বাংলাদেশ গেমস্

আনসারের দখলে নারী হ্যান্ডবলের স্বর্ণ

নিউজ ডেস্ক

৮ এপ্রিল ২০২১, সকাল ৯:৪১ সময়

[ img-20210408-wa0005 ]
প্রথমার্ধ শেষে ২২-৭ গোলে এগিয়ে ছিল আনসার। দ্বিতীয়ার্ধে আরও ২০ গোল করলে পুলিশকে ধরা ছোয়ার বাইরে নিয়ে যায় আনসারের মেয়েরা। আনসারের খাদিজা আক্তার সর্বোচ্চ ৮ গোল করেন। পুলিশের ২০ গোলের মধ্যে রুবিনা বেগমে একাই করেন ১০ গোল।
এ ইভেন্টে ব্রোঞ্জ জিতেছে নওগাঁ জেলা ক্রীড়া সংস্থা। একই ভেন্যুতে স্থান নির্ধারণী ম্যাচে নওগাঁ জেলা ২৬-১৬ গোলে জামালপুর জেলা ক্রীড়া সংস্থাকে হারিয়েছে।   স্বর্ণ জয়ের পর আনসারের কোচ নাসিরউল্লাহ লাভলু বলেন,
"নারী হ্যান্ডবলে আনসার বরাবরই ভালো। আমরা নিশ্চিত ছিলাম আমরাই সোনা পাবো। কারণ আমার দলে তরুন ও প্রতিভাবান কিছু খেলোয়াড় আছে। তারাই আমাকে আত্মবিশ্বাস দিয়েছে। প্রতিটি আসরের আগে আমরা দুই থেকে তিন মাসের প্রস্তুতি নেই। কিন্তু করোনার কারণে এবার সেটা সম্ভব হয়নি। তারপরও অন্যদের চেয়ে আমরা ভালো প্রস্তুতি নিয়ে খেলতে এসেছি।"
ম্যাচ শেষে বিজয়ীদের পদক তুলে দেন বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি শেখ বশির আহমেদ মামুন। এসময় উপস্থিত ছিলেন ফেডারেশন সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান কোহিনুর। প্রধান অতিথির বক্তৃতায় শেখ বশির আহমেদ মামুন বলেন,
"আল্লাহর অশেষ রহমতে আমাদের প্রতিটি ডিসিপ্লিন খুব সুন্দর ভাবে শেষ হচ্ছে। কোন দূর্ঘটনা ছাড়া এতো বড় আয়োজন, এতো বড় যজ্ঞ আল্লাহর বিশেষ রহমত ছাড়া শেষ করা সম্ভব হতো না।’
তিনি আরও বলেন,
"বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন (বিওএ) এক্সিকিউটিভ কমিটির সদস্যরা প্রতিটি ভেন্যুতে গিয়ে অনুপ্রেরনা যুগিয়েছেন। আমাদের মেডিকেল কমিটির সদস্যরা স্বাস্থ্য বিধি মেনে গেমস আয়োজনে সহযোগিতা করছেন। এজন্য আমি তাদের ধন্যবাদ দিতে চাই। আমি মিডিয়াকেও ধন্যবাদ দিতে চাই। প্রিন্ট মিডিয়া, ইলেকট্রনিক্স মিডিয়া গেমসকে সারা দেশে ছড়িয়ে দিয়েছে।"
করোনা পরিস্থিতিতে ক্রীড়াবিদদের বাড়ী পাঠানোর বিষয়ে শেখ বশির আহমেদ মামুন বলেন,
"আমরা ফেডারেশনগুলোর সঙ্গে কথা বলে গাড়ী করে খেলোয়াড়দের বাড়িতে পাঠানোর ব্যবস্থা করেছি। যে গাড়ীতে খেলোয়াড়দের পাঠানো হয়েছে সে গাড়ীর নাম্বার আমরা পুলিশ কন্ট্রোল বোর্ডে দিয়ে দিয়েছি। লকডাউনের মধ্যেও কারও বাড়ি ফিরতে কোন সমস্যা হবে না। ১০ এপ্রিল ছোট পরিসরে সমাপনী অনুষ্ঠান হবে। যেখানে ভার্চুয়ালি উপস্থিত থাকবেন গেমস আয়োজক কমিটির চেয়ারম্যান।"