‘রোনালদো গর্দভ, মরিনহো নির্বোধ’

প্রকাশ: বুধবার, ১৪ জুলাই, ২০২১ | ২০:০৮:১৩

ডেস্ক রিপোর্ট

'রোনালদো গর্দভ ,মরিনহো নির্বোধ' ছবিঃ ইন্টারনেট

রিয়াল মাদ্রিদ প্রেসিডেন্ট ফ্লোরিন্টিনো পেরেজের একের পর এক অডিও ফাঁসে রীতিমতো তোলফাড় গোটা বিশ্ব। লস ব্লাংকোস দলের সাবেক ফুটবলারদের নিয়ে মাদ্রিদ প্রেসিডেন্টের করা একের পর এক মন্তব্যে নড়েচড়ে বসেছে ফুটবল বিশ্বে। ইউরো পরবর্তী ফুটবলের বর্তমানে সবচেয়ে বড় হট টপিক এখন পেরেজের ফাঁস হওয়া অডিওগুলো।

গতকালই স্প্যানিশ পত্রিকা এল কনফিডেনসিয়াল রিয়াল মাদ্রিদে সাবেক ফুটবলারদের নিয়ে প্রেসিডেন্ট ফ্লোরিন্টিনো পেরেজের বেশকিছু অডিও ফাঁস হয়।যেখানে রিয়াল প্রেসিডেন্টকে সাবেক দুই কিংবদন্তি ফুটবলার রাউল গঞ্জালেজ ও ইকার ক্যাসিয়াসকে নিয়ে খুবই নিম্নমানের কথা বলতে শুনা যায়। এমনকি দলের সাবেক দুই ফুটবলারকে ফ্লোরিন্টিনো পেরেজ রিয়ালে ইতিহাসের সেরা প্রতারক বলতেও শোনা যায়!

আজ ফ্লোরিন্টিনো পেরেজের আরও বেশকিছু অডিও ফাঁস করেছে এল কনফিডেনসিয়াল।এবার অন্য কারো নয়, রিয়াল মাদ্রিদের ইতিহাসের সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে উম্মাদ বলতে শোনায় যায় পেরেজের অডিও তে। শুধুই পর্তুগিজ মহানায়কই নয়, রিয়াল মাদ্রিদের সাবেক কোচ হোসে মরিনহোরও কড়া সমালোচনা করেন রিয়াল মাদ্রিদের প্রেসিডেন্ট।

ছবিঃ ইন্টারনেট

এবার পেরেজের বিরুদ্ধে যে অডিও ফাঁস হয়েছে তা বেশ গুরুতর। ফাঁস হওয়া অডিওতে রিয়াল মাদ্রিদের ইতিহাসের সর্বকালের সেরা গোলদাতাকে উম্মাদ এবং সাবেক কোচ হোসে মরিনহোকে ভয়ানক অহংকারী বলতে শোনা যায়। ফ্লোরিন্টিনো পেরেজ বলেন,

“ক্রিশ্চিয়ানো (রোনালদো) উম্মাদ, গর্দভ। অসুস্থ একটা মানুষ। আপনার মনে হতে পারে সে স্বাভাবিক, কিন্তু আসলে সে সেরকম না। সে যা করে তা কোন সুস্থ মানুষ করতে পারে না। ক্রিশ্চিয়ানো আর মরিনহো ভয়ানক অহংকারী, দুজনই উচ্ছন্ন হয়ে গেছে। এরা বাস্তবতা বুঝে না। বুঝলে এরা আরও অনেক পয়সা কামাই করতে পারতো।”

ছবিঃ ইন্টারনেট

২০০৯ সালে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ছেড়ে রেকর্ড ট্রান্সফারে রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। ইউরোপের অন্যতম সফল ক্লাটির হয়ে ৯ বছরে ৪৩৮ ম্যাচে ৪৫১টি গোল করেন পাঁচবারের বর্ষসেরা এই ফুটবলার। যা ক্লাবটি ইতিহাসে সর্বকালের সর্বোচ্চ। এই সময়ে চারটি ব্যালন ডি’অর জেতেন ৩৬ বছর বয়সী এই তারকা।

ক্লাবের হয়ে চারটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ, তিনটি ক্লাব বিশ্বকাপ, তিনটি উয়েফা সুপার কাপ, দুটি লা লিগা, দুটি কোপা দেল রে এবং দুটি স্প্যানিশ সুপার কাপ জিতেছেন। তিন বছর আগে চুক্তি নিয়ে দুই পক্ষের বনিবনা না হওয়ায় রিয়াল ছেড়ে ইতালিয়ান ক্লাব জুভেন্টাসে যোগ দেন পর্তুগিজ অধিনায়ক। অন্যদিকে রোনালদোর স্বদেশী কোচ মরিনহো ক্লাবে ছিলেন তিন বছর। প্রথম দুই বছরে তিনটি শিরোপা জিতলেও ২০১২-১৩ মৌসুমে কোন শিরোপা জিততে ব্যর্থ হওয়ায় ক্লাব ছাড়তে হয় স্পেশাল ওয়ান খ্যাত এই কোচকে।