সুপার লিগ স্ক্যান্ডাল: কঠিন শাস্তির মুখে বিদ্রোহীরা

প্রকাশ: শনিবার, ৮ মে, ২০২১ | ১৫:৫৫:৪৩

ডেস্ক রিপোর্ট

সুপার লিগ স্ক্যান্ডাল: কঠিন শাস্তির মুখে বিদ্রোহীরা ছবিঃ ইন্টারনেট

ইউরোপিয়ান ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রণ সংস্থা উয়েফাকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে শীর্ষ বারো ক্লাবের ‘ইউরোপিয়ান সুপার লিগ’ আয়োজনের স্বপ্ন ভেস্তে গেছে। উয়েফা ও ফিফার হুমকির মুখে পড়ে শুরুতে ইংলিশ ক্লাবগুলো এই বিদ্রোহী লিগ থেকে কেটে পড়ার পর রিয়াল মাদ্রিদ, বার্সেলোনা ও জুভেন্টাস ব্যতীত একে একে সবাই বের হয়ে আসে। এবার সুপার লিগ প্রজেক্টের সাথে সম্পৃক্ত তিন ক্লাবের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তির কথা জানায় উয়েফা।

শুক্রবার এক বিবৃতিতে সুপার লিগ থেকে বের হয়ে আসা নয় ক্লাবের কথা অফিশিয়ালি জানায় উয়েফা। বাকি বিদ্রোহী তিন ক্লাবের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও জানায় তারা। এসময় ফিরে আসা ক্লাবগুলোর সঙ্গে তাদের ‘ক্লাব কমিটমেন্ট ডিক্লারেশন’ চুক্তি কথাও জানায় সংস্থাটি। বিবৃতিতে উয়েফা জানায়,

“সুপার লিগ প্রজেক্ট থেকে বেরিয়ে আসা নয় ক্লাব পুরোনো অবস্থায় ফেরার একটি অঙ্গীকারনামা ‘ক্লাব কমিটমেন্ট ডিক্লারেশন’ এ স্বাক্ষর করেছে। ক্লাবগুলো হলো – লিভারপুল, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, টটেনহ্যাম হটস্পার্স, ম্যানচেস্টার সিটি, চেলসি, আর্সেনাল, এসি মিলান, ইন্টার মিলান ও অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ।”

বিবৃতিতে উয়েফা প্রেসিডেন্ট আলেক্সান্দের সেফেরিন জানায় অঙ্গীকারনামায় স্বাক্ষর করা নয় ক্লাব পার পেলেও এখনও যারা বিদ্রোহী লিগের সঙ্গে সম্পৃক্ত তাদের শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে।

রিয়াল মাদ্রিদ, বার্সেলোনা ও জুভেন্টাসকে ইঙ্গিত করে উয়েফাকে উপেক্ষা করে ‘সুপার লিগ’থেকে সরে আসার আহ্বান প্রত্যাখান করা ক্লাবগুলোর বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার সব রকম অধিকার উয়েফার আছে বলে জানায় চেফেরিন।

“চুক্তিনামায় স্বাক্ষর করা দলগুলো ছাড়া এখনও যারা সুপার লিগ প্রজেক্টের সাথে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে উয়েফা পরবর্তীতে ব্যবস্থা নিবে। আমাদের আহ্বান প্রত্যাখ্যান করা ক্লাবগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার অধিকার উয়েফার রয়েছে।”

ছবিঃ ইন্টারনেট

অঙ্গীকারনামায় চুক্তিবদ্ধ হয়ে নিষেধাজ্ঞার খড়গ থেকে বেচে গেলেও উয়েফার শাস্তি থেকে রক্ষা পায়নি নয় ক্লাব। নিজেদের ভুল বুঝতে পেরে বিদ্রোহী লিগ থেকে ফিরে আসা ক্লাবগুলোকে অর্থদণ্ড দিয়েছে ইউরোপের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রণ সংস্থা। এখান থেকে পাওয়া সব অর্থই ইউরোপের শিশু, যুব ও তৃণমূল পর্যায়ের ফুটবলের উন্নয়নে ব্যবহার করা হবে।

এছাড়াও ক্লাবগুলিকে সামনের মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ, ইউরোপা লিগ থেকে পাওয়া রাজস্বের পাঁচ শতাংশও অনুদাম দিতে হবে। আগামীতে এই ধরনের ‘বিদ্রোহী’ লিগে খেলতে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিলে ১০ কোটি ইউরো গুণতে হবে, আর কোন রকম অঙ্গীকার ভঙ্গ করলে মাশুল দিতে হবে ৫ কোটি ইউরো।