টেস্টে আজকের দিনটা ভুলে যেতে চাইবে বাংলাদেশ ক্রিকেট

প্রকাশ: বুধবার, ১৪ জুলাই, ২০২১ | ২০:২৫:২১

ওয়াহেদ মুরাদ

টেস্টে আজকের দিনটা ভুলে যেতে চাইবে বাংলাদেশ ক্রিকেট ছবিঃ সংগৃহীত

সাদা পোশাক যেমন টেস্ট ক্রিকেটের আভিজাত্য তেমনি সাদা পোশাক নিয়ে লিখতে গেলেও ভাবতে হয়, খুঁজে ফিরতে হয় প্রতিটি ইনিংসের গল্প আর গল্পের মাঝে কবিতার সুর। যে সুরে কখনও ইতিহাস লিখা হয়, কখনও বা মুর্ছা যেতে হয়। হাজার মাইল পাড়ি দিয়ে সে গল্পের ভিলেন হয়েছিলেন বাংলাদেশের ক্রিকেটার। এর থেকে বাজে টেস্ট সিরিজ ক’টা খেলেছে বাংলাদেশ!

বছরঘুরে সেই দিন আবারো ফিরেছে। ২০১৮ সালের আজকের দিনে ঐতিহাসিক সিরিজ হারের সাক্ষী হয়েছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট। যে হারের কোন ব্যাখ্যা নেই, আসেনি কোন সমাধান।

বাংলাদেশের টেস্ট ইতিহাসের অন্যতম বাজে হারগুলোকে যদি একটি মানচিত্রে আনা যায় তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ২০১৮ সালের সিরিজটি সেই মানচিত্রের সবথেকে বড় অংশ। সেই সিরিজের পর ওয়ানডে ও টি টুয়েন্টি সিরিজ জয়ে ঢাকা পড়ে গিয়েছিল টেস্ট হারের ব্যর্থতা।

সেই টেস্ট সিরিজে অধিনায়ক ছিলেন সাকিব আল হাসান। প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসে ৪৩ রানে অল আউট বাংলাদেশ। ব্যর্থতার যেন ষোলকলা পুর্ণ করেছিল বাংলাদেশ। লিটন দাসের ২৫ ছাড়া ঐ ইনিংসে ৪ রান করে করেছিলেন তামিম ইকবাল ও নুরুল হাসান সোহান। লিটন ছাড়া কেউ দুই অঙ্কের রানে পৌছাতে পারেননি।

ছবিঃ সংগৃহীত

মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ সহ চারজন ক্রিকেটার শূন্য রানে আউট হয়ে যান। বাংলাদেশের এই হাল করেন কেমার রোচ। পাঁচ ওভার বল করে ৮ রান দিয়ে ৫ উইকেট নেন তিনি।

এই টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৪০৬ রান করলে বাংলাদেশ পরের ইনিংসে গুটিয়ে যায় ১৪৪ রানে। দুই ইনিংস মিলিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের এক ইনিংসের অর্ধেক রানও করতে পারেনি বাংলাদেশ। প্রথম টেস্টে ইনিংস ও ২১৯ রানে হেরে যায় বাংলাদেশ।

দ্বিতীয় টেস্টে কিংস্টনে ওয়েস্ট ইন্ডিজ জিতে ২১৬ রানে। প্রথম ইনিংসে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ৩৫৪ রানের জবাবে ১৪৯ রানেই গুটিয়ে যায় বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ইনিংসে ২৯৫ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশ অল আউট হয়ে যায় ১৬৮ রানে।

ঐ টেস্টে তামিমের ৪৭ ও ০, সাকিবের ৩২ ও ৫৪, মুশফিকের ২৪ ও ৩১, লিটনের ১২ ও ৩৩, এবং তাইজুলের ১৮ ও ১৩ রানের পর দুই ইনিংসে দুই অঙ্ক ছুঁতে পারেনি আর কোন ব্যাটসম্যান।

এরপর অধিনায়ক বদলেছে, ঘরের মাঠে সাদা পোশাকে আফগানিস্তানের বিপক্ষে রক্তাক্ত হয়েছে বাংলাদেশ, তবে তেমন সাফল্য আসেনি। সাফল্য বলতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট জয়। সেই জয়ে অবশ্য স্বস্তিতে নেয় বাংলাদেশ। রিয়াদের অবসর সব ম্লান করে দিয়েছে এক নিমেষে।