হার দিয়ে ‘বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব’ মিশন শেষ করলো বাংলাদেশ

প্রকাশ: বুধবার, ১৬ জুন, ২০২১ | ০১:৪৪:৪৬

মোঃ রানা শেখ

হার দিয়ে ‘বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব’ মিশন শেষ করল বাংলাদেশ ছবিঃ বাফুফে

বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের প্রথম লেগে ওমানের কাছে ৪-১ গোলে হারার পর দ্বিতীয় লেগে বড় হারের শঙ্কা নিয়ে মাঠে নামে বাংলাদেশ। একে তো প্রতিপক্ষ সব দিক থেকেই শক্তিশালী অন্যদিকে এই ম্যাচে ছিলেন না নিয়মিত অধিনায়ক জামাল ভুঁইয়া, রহমত মিয়া, বিপলু আহমেদ, মাসুক মিয়া জনি ও সোহেল রানা। তবে সেই শংকা খুব বড় ভাবে আঘাত হানেনি, শক্তিশালী ওমানের কাছে বাংলাদেশ হেরেছে ৩-০ গোলে। প্রথমার্ধের এক গোলের পর দ্বিতীয়ার্ধে আরো দুই গোল হজম করে তপু-জিকোরা।

গুরুত্বপূর্ণ বেশ কয়েকজন ফুটবলার না থাকায় এ ম্যাচে একাদশে চার পরিবর্তন করে মাঠে নামে বাংলাদেশ। রাইট ব্যাক তারিক কাজীকে এ ম্যাচে মাঝ মাঠ সামলানোর দায়িত্ব দেয়া হয়। এছাড়া লেফট ব্যাকে ইয়াসিন আরাফাত এবং ডান পাশে রিমন হোসেনক দিয়ে শুরু করান জেমি ডে। সেন্টার ব্যাকে ছিলেন পরীক্ষীত তপু বর্মন ও রিয়াদুল হাসান রাফি।

আক্রমণের দায়িত্বে থাকা মতিন মিয়া প্রথমার্ধে খুব একটা সুযোগ পায়নি। কেননা ম্যাচের প্রথম ২৮ মিনিটে ওমানের রক্ষণ ভাগে একবারও নিঃশ্বাস ফেলতে পারেনি বাংলাদেশের ফরোয়ার্ডরা।

ছবিঃ বাফুফে

ম্যাচের শুরু থেকেই বাংলাদেশে উপর দাপট দেখাতে থাকে ওমানের ফুটবলাররা। বাংলাদেশকে এক মুহুর্তের জন্যও স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলতে দেয়নি আল গাফরিরা। প্রথম ১৭ মিনিটে এক বা দুই নয় দশ দশটি কর্নার তুলে নেয় ওমান তবুও বাংলাদেশের রক্ষণ ভাগ ভাঙ্গতে পারেনি।

১৮ মিনিটে ওমানকে হতাশায় ডুবায় মোহাম্মদ ইব্রাহিম। নিশ্চিত গোল হতে যাওয়া বল গোল লাইন থেকে মাথা দিয়ে দারুণ ভাবে ক্লিয়ার করে দেন তিনি। ফল এ যাত্রায় রক্ষা পায় বাংলাদেশ। ১৮ মিনিটে রক্ষা পেলেও ২২ মিনিটে আর নিজেদের রক্ষা করতে পারেনি তপুরা। খালিদ খলিফার বাড়ানো মাটি ঘেষা ক্রস থেকে পা লাগিয়ে সহজেই বল গোলে পরিণত করেন মোবারক আল গাফরি।

গোল হজমের পর ২৮ মিনিটে প্রথম বারের মত ওমানের রক্ষণ ভাগে আক্রমণ চালায় মতিন মিয়ারা। গোলের দারুণ এক সুযোগ পেলেও তা কাজে লাগাতে পারেনি ইয়াসিন আরাফাত। আব্দুল্লাহর কর্ণার থেকে আসা বল তপুর মাথা ছুয়ে গোল পোস্টের সামনে ফাঁকা জায়গায় থাকা ইয়াসিন আরাফাত হেড করলেও ওমানের গোলকিপার ফাইয়াজ ইসা দুর্দান্ত ভাবে ফ্লিক করে বারের উপর দিয়ে বাইরে পাঠিয়ে দেন। গোল করার দারুণ এই সুযোগ মিসের পর মাথায় হাত রাখতে দেখা যায় তারিক কাজী, ইয়াসিনের।

প্রথমার্ধে ১ গোলে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয়ার্ধে মাঠে নামে বাংলাদেশ।

দ্বিতীয়ার্ধের প্রথম ১৫ মিনিটে বল দখলের লড়াই চলে দুই দলের মধ্যে, যে কারণে তেমন আক্রমণ সাজাতে পারেনি কোন দল। যদিও ওমান কয়েকবার গোলের সুযোগ পেলেও গোছালো আক্রমণ না হওয়ায় তপু বর্মনদের বিট করতে পারেনি। তবে ৬১ মিনিটে আর ভুল করেনি ওমান, ওমানকে দুই গোলে এগিয়ে নেন খালিদ খলিফা।

ছবিঃ বাফুফে

দুই গোলে পিছিয়ে রক্ষণ ভাগে আরো মনোযোগ দেয় বাংলাদেশ। কপাল ভাল থাকায় ওমানের নেওয়া শট দুই বার ক্রস বারে লেগে ফিরে আসে। সেটা না হলে আরো বেশি গোল হজম করতে হত বাংলাদেশকে।

৮১ মিনিটে ওমানকে ৩-০ গোলে এগিয়ে নিয়ে নিজের দ্বিতীয় গোলের দেখা পান খালিদ খলিফা। ম্যাচের বাকি সময়ে বাংলাদেশ আর গোল পরিশোধ করতে না পারলে ৩-০ গোলের হার নিয়ে মাঠে ছাড়ে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা।

এই হারে ৮ ম্যাচে ছয় হার ও দুই ড্র’য়ে দুই পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ ‘ই’তে তলানীতে থেকেই শেষ করল বাংলাদেশ। এতে ২০২৩ এশিয়ান কাপের সরাসরি বাছাইপর্ব খেলার স্বপ্ন শেষ জামাল ভুইয়াদের। প্লে-অফ খেলেই বাছাইপর্ব খেলতে হবে বাংলাদেশকে।