আবাহনীর জালে মুক্তিযোদ্ধার গোলের হালি

প্রকাশ: রবিবার, ১৮ জুলাই, ২০২১ | ২২:১৬:২৫

ডেস্ক রিপোর্ট

আবাহনীর জালে মুক্তিযোদ্ধার গোলের হালি

আজ (রবিবার) বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে অঘটনের দুই ম্যাচের দেখা মিললো। বিকেলে চিটাগাং আবাহনীর কাছে ২-১ গোলে হেরে টানা ২২ ম্যাচ অপরাজিত থাকার রেকর্ড ক্ষুণ্ণ হয়েছে বসুন্ধরা কিংসের। এরপর সন্ধ্যার ম্যাচে আবাহনী লিমিটেডকে ৪-২ গোলে হারিয়ে সবাইকে অবাক করে দিয়েছে মুক্তিযোদ্ধা ক্রীড়া সংসদ। পুরো ম্যাচে আবাহনীকে এক প্রকার কোণঠাসা করে রাখে রাজা ইশার শিষ্যরা। জোড়া গোল করেছেন বাল্লো ফামোসা এবং একটি করে গোল করেছেন ইব্রাহিম ডিকো ও সারুয়ার জামান নিপু। আবাহনীর হয়ে দুটি গোল করেন সানডে চিজোবা ও ফয়সাল আহমেদ শিতল।

এবারের প্রিমিয়ার লিগের প্রথম লেগে এই মুক্তিযোদ্ধাকে ৪-১ গোলে হারিয়েছিল আবাহনী। ৫ মাস পেরুতে না পেরুতেই অঘটনের জন্ম দিয়ে সেই হারের মধুর প্রতিশোধ নিল মুক্তিযোদ্ধা ক্রীড়া সংসদ।

ম্যাচের শুরু থেকেই দুই দল সমান তালে খেলতে থাকে। ১৭ মিনিটেই আবাহনীর কিপার শহিদুল আলম সোহেলের মারাত্মক ভুলে গোল হজম করে আবাহনী। ডি-বক্সের বাম প্রান্ত ধরে মুক্তিযোদ্ধার আইভরিয়ান ফরোয়ার্ড বাল্লো ফামোসার শট প্রথমে প্রতিহত করলেও পুরোপুরি বিপদমুক্ত করতে পারেননি সোহেল। বল তার গায়ে লেগে পড়ে মুক্তিযোদ্ধার আরেক আইভোরিয়ান স্ট্রাইকার ইব্রাহিম ডিকোর পায়ে। ডিকোর শটে জোর না থাকলেও সোহেলের দুই হাতের ফাঁক দিয়ে বল জড়ায় জালে।

প্রথমার্ধের বিরতিতে যাওয়ার আগেই দুই গোলে এগিয়ে যান মুক্তিযোদ্ধা, ফামোসা-ডিকো জুটির আক্রমণে ৪৪ মিনিটে দ্বিতীয় গোলের দেখা পায়। ডি-বক্সের বাইরে থেকে ডিকোর ক্রসে ফামোসার নেওয়া হেড সোহেলকে ফাঁকি দিয়ে আবারও জড়ায় জালে। ম্যাচে ফিরতে তর সইছিল না আবাহনীর, প্রথমার্ধের বিরতিতে যাওয়ার আগেই এক গোল পরিশোধ করে আবাহনী। অতিরিক্ত সময়ে পেনাল্টি থেকে গোল করেন সানডে চিজোবা।

সমতায় ফেরার চেষ্টায় মরিয়া আবাহনীর কফিনে আরেকটা পেরেক ঠুকে দেন দুই আইভোরিয়ান ফামোসা-ডিকো। কাউন্টার অ্যাটাকে দ্রুত গতিতে ছুটতে থাকা ডিকোকে ডি-বক্সে ফাউল করে মুক্তিযোদ্ধাকে পেনাল্টি উপহার দেন আবাহনী ডিফেন্ডার হৃদয়। ৬৩ মিনিটে স্পট কিকে গোল করেন বাল্লো ফামোসা।

তিন গোল করেও যেন শান্তি পাচ্ছিল না মুক্তিযোদ্ধা, প্রথম লেগের বড় হারের যে প্রতিশোধ নিতে হবে। তাই তো ৮৪ মিনিটে চতুর্থ গোলের দেখা পায় মুক্তিযোদ্ধা। গিনি ডিফেন্ডার কামারা ইউনুসার ফ্রি-কিক থেকে মোঃ নিপুর গোলে নিশ্চিত হয় আকাশী-নীলদের তিক্ত হার।

যদিও নব্বই মিনিট শেষে অতিরিক্ত ২ মিনিটের মাথায় এক গোল শোধ করে আবাহনী। রায়হান হাসানের লম্বা থ্র থেকে আসা বল থেকে মাথা ছুইয়ে বল জালে জড়ান ফয়সাল আহমেদ শিতল। এর ফলে এবারের প্রিমিয়ার লিগে বড় অঘটনের শিকার হল আবাহনী। অন্যদিকে নিজেদের তিন নাম্বার জয়ের দেখা পেল মুক্তিযোদ্ধা।

১৮ ম্যাচে ১০ জয়, দুই হার ও ৬ ড্র’তে ৩৬ পয়েন্ট নিয়ে দুই নাম্বারেই থাকল আবাহনী লিমিটেড। তবে আগামীকাল শেখ রাসেলকে হারাতে পারলেই দুইয়ে উঠে আসবে শেখ জামাল। এদিকে ১৭ ম্যাচে তিন জয়ে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে ১১ তম স্থানেই থাকল মুক্তিযোদ্ধা ক্রীড়া সংসদ।