আন্তর্জাতিক মানের ছোঁয়া পাচ্ছে শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত স্টেডিয়াম!

প্রকাশ: সোমবার, ১৪ জুন, ২০২১ | ২০:৩২:১৮

মোঃ রানা শেখ

আন্তর্জাতিক মানের ছোঁয়া পাচ্ছে শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত স্টেডিয়াম! ছবিঃ বাফুফে

কুমিল্লার ধর্মসাগর পাড় ঘেসে অবস্থিত শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত স্টেডিয়াম যেন প্র‍তি ম্যাচেই দর্শকদের উন্মাদনার কেন্দ্র বিন্দুতে থাকে। ইতোমধ্যে প্রিমিয়ার লীগে সেরা ভেন্যু হিসেবেও আখ্যায়িত হয়েছে এই স্টেডিয়ামটি। বসুন্ধরা, মোহামেডানের কোচ থেকে শুরু করে আবাহনী লিমিটেড ঢাকার কোচ মারিও লামোসেরও মন কেড়েছে কুমিল্লার এই স্টেডিয়াম।

এইতো গত বছরের আগেও এই স্টেডিয়ামকে নিয়ে কারও মধ্যে কোনও আগ্রহ না থাকলেও বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ ফুটবলের মধ্য দিয়ে উন্মাদনা ছড়িয়েছে পুরা কুমিল্লায়। এই ফুটবলের মধ্য দিয়েই যেন প্রাণ ফিরে পেয়েছে জেলাটি। প্রতিটা ম্যাচেই গ্যালারি ভর্তি দর্শকের উপস্থিতিতে কুমিল্লা যেন রূপ নেয় উৎসবের নগরীতে।

গ্যালারি ভর্তি দর্শক কুমিল্লা স্টেডিয়ামে। ছবিঃ সংগৃহীত

চলতি সিজনে কুমিল্লায় আয়োজিত প্রিমিয়ার লিগের প্রথম ম্যাচ দেখতে শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত স্টেডিয়ামে গিয়েছিলেন বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন। পুরা স্টেডিয়াম পরিদর্শন শেষে বাফুফে বস বলেছিলেন,

“আমি আশা করি এটা ভবিষ্যতে বাংলাদেশ ফুটবলের জন্য আদর্শ ভেন্যু হতে যাচ্ছে। আন্তর্জাতিক ফুটবল ম্যাচ আয়োজনের জন্য যে মানদণ্ড থাকা প্রয়োজন, তার সবই আছে এই স্টেডিয়ামে। আমরা ভবিষ্যতে এখানে দুই চারটা আন্তর্জাতিক ফুটবল খেলতে চাই।”

বাফুফে বসের সেই কথার প্রেক্ষিতেই কুমিল্লার শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত স্টেডিয়াম পেতে যাচ্ছে আন্তর্জাতিক মানে ছোঁয়া। আন্তর্জাতিক ম্যাচ আয়োজনের জন্য উন্নত ব্যবস্থা, ফ্লাড লাইট, উন্নত ড্রেসিং রুম, গ্যালারিতে চেয়ারে ব্যবস্থা সহ টিকিট কাউন্টার এবং নিরাপত্তার বিষয় আবশ্যক জরুরি। ফিফা ও এএফসির নিয়ম অনুসারেই উল্লেখিত বিষয় গুলো নিশ্চিত করতে চায় বাফুফে।

সে লক্ষ্যেই আজ (মঙ্গলবার) সকাল ১০.০০ ঘটিকায় জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ ও বাফুফে যৌথভাবে কুমিল্লার ভাষা সৈনিক শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত স্টেডিয়াম পরিদর্শন করেন। উক্ত পরিদর্শনে বাফুফে থেকে উপস্থিত ছিলেন সাধারণ সম্পাদক জনাব মোঃ আবু নাইম সোহাগ সহ জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সচিব জনাব মোঃ মাসুদ করিম, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ এর পরিকল্পনা ও উন্নয়ন বিভাগের পরিচালক জনাব মোঃ সারওয়ার জাহান। মূলত স্টেডিয়াম তৈরির দায়িত্ব জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের। যে কারণে বাফুফে চাইলেই এটা নিজেদের মত করে কাজ করতে পারবে না।

স্টেডিয়াম ঘুরে ঘুরে পরিদর্শন করছে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সচিব।

উক্ত পরিদর্শন শেষে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সচিব জনাব মোঃ মাসুদ করিম সন্তুষ্ট প্রকাশ করেছেন বলে জানিয়েছেন বাফুফের সাধারণ সম্পাদক জনাব মোঃ আবু নাইম সোহাগ। পুরো বিষয় খোলাসা করে বলতে গিয়ে তিনি জানালেন,

“কুমিল্লা স্টেডিয়ামে যেহেতু অনেক দর্শকের উৎসাহ দেখা যায় এবং বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের অন্যতম দুটি ক্লাবের হোম ভেন্যু এটা (বসুন্ধরা কিংস ও মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব)। এই স্টেডিয়ামে দর্শকের ভাল উদ্দীপনা দেখা গিয়েছে এবং আমরা বাফুফে থেকেও চিন্তা করেছি যে যদি এই মাঠে আন্তর্জাতিক ম্যাচ আয়োজন করতে চাই তবে সেখানে আন্তজাতিক মানের স্টেডিয়ামে যে সুবিধা গুলো থাকা দরকার সেগুলো এই স্টেডিয়ামে নেই, তাই এই বিষয় গুলো নিশ্চিত করা জরুরি। সেই প্রেক্ষিতে এই মাঠের ফ্লাড লাইট,ড্রেসিং রুম সহ আরো যে সুবিধা রয়েছে সেগুলো নিশ্চিত করার পাশাপাশি গ্যালারিতে চেয়ার বসানো নিশ্চিত করা দরকার। এছাড়া স্টেডিয়ামের পুরা নিরাপত্তা কিভাবে আরো বাড়ানো যায় সে বিষয়টি আজ পর্যবেক্ষণ করা হয়েছে এবং আমরা জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ থেকে ভাল একটা ফিডব্যাক পেয়েছি। আশা করি তারা যেন খুব তড়িত গতিতে কাজ করবে এবং খুব শিঘ্রই যেন বাস্তবায়িত করে।”

কুমিল্লার এই শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত স্টেডিয়াম আন্তর্জাতিক মানে হিসেবে গড়ে উঠলে অন্তত ঢাকার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের উপর কিছুটা হলেও চাপ কমবে।