, সান্তিয়াগো বার্না‌ব্যু, হুগো সানচেজ, ফার্না‌ন্দো হিয়েরো, ফেরেঙ্ক পুস্কাস, রুড ভ্যান নিস্টেলরয়, রবার্ত‌ো কার্লোস, লুইস ফিগো, ইকার ক্যাসিয়াস, ডেভিড বেকহ্যাম, আলফ্রেডো ডি স্ট‌েফানো, রাউল গঞ্জালেস, রোনালদো লুইস নাজারিও ডি লিমা, জিনেদিন জিদান, ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো এবং সার্জিও রামোস তাদেরই মধ্যে অন্যতম! তাদের একেকটা মুহূর্তের মেলবন্ধন এবং ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র অর্জনের ঐক্যই আজকের রিয়াল মাদ্রিদের ইতিহাস। পৃথিবীর অধিকাংশ ফুটবল গবেষক, ক্রীড়া সাংবাদিক, সাবেক ফুটবলার এবং বর্তমান ফুটবলাররা একমত ফুটবল ইতিহাসের সর্বকালের সেরা ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ।

কেনইবা সেরা হবে না? ফুটবল ইতিহাসের শতাব্দীর সেরা ফুটবল ক্লাব হওয়ার ফিফার একমাত্র স্বীকৃতি কেবল রিয়াল মাদ্রিদের ট্রফি ক্যাবিনেটে শোভা পাচ্ছে। সর্বাধিক ১৩ বারের ইউরোপ সেরা, সর্বাধিক ৭টি ক্লাব বিশ্বকাপ, সর্বাধিক ৩৪ বারের ঘরোয়া চ্যাম্পিয়ন সমৃদ্ধ রিয়াল মাদ্রিদের ইতিহাসের প্রভাব প্রতিপত্তির জানান দিচ্ছে। গ্লোব সকার ওয়ার্ল্ডের একবিংশ শতাব্দীর সেরা ক্লাব, আইএফএফএইচএস-এর গেল শতাব্দীর সেরা ইউরোপীয়ান ক্লাব কিংবা উয়েফার সর্বকালের সেরা ক্লাবের তালিকা সবখানেই রিয়াল মাদ্রিদের জয়জয়কার। তাই, ফুটবলে অসাধারণ অবদানস্বরুপ ফিফার অর্ডার টু মেরিট সম্মাননা পাওয়া একমাত্র ক্লাবটিও রিয়াল মাদ্রিদই।

ইউরোপীয়ান ট্রফি হাতে আলফ্রেডো ডি স্টেফানো। ছবিঃ সংগৃহীত।

অষ্টাদশ শতাব্দীতে স্পেনে ফুটবলের আগমণ ঘটে। ১৮৮৭ সালে রাজধানী মাদ্রিদে একদল শিক্ষার্থী মিলে স্কাই নামক একটি ফুটবল ক্লাবের উদ্বোধন করে, যা ধীরে ধীরে বেশ প্রভাবশালী হয়ে ওঠে। তবে অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বে ক্লাবটি কিছুকাল পর ‘ফুটবল ডি মাদ্রিদ’ এবং ‘মাদ্রিদ ফুটবল ক্লাব’ নামে দ্বিধাবিভক্ত হয়। প্রথমটি দ্বিতীয়টির কাছে ধোপে টিকতে পারেনি। ১৯০২ সালে আনুষ্ঠানিকভাবে মাদ্রিদ ফুটবল ক্লাবের বোর্ড গঠন করা হয়, যেখানে রিয়াল মাদ্রিদের ইতিহাসে প্রথম প্রেসিডেন্ট হিসেবে নাম লেখান হুয়ান পেদ্রোস। তখন হয়তো কারও ধারণাও ছিল না যে এই ক্লাবটি পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ ক্লাব হিসেবে নাম লেখাবে। তবে শুরু থেকেই ক্লাবটি তার আধিপত্য বিস্তারের ইঙ্গিত দেয়। চোখ জুড়ানো ফুটবলের সাথে টানা চারটি কোপা দেল রে ট্রফি জিতে মন জয় করে নেয় সবার।

ছবিঃ ইন্টারনেট

রিয়াল মাদ্রিদ সিএফ, পুরো নাম রিয়াল মাদ্রিদ ক্লাব ডি ফুটবল। সংক্ষেপে আমরা রিয়াল মাদ্রিদ বলে থাকি। এই ‘রিয়াল’ হচ্ছে একটি স্প্যানিশ শব্দ, যার ইংরেজি প্রতিশব্দ ‘রয়্যাল’ বাংলায় যেটা বুঝায় তা হলো রাজকীয়। তবে মজার ব্যাপার হলো, আক্ষরিক অর্থে রাজকীয় এই দলের নামের সাথে ‘রিয়াল’ শব্দটি প্রথমে ছিল না। ১৯২০ সালে স্পেনের রাজা ত্রয়োদশ আলফনসো ভালোবেসে এই ক্লাবকে ‘রিয়াল’ উপাধি দেন। এই উপাধিই ক্লাবের নামের একটি অংশ হয়ে ওঠে। আর রাজকীয় উপাধির সাথে ক্লাবের লোগোতেও যুক্ত হয় রাজকীয় মুকুট। তবে, ১৯৩১ সালে স্প্যানিশ রিপাবলিক প্রতিষ্ঠিত হবার পর নামের এই শব্দটি এবং লোগোর মুকুট, দুটোই রিয়াল মাদ্রিদ ত্যাগ করেছিল। তখন দলটির নাম হয় ‘মাদ্রিদ সিএফ’। ৪০ এর দশকে গৃহযুদ্ধে হেরে গিয়ে রিপাবলিকান সরকারে পতন হলে ‘রিয়াল’ শব্দের সাথে সাথে লোগোর মুকুটটি পুনঃস্থাপিত হয়।

এরপর দিনে দিনে রিয়াল মাদ্রিদ ক্লাব প্রতিষ্ঠা করে তাদের বাস্কেটবল, হ্যান্ডবল, রাগবী এবং ভলিবলের দলও। সফলতাও পাচ্ছিল দলগুলো। কিন্তু সময় বদলের সাথে সাথে ক্লাব কর্তৃপক্ষ অন্য তিনটি খেলা বন্ধ করে দিলেও তাদের বাস্কেটবল দল এখনও টিকে আছে বেশ দাপটের সাথে। এখানেও স্পেনের ঘরোয়া লীগে সর্বোচ্চ ৩৫ বারের চ্যাম্পিয়ন তারা। এছাড়াও ফুটবল দলের মত বাস্কেটবল দলটিও জিতেছে তাদের মহাদেশীয় শিরোপা।

রিয়াল মাদ্রিদ বাস্কেটবল দল। ছবিঃ রিয়াল মাদ্রিদ ডট কম

ক্লাবের ইতিহাসে রিয়াল মাদ্রিদের অনেক ডাকনাম রয়েছে। শুরুতে ছিল – লস মেরেঙ্গুয়েস, মেরিঙ্গু নামে একটি সাদা খাবার থেকে যার নামকরন করা হয়েছে। পরে রিয়ালের ডাকনাম হয় – লস ব্লাঙ্কোস। প্রকৃতপক্ষে দুটি নামই ক্লাবের পুরো সাদা পোশাকের প্রতিনিধিত্ব করে। ১৯৭০ দশকে উত্তর ইউরোপের বেশকিছু খেলোয়াড়কে দলে বেড়িয়ে নিজেদের নাম ‘লস ভাইকিংস’ জনপ্রিয়তা পায়।

আরও খেলার খবরঃ   ক্রিকেটারদের মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে কাজের খবর নেই বহুদিন

ইউরোপের প্রচলিত কথাগুলোর মধ্যে অন্যতম- “বিশ্বের আনাচে কানাচে জন্ম নেওয়া প্রতিটি ফুটবলার স্বপ্ন দেখে রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে খেলতে।” তাই সাম্প্রতিক সময়ে গণমাধ্যমেও এই দলটি লস গ্যালাক্টিকোস বা মহাতারকা নামে পরিচিত। কেননা বিশ্বের অনেক দামী তারকা এখানে খেলেছেন। রাউল, রোনালদো, বেকহাম, জিদান, লুইস ফিগো , রর্বাতো কার্লোসরা সাদা জার্সিটি গায়ে দাপিয়ে বেড়িয়েছেন ইউরোপের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে। ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো, সার্জিও রামোস, ইডেন হ্যাজার্ড, করিম বেনজেমা, মার্সেলো, ক্রুস,মদ্রিচ, ক্যাসিমেরো কিংবা গ্যারেথ বেলদের তুলির আচড় গিয়ে একেছে প্যারিস, ব্রাসেলস, গ্ল্যাসগো, লিসবন, মিলান কিংবা কার্ডিফের ঘাসে। স্পেন থেকে জাপান কিংবা মরোক্কো থেকে চায়না- পূর্ণতা, প্রাপ্তি আর গৌরবে শুদ্ধ অহংবোধে ঐ জার্সিতে চুমু এঁকে বলছে, রিয়াল মাদ্রিদ কেন ইতিহাসের সেরা ক্লাব!

রিয়াল মাদ্রিদের ঘরের মাঠ– ‘সান্তিয়াগো বার্নাব্যু’। এটি ১৯৪৭ সালের ১৪ ডিসেম্বর উন্মোচন করা হয়। ক্লাবের সাবেক প্রেসিডেন্ট সান্তিয়াগো বার্নাব্যুর নামে স্টোডিয়ামটির নামকরণ করা হয়। রিয়াল মাদ্রিদের ঘরের মাঠে ১৯৬৪ ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনাল, ১৯৮২ ফিফা বিশ্বকাপ ফাইনাল, ১৯৫৭, ১৯৬৯ এবং ১৯৮০ ইউরোপিয়ান কাপ ফাইনাল এবং ১৯৫৭, ১৯৬৯, ১৯৮০ ও ২০১০ চ্যাম্পিয়নস লীগের ফাইনাল অনুষ্ঠিত হয়। এই স্টোডিয়ামটি উয়েফা কর্তৃক ২০০৭ সালের ১৪ নভেম্বর ‘এলিট ফুটবল স্টেডিয়াম’ হিসেবে স্বীকৃতি পায়। এছাড়াও রিয়াল মাদ্রিদ ‘বি’ দলের জন্য আলফ্রেডো ডি স্টেফানো গ্রাউন্ড নামে নিজস্ব একটি মাঠ রেয়েছে তাদের।

রিয়াল মাদ্রিদ শুধু তারকাখচিত কিংবা ট্রফি সমৃদ্ধ একটি ক্লাবই না, সাড়ে ছয় কোটি স্প্যানিশদের বুক উঁচিয়ে কথা বলার সবচেয়ে বড় সম্পদও বটে। স্পেনের মানুষদের কাছে মাদ্রিদিজম এক রকম দেশপ্রেম। একনায়ক ফ্রাংকের কালো বন্দুক আর হিংসুকদের অহেতুক মন্তব্যের একটাই জবাব- আলা মাদ্রিদ। তাই সান্তিয়াগো বার্নাব্যু যথার্থই বলেছেন, “ঐ সাদা জার্সিটা কাদায় কর্দমাক্ত হবে, ঘামে ভিজে যাবে, রক্তে লাল হয়ে যাবে কিন্তু কখনও পরাজয়ের গ্লানি বহন করবে না।”

ক্রোশ পথের দুরত্বের ভালবাসা, রিয়াল মাদ্রিদ! ১১৯তম জন্মদিনে একরাশ শুভেচ্ছা।

শুভ জন্মদিন রাজকীয় মাদ্রিদ।

সাম্প্রতিক খবর

ক্লাব ফুটবল / ১৪ মিনিটেই বার্সাকে হারানো বেনফিকার জালে এক হালি গোল বায়ার্ন মিউনিখের
ক্লাব ফুটবল / ৫ গোলের নাটকীয় ম্যাচে ইউনাইটেডকে জেতালেন রোনালদো
ক্লাব ফুটবল / পিকের গোলে প্রথম জয় বার্সেলোনার
বাংলাদেশ ক্রিকেট / বাংলাদেশ দলের সংবাদ সম্মেলন বয়কট সাংবাদিকদের!
ক্লাব ফুটবল / ইকার্দির পরকীয়া বের করতে গোপনে গোয়েন্দা ভাড়া করেছিলেন ওয়ান্ডা নারা!
বাংলাদেশ ফুটবল / সাইফ ছেড়ে বসুন্ধরা কিংসে ইয়াসিন আরাফাত
আন্তর্জাতিক ক্রিকেট / নেদারল্যান্ডসকে বিদায় করে বিশ্বকাপে টিকে থাকলো নামিবিয়া
টপ ট্রেন্ডিং সাকিব আল হাসান/ তামিম ইকবাল/ মুশফিকুর রহিম/ বিরাট কোহলি/ বাবর আজম/ মেসি/ নেইমার/ রোনালদো/ ব্রাজিল/ আর্জেন্টিনা/ রিয়াল মাদ্রিদ/ বার্সেলোনা/ পিএসজি