বাংলাদেশ গেমস্

‘চ্যালেঞ্জ হাতে না নিলে কোনো কিছুতেই সাফল্য আসে না’

নিউজ ডেস্ক

৮ এপ্রিল ২০২১, দুপুর ১:২৬ সময়

[ inshot_20210408_192251872 ]
করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ হঠাৎ করেই বাড়ছিল। কিন্তু তার আগেই শুরু হয়ে যাওয়া বঙ্গবন্ধু ৯ম বাংলাদেশ গেমস-২০২০ চালিয়ে নেওয়া নিয়ে জেগেছিল শঙ্কা। তবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা ও পরামর্শে গেমস চালিয়ে নিতে পেরেছে বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন (বিওএ)। সংস্থাটির কোষাধক্ষ্য ও বঙ্গবন্ধু ৯ম বাংলাদেশ গেমসের মিডিয়া কমিটির সদস্য সচিব কাজী রাজীব উদ্দিন আহমেদ চপল সাক্ষাৎকারে জানালেন কঠিন পরিস্থিতিতে চ্যালেঞ্জ জয়ের সন্তুষ্টি। প্রশ্নঃ অনেকটা প্রতিকূল পরিবেশে বঙ্গবন্ধু ৯ম বাংলাদেশ গেমস হচ্ছে। এখন শেষ পর্যায়ে আছে। এমন আয়োজন আসলে কতটুকু চ্যালেঞ্জিং ছিল? উত্তরঃ আসলে সবকিছুই চ্যালেঞ্জিং। চ্যালেঞ্জ হাতে না নিলে কোনবকিছুতেই সাফল্য আসে না। আমরা যতটকু সম্ভব স্বাস্থ্যবিধিটা মেনে চলার চেষ্টা করেছি। সর্বোচ্চ সতর্কতার সঙ্গে গেমস আয়োজন সম্ভব করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত কোনও সমস্যা দেখা দেয়নি। আশা করছি, গেমসের একদিন বাকি আছে। আগামীকাল সুন্দরভাবে তা শেষ করত পারবো। সেটাই আমাদের জন্য মঙ্গলজনক হবে। প্রশ্নঃ এ আয়োজনে কোনটা বড় অর্জন মনে হয় আপনার কাছে? উত্তরঃ আমার কাছে মনে হয়, বিভিন্ন ডিসিপ্লিনে বেশকিছু নতুন খেলোয়াড়ের আবির্ভাব ঘটেছে। যারা আগামী দিনে হয়তো বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করতে পারবে। প্রশ্নঃ প্রতিকূল অবস্থায় ফিটনেস বিষয়ে ফেডারেশন কর্মকর্তা-ক্রীড়াবিদদের উদ্দেশ্যে কী বার্তা ছিল? উত্তরঃ বিষয়টা হলো-এটা ফেডারেশন গুলোর দেখার বিষয় আছে। যার যার ফেডারেশন যদি এইসব নিয়ে আমরা সচেতন থাকি,বিশেষ করে ফিটনেস ও স্বাস্থ্যগত দিক নিয়ে, তাহলে আমার মনে হয় সুন্দর হয়। আমার মনে হয়, প্রতিটি ফেডারেশনই সেদিকে নজর দিয়েছে। প্রশ্নঃ গেমস সংক্রান্ত কোনও অতৃপ্তি আছে নাকি? উত্তরঃ কোনও অতৃপ্তি নেই। বর্তমান পরিস্থিতিতে যতটুকু সফল হয়েছি, সেটাই বড় সাফল্য। কারণ আমরা তো একটা চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করে গেমসটা চালিয়েছি। আসলে যেই অবস্থার মধ্যে দিয়ে গেমসটা হচ্ছে, এতে করে আমাদের কোনও অতৃপ্তি থাকার কথা নয়। প্রশ্নঃ গেমস আয়োজনে সরকারের পক্ষ থেকে সহযোগিতা কেমন ছিল? উত্তরঃসরকারের থেকে যথেষ্ট সহযোগিতা ছিল। সরকারের থেকে সহযোগিতা না থাকলে তো গেমস আয়োজন করা সম্ভব ছিল না। শতভাগই তারা সাহায্য-সহযোগিতা করেছে। প্রশ্নঃ ভবিষ্যতে দেশের ক্রীড়া উন্নয়নে সরকারের কাছ থেকে কোন কোন বিষয়ে সহায়তা চান? উত্তরঃ একটা জিনিস কি, এটা বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ গেমস। এতে সরকার অবশ্যই ভবিষ্যতে আরও সহযোগিতার হাত প্রসারিত করবেন। এটাই প্রত্যাশা করছি। প্রশ্নঃ ক্রীড়াবিদ-কর্মকর্তাদের প্রতি আপনার কোনও বার্তা? উত্তরঃ আমার অনুরোধ থাকবে সবারই প্রতি। আমরা যদি সঠিকভাবে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলি তাহলে সব দিক দিয়ে ভালো থাকা যাবে। গেমস শেষে সবাইকে সুস্থ ভাবে যার যার বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়াটা আমাদের সফলতার অন্যতম মন্ত্র। খেলোয়াড়দের প্রতি একটাই অনুরোধ-এ পরিস্থিতিতে নিজেদের সচেতনটা বৃদ্ধি করতে হবে। কোভিড পরিস্থিতিতে নিজেকে নিরাপদ রাখার জন্য সরকার কর্তৃক যতরকম পরামর্শ আছে তা মেনে চলতে হবে। প্রশ্নঃ আপনার নিজের আরও কিছু বলার আছে? উত্তরঃ আমি বলবো-সুস্থ দেহ, সতেজ মন। খেলবো আমরা সারাক্ষণ। একটা কথা হলো- নিজেকে সুস্থ রাখতে পারলে আমাদের খেলাধুলা হবে। খেলতে পারবো। খেলাধুলা আয়োজনও করতে পারবো।