ফুটবল > বাংলাদেশ ফুটবল

'জাতীয় দলে সুযোগ পেলে আমি সেরাটাই দিব'

নিউজ ডেস্ক

১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, দুপুর ২:৪৮ সময়

[ elita-2109130713 ]
দীর্ঘ অপেক্ষার পর গত ২৬ জুন বসুন্ধরা কিংসের জার্সিতে অভিষেক হয় এলিটা কিংসলের। প্রথম ম্যাচেই গোলের দেখা পাওয়ার পর চার ম্যাচ পর আবারো জোড়া গোল করে জাতীয় দলের মূল স্কোয়াডে জায়গা পাওয়ার দাবি আরো জোরালো করলেন এলিটা। সাইফের বিপক্ষে ৩-০ গোলে জয়ের পর এলিটা কিংসলে জানালেন, জাতীয় দলে সুযোগ পেলে আমি সেরাটাই দিব। গত মার্চে বাংলাদেশের নাগরিকত্ব পাবার পর জুনে পাসপোর্ট হাতে পান এলিটা কিংসলে। পাসপোর্ট হাতে পাবার পর ঘরোয়া ফুটবলে বসুন্ধরা কিংসের বিপক্ষে মাঠে নামলেও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে এখনও মাঠে নামা হয়নি এই স্ট্রাইকারের। এর আগে খেলতে পারেনি বসুন্ধরা কিংসের হয়ে এএফসি কাপেও। এলিটার অপেক্ষা যেন আরো বাড়ছেই কেননা আন্তর্জাতিক পর্যায়ে খেলতে হলে ফিফা ও এএফসির ছাড় পত্রের প্রয়োজন কিন্তু এখনো তা সম্পন্ন করতে পারেনি বাফুফে। এদিকে সাফের ৩৪ সদস্যের প্রাথমিক তালিকায় নাম রয়েছে এলিটা কিংসলের। ফিফা ও এএফসি থেকে ছাড়পত্র পাবার পর যদি মূল স্কোয়াডে জায়গা পান তবে নিজের সেরাটাই দিতে চান কিংসলে। "আমি আগের মতো এখনও বলবো আমি পুরোপুরি প্রস্তুত জাতীয় দলে নিজের সেরাটা দেয়ার জন্য। যখন আমি ডাক পাব আমি সেরাটাই দিব।" সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের বিপক্ষে জোড়া গোল করেছেন এলিটা কিংসলে। জোড়া গোলে জাতীয় দলের সুযোগ কি বেড়ে গেল কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে এলিটা বলেন, "আমি যদি তার জন্য (জেমি ডে) ঠিক মনে হয় তাহলে আমাকে ডাকবে। আর যদি আমকে পছন্দ নাহয় তাহলে বেস্ট যারা আছে তাকে নিবে। জাতীয় দলে পারফর্ম করার জন্য সেরা পারফরমারকেই দরকার। আজকের ম্যাচে আমি আমার বেস্টটাই দিতে চেয়েছি। আমার কোচের নির্দেশনা নিয়ে খেলার চেষ্টা করেছি। কোচের প্রসেসের সঙ্গে নিজেকে মানিয়ে পারফর্ম করার চেষ্টা করছি। এটা সহজ নয়। সবাই অনেক ফাস্ট খেলছে। আজকে আমি জাস্ট রেজাল্টটা দিতে পেরেছি।" এলিটা কিংসলে কথা বলেছেন নিজের ফিটনেস নিয়েও। পূর্ণ ফিট আছেন বলেই বসুন্ধরা কিংসের হয়ে খেলতে পারছেন। তবে জেমি ডে'র চোখে নাকি এখনও পূর্ণ ফিট নয় কিংসলে। "আমি আমার ক্লাবের সঙ্গে কাজ করছি। আমি জাতীয় দলের কোচের সঙ্গে কাজ করছি না। আমি যত কনসার্ন আছি ক্লাবের কোচের কাছে। তাকে জিজ্ঞেস করুন আমার ফিটনেস ঠিক আছে কি না। আমি জাতীয় দলের কোচের ব্যাপারে কিছু বলতে পারছি না। আমি যদি ফিট না হতাম তাহলে লিগের ম্যাচ খেলতে পারতাম না। আরও অনেক প্লেয়ার আছে যারা খেলতে পারছে না কারণ তারা ফিট নয়। আমি জানি না আসলে ফিটনেস কি বোঝায়! যেটা বলবো সবসময় ফিটনেসে উন্নতি করার জায়গা আছে। জাতীয় দলের কোচ যদি মনে করে আমার ফিটনেসে উন্নতির সুযোগ আছে তাহলে আমি আমার সবকিছু দিব তাকে।"