বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে যত রেকর্ড

প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ২২ জুলাই, ২০২১ | ২২:৩৩:৫০

ডেস্ক রিপোর্ট

বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে যত রেকর্ড ছবিঃ আইসিসি/টুইটার

হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে স্বাগতিক জিম্বাবুয়কে ৮ উইকেটে হারিয়েছে বাংলাদেশ। সেই ম্যাচে হওয়া রেকর্ড এবং পরিসংখ্যান গুলো দেখে নিন একনজরে……

টি-টোয়েন্টি বাংলাদেশের ম্যাচের সেঞ্চুরিঃ

হারাতে আজ শততম টি-টোয়েন্টিতে মাঠে নেমেছিল বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। বিশ্বের নবম দল হিসেবে এই মাইলফলক স্পর্শ করলো বাংলাদেশ।

উল্লেখ্য, ২০০৬ সালের ২৮ নভেম্বরে এই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেই টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে নিজেদের যাত্রা শুরু করেছিলো বাংলাদেশ।

বাংলাদেশের প্রথম এবং শততম ম্যাচে অনন্য সাকিবঃ

সাকিব আল হাসানই বাংলাদেশের একমাত্র ক্রিকেটার যিনি দেশের প্রথম এবং শততম টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন।

বাংলাদেশের বিপক্ষে তিন সংস্করণেই অভিষেক মায়ার্সেরঃ

বাংলাদেশের চলতি সফরে টেস্ট এবং ওয়ানডেতে অভিষেক হয়েছিলো ডিওন মায়ার্সের। আজ টি-টোয়েন্টিতেও অভিষেক হলো ডানহাতি ব্যাটারের। যেখানে হারারেতে আজ ২২ বল মোকাবিলায় ৩৫ রান করে শরিফুলের বলে বোল্ড হয়েছেন তিনি।

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে বাংলাদেশের পরিসংখ্যানঃ

ম্যাচ – ১০০
জয় – ৩২
পরাজয় – ৬৬
পরিত্যক্ত – ২

তিন সংস্করণের শততম ম্যাচেই জয়ী বাংলাদেশঃ

নিজেদের শততম টি-টোয়েন্টি ম্যাচেও জয়ে পেলো বাংলাদেশ। এর আগে শততম ওয়ানডে এবং টেস্টে জয় পেয়েছিল টাইগাররা। ২০০৪ সালে নিজেদের শততম ওয়ানডেতে ম্যাচে ঘরের মাঠে ভারতকে হারিয়েছিল বাংলাদেশ। আর ২০১৭ সালে কলম্বোতে শততম টেস্টে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জয় পেয়েছিল বাংলাদেশ।

বাংলাদেশ ব্যতীত কেবল অস্ট্রেলিয়া এবং পাকিস্তানের তিন সংস্করণেরই শততম ম্যাচ জেতার কীর্তি আছে।

ছবি – জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট

নির্দিষ্ট প্রতিপক্ষের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ জয়ঃ

১০ – জিম্বাবুয়ে
৫ – ওয়েস্ট ইন্ডিজ
৪ – শ্রীলঙ্কা
৩ – আয়ারল্যান্ড
২ – আফগানিস্তান, পাকিস্তান ও নেদারল্যান্ডস

এছাড়া ভারত, সংযুক্ত আরব আমিরাত, কেনিয়া, নেপাল এবং ওমানের বিপক্ষে একটি করে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ।

উদ্বোধনী জুটিতে সৌম্য-নাঈমের পার্টনারশিপের রেকর্ডঃ

আজ ১৫৩ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে ৭৯ বলে ১০২ রানের পার্টনারশিপ গড়েন সৌম্য সরকার এবং নাঈম শেখ। যা এই ফরম্যাটে উদ্বোধনী জুটিতে সর্বোচ্চ পার্টনারশিপের রেকর্ড।

ছবিঃ আইসিসি/টুইটার

টি-টোয়েন্টি সংস্করণে উদ্বোধনী জুটিতে বাংলাদেশের ওপেনারদের সর্বোচ্চ পার্টনারশিপের এর আগের রেকর্ডটি ছিলো ৯২ রানের। যেটি ২০২০ সালের মার্চ মাসে এই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেই গড়েছিলেন তামিম ইকবাল – লিটন দাস জুটি।

সৌম্য সরকারের চতুর্থ টি-টোয়েন্টি ফিফটিঃ

হারারেতে আজ ৪৫ বল মোকাবিলায় ৫০ রান করেন ম্যাচ সেরা সৌম্য সরকার। যেখানে ৪টি চার এবং ১টি ছয় মেরেছিলেন বাঁহাতি ওপেনার। এর আগে বল হাতেও ১ উইকেট নিয়েছিলেন টাইগার অলরাউন্ডার।

নাঈম শেখের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ফিফটিঃ

৫১ বল মোকাবিলায় শেষ পর্যন্ত ৬৬* রানে অপরাজিত থেকে দলের জয় নিশ্চিত করেই মাঠ ছেড়েছেন আরেক ওপেনার নাঈম শেখ, যেখানে ৭টি চার মেরেছেন তরুণ এই ওপেনার। এই সংস্করণে তার প্রথম ফিফটি এসেছিলো ভারতের বিপক্ষে।

বাংলাদেশ এবং বিশ্ব ক্রিকেটের এমন মজার এবং অজানা সব পরিসংখ্যান জানতে নিয়মিত চোখ রাখুন ডেইলি স্পোর্টসবিডির ওয়েবসাইট এবং ফেসবুক পেইজে।