বিজ্ঞাপন

অফিসিয়াল গ্রুপে যোগ দিন

বাংলাদেশের স্পোর্টসভিত্তিক শীর্ষ অনলাইন ম্যাগাজিন

টপ ট্রেন্ডিং সাকিব আল হাসান/ তামিম ইকবাল/ মুশফিকুর রহিম/ বিরাট কোহলি/ বাবর আজম/ মেসি/ নেইমার/ রোনালদো/ ব্রাজিল/ আর্জেন্টিনা/ রিয়াল মাদ্রিদ/ বার্সেলোনা/ পিএসজি

কিক অফের আগে টুকিটাকি: ইউরোপ শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ে অল ইংলিশ ফাইনাল

প্রকাশ: শনিবার, ২৯ মে, ২০২১ | ০০:০৩:৩৮

ডেইলি স্পোর্টসবিডি ডেস্ক

কিক অফের আগে টুকিটাকি: ইউরোপ শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ে অল ইংলিশ ফাইনাল
ছবিঃ সংগৃহীত
কিক অফের আগে টুকিটাকি: ইউরোপ শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ে অল ইংলিশ ফাইনাল ছবিঃ সংগৃহীত

উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের এই মৌসুমের শিরোপা যাচ্ছে ইংল্যান্ডে তা নিশ্চিত। তবে রোমাঞ্চর ব্যাপার হচ্ছে- লন্ডন নাকি ম্যানচেস্টার কোথায় হবে শিরোপা জয়ের উৎসব? উত্তরটা মিলে যাবে আগামীকাল রাতে। যেখানে পোর্তোর অল ইংলিশ ফাইনালে চেলসির মুখোমুখি হবে প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা জয়ী ম্যানচেস্টার সিটি। 

এবারের আসরে ফাইনাল হওয়ার কথা ছিল রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবার্গে। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির জন্য ভেন্যু পাল্টাতে বাধ্য হয় উয়েফা। রাশিয়া থেকে ফাইনালের ভেন্যু সরিয়ে নিয়ে আসা হয়েছিল তুরস্কের ইস্তাম্বুলে।

কিন্তু সেখানেও আসে বাঁধা। করোনা মহামারির কারণে তুরস্ককে ভ্রমণ তালিকায় ‘লাল তালিকা’ ভুক্ত করে ইংল্যান্ড। অর্থাৎ কোনও ইংলিশ সমর্থক তুরস্ক গিয়ে ২৯ মে চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালে দুই ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটি ও চেলসির লড়াই দেখতে পারবেন না। এই নিয়ে সৃষ্ট জটিলতায় আবারও চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালের ভেন্যু পাল্টাতে বাধ্য হয় ইউরোপিয়ান ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা উয়েফা।

ছবিঃ গোল ডট কম

পরে ইস্তাম্বুল থেকে সরিয়ে শেষমেশ ইউরোপসেরা ক্লাব হওয়ার লড়াইয়ের ভেন্যু ঠিক করা হয় পর্তুগালের পোর্তায়। আগামীকাল রাতেই এস্তাদিও দো দ্রাগাওয়ে স্টোডিয়ামে সাড়ে ষোল হাজার দর্শকের সামনে আসরের ফাইনালে মাঠে নামবে দুদল।

একবিংশ শতাব্দীতে এর আগে চ্যাম্পিয়নস লিগে মাত্র দুবার অল ইংলিশ ফাইনাল অনুষ্ঠিত হয়। প্রথমবার ২০০৮ সালে চেলসিকে হারিয়ে শিরোপা উল্লাস করে স্যার অ্যালেক্স ফার্গুসনের ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। দ্বিতীয়বার ২০১৯ সালে টটেনহ্যাম হটস্পার্সকে হারিয়ে শিরোপা উল্লাসে মাতে ইয়ুর্গেন ক্লপের লিভারপুল।

উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের ইতিহাসে এবারই প্রথম ফাইনাল খেলছে ম্যানচেস্টার সিটি। প্রতিযোগিতায় শুরু থেকে হট ফেভারিট সিটিজেনরা শিরোপা জিততে পারলে ইংল্যান্ডের ষষ্ঠ দল হিসেবে ইউরোপ সেরা ক্লাব হবে। আসরে আর কোনও দেশ থেকে তিন দলের বেশি শিরোপা জিতেনি।

২০১২ সালে টাইব্রেকারে জার্মান ক্লাব বায়ার্ন মিউনিখকে হারিয়ে প্রথমবার ইউরোপ সেরা হয় চেলসি। (ছবি টুইটার থেকে সংগৃহীত)

ইউরোপ শ্রেষ্ঠত্বের আসরে আগে একই দেশের দুই দলের মধ্যে ফাইনাল হয়েছে সাতবার, যার সবকটিই হয় ২০০০ সালের পর। স্পেনের দলগুলোর মধ্যে হওয়া ম্যাচগুলোর সবকটি জিতেছে রিয়াল মাদ্রিদ (২০০০ সালে ভালেন্সিয়ার বিপক্ষে এবং ২০১৪ ও ২০১৬ সালে অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে), ২০০৩ সালে জুভেন্টাসকে হারিয়েছিল এসি মিলান, ২০০৮ সালে চেলসিকে হারিয়েছিল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড আর ২০১৯ সালে টটেনহ্যামকে হারিয়েছিল লিভারপুল এবং ২০১৩ সালে বরুশিয়া ডর্টমুন্ডকে হারায় বায়ার্ন মিউনিখ।

আরও খেলার খবরঃ   নরউইচকে ব্রাজিল বানিয়ে গোলউৎসব চেলসির

চলতি মৌসুমের শুরুটা জঘন্য হলেও মাঝামাঝি সময়ে এসে ভয়ংকর রুপ ধারণ করে ম্যানচেস্টার সিটি। টানা জয়ে শুরুতে শীর্ষ আটের বাহিরে থাকা দলটিই ৩ ম্যাচ হাতে রেখেই প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা পুনরুদ্ধার করে। তাছাড়া, লিগ কাপ জয় করে ডমেস্টিক ডাবলও পূর্ণ করে।

অন্যদিকে সিটির মত শুরুতে আশানুরূপ পারফরম্যান্স করতে পারেনি চেলসিও। দলের সাবেক কিংবদন্তি ফ্রাংক ল্যাম্পার্ডের অধীনে দলটি ছন্নছাড়া ফুটবল খেলে শীর্ষ দশের বাহিরে থাকে। যার ফলশ্রুতিতে দলীয় ব্যর্থতায় বহিষ্কার হয় কোচ ল্যাম্পার্ডে।

ইংলিশ কিংবদন্তির বিদায়ে ব্লুজদের ডাগ আউটে বসেন পিএসজির সাবেক কোচ থমাস টুখেল। আগের মৌসুমে ফরাসিদের ইউরোপসেরার আসরে ফাইনালে তোলা জার্মান এই মাস্টারমাইন্ডের অধীনে বদলে যেতে শুরু করে।

ছবি গোল ডট কম থেকে সংগৃহীত

মৌসুমের বাকি সময় দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করে শীর্ষ দশের বাহিরে থাকা দলটি লেস্টার সিটিকে টপকে চ্যাম্পিয়নস লিগে জায়গা করে নেয়, এবারের মৌসুম চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালও নিশ্চিত করে প্রতিযোগিতার ইতিহাসের সবচেয়ে সফলতম দল রিয়াল মাদ্রিদকে হারিয়ে।

এবার পোর্তায় ফাইনাল খেলা দুটো দল সবমিলিয়ে চলতি মৌসুমে মুখোমুখি হয়েছে তিনবার। যেখানে জয়ের পাল্লা ভারী ব্লুজদের। পেপ গার্দিয়ালার দলকে দুবার হারিয়ে স্টামফোর্ড ব্রীজের ক্লাবটি ম্যাচ হেরেছে একবার। যা দুর্দান্ত প্রতাপশালী ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে মাঠে নামার আগে কিছুটা হলেও এডভান্টেজ দিবে থমাস টুখেলের শিষ্যদের। তাছাড়া, আসরে আগে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার অভিজ্ঞতাও নবাগত ফাইনাল খেলা সিটির বিপক্ষে এগিয়ে রাখবে ব্লুজদের।

যদিও চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে উঠার পথে ম্যান সিটির পারফরম্যান্স বেশ ভাবাবে চেলসিকে। আসরে এখন পর্যন্ত অপরাজিত পেপ গার্দিওলার দল, ক্লাব ইতিহাসে প্রথমবার ফাইনালে উঠার পথে এসময় সিটি প্রতিপক্ষের জালে ২৫ গোল করে হজম করে মাত্র দুটি। অবশ্য এখানেও পিছিয়ে নেই চেলসি। আসরে মাত্র একবারই পোর্তার কাছে হেরেছে ব্লুজরা। এসময় স্টামফোর্ড ব্রীজের দলটি ২২ গোল করে হজম করে সিটির সমান মাত্র দুটি।

ছবি গোল ডট কম থেকে সংগৃহীত

একদিকে ম্যানচেস্টার সিটির অবিশ্বাস্য ফর্ম, অন্যদিকে চেলসির সিটির বিপক্ষেই মুখোমুখি লড়াইয়ে এগিয়ে থাকা। প্রথমবার ইউরোপসেরা আসরে নিজেদের জয়গানে প্রস্তুত সিটিজেনরা, নয় বছর পর শিরোপা পুনরুদ্ধারে আশায় থাকা ব্লুজরা- আগামীকাল রাতে অল ইংলিশ ফাইনালে কেমন উত্তেজনাকর ম্যাচ অপেক্ষা করছে তা বলার আর অপেক্ষা থাকে না। দারুণ রোমাঞ্চকর ম্যাচটি শুরু আগে যত প্রশ্ন মনে উঁকি দিবে, এক নজরে জেনে নিন উত্তরগুলোঃ

আরও খেলার খবরঃ   ম্যানসিটির তান্ডবে 'ডুবে গেলো' এনকুকুর হ্যাট্রিক

কোন ম্যাচ?

উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনাল। ইউরোপ সেরার আসরে অল ইংলিশ ফাইনালে মুখোমুখি হবে চেলসি ও ম্যানচেস্টার সিটি।

কখন শুরু হবে?

বাংলাদেশ সময় রাত একটায় ম্যাচটা শুরু হবে। তার এক ঘণ্টা আগে মূল একাদশ ঘোষণা করে দেবে দল দুটি, অর্থাৎ রাত বারোটায়।

– ম্যাচটি কোথায় হবে?

শুরুতে তুরস্কের ইস্তাম্বুলে হওয়ার কথা থাকলেও তা সরিয়ে আনা হয়েছে পর্তুগালের পোর্তায়। এস্তাদিও দো দ্রাগাওয়ে স্টোডিয়ামে আসরের ফাইনালে মাঠে নামবে দুদল।

কোন চ্যানেলে দেখাবে?

সনি টেন টু।

– এর আগে এই প্রতিযোগিতায় চেলসির সর্বোচ্চ সাফল্য কী ছিল?

চেলসি ইংলিশ ক্লাবগুলোর মধ্যে সর্বাধিক আটবার উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনাল খেলেছে। এই নিয়ে তৃতীয়বারের মত ফাইনাল খেলা দলটি নিজেদের ইতিহাসে কেবল একবারই ইউরোপ সেরা হতে পারে। ২০১২ সালে টাইব্রেকারে জার্মান জায়ান্ট ক্লাব বায়ার্ন মিউনিখকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগ জয়ের স্বাদ পায় ব্লুজরা।

– এর আগে এই প্রতিযোগিতায় ম্যানচেস্টার সিটির সর্বোচ্চ সাফল্য কি ছিল?

১৯৭০ সালে কাপ উইনার্স কাপ জয়ের পর ম্যানচেস্টার সিটি ইউরোপিয়ান প্রতিযোগিতায় মাত্র চতুর্থবারের মত ইউরোপিয়ান প্রতিযোগিতায় সেমিফাইনাল খেলেছে। কাপ উইনার্স কাপ জয়ের পর নিজেদের ক্লাব ইতিহাসে আর কখনও ইউরোপিয়ান প্রতিযোগিতা ফাইনালে উঠতে পারেনি সিটিজেনরা। এবার নিজেদের ক্লাব ইতিহাসের প্রথমবার ইউরোপসেরা হওয়ার সুযোগ রয়েছে দলটির।

ছবি টুইটার থেকে সংগৃহীত

– মুখোমুখি পরিসংখ্যান কি বলে?

সব মিলিয়ে দুই দলের মুখোমুখি লড়াইয়ে ৬৮ জয় চেলসির, সিটি জিতেছে ৫৮ বার। ৪০ বার দুই দলের লড়াই হয়েছে ড্র। সর্বশেষ চার দেখায় তিনবার জয় পেয়েছে ব্লুজরা৷

চেলসির সম্ভব্য একাদশঃ

মেন্ডি; আজপিলিকুয়েটা, সিলভা, রুডিগার; জেমস, কোভাচিচ, কান্তে, চিলওয়েল; মাউন্ট, ওয়ার্নার ও হাভার্টজ।

ম্যানচেস্টার সিটির সম্ভব্য একাদশঃ

এডারসন; ওয়াকার, দিয়াস, স্টোনস, জিংচেনকো; ফার্নান্দিনহো, গিনদোয়ান, সিলভা; মাহরেজ, ডি ব্রুইন ও ফোডেন।

সাম্প্রতিক খবর

ক্লাব ফুটবল / রিয়াল মাদ্রিদ-বার্সেলোনার ‘এল ক্লাসিকো’, রেকর্ড পরিসংখ্যানগুলো জানেন?
ক্লাব ফুটবল / শতবর্ষী রেড ডার্বিতে মাঠে নামছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও লিভারপুল
আন্তর্জাতিক ক্রিকেট / বাংলাদেশের চেয়ে আমরাই ভালো দল: শানাকা
টি ২০ বিশ্বকাপ ২০২১ / বিশ্বকাপে আজকের খেলা: ৮ম দিন
আন্তর্জাতিক ক্রিকেট / ক্যারিবিয়ানদের বিধ্বস্ত করে টুর্নামেন্ট শুরু ইংল্যান্ডের
ক্লাব ফুটবল / ব্রাইটনকে উড়িয়ে দিল ম্যানচেস্টার সিটি
ক্লাব ফুটবল / হফেনহাইমের জালে বায়ার্নের চার গোল
টপ ট্রেন্ডিং সাকিব আল হাসান/ তামিম ইকবাল/ মুশফিকুর রহিম/ বিরাট কোহলি/ বাবর আজম/ মেসি/ নেইমার/ রোনালদো/ ব্রাজিল/ আর্জেন্টিনা/ রিয়াল মাদ্রিদ/ বার্সেলোনা/ পিএসজি