বিজ্ঞাপন

অফিসিয়াল গ্রুপে যোগ দিন

বাংলাদেশের স্পোর্টসভিত্তিক শীর্ষ অনলাইন ম্যাগাজিন

টপ ট্রেন্ডিং সাকিব আল হাসান/ তামিম ইকবাল/ মুশফিকুর রহিম/ বিরাট কোহলি/ বাবর আজম/ মেসি/ নেইমার/ রোনালদো/ ব্রাজিল/ আর্জেন্টিনা/ রিয়াল মাদ্রিদ/ বার্সেলোনা/ পিএসজি

‘মেসি-ম্যারাডোনার কারণেই মানুষ আর্জেন্টিনাকে চিনে’

প্রকাশ: সোমবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২১ | ১৫:১৫:৫৬

মোঃ রানা শেখ

২০১৬ রিও অলিম্পিকে আর্জেন্টিনা হকি দলের হয়ে সোনা জিতেছিলেন জোয়াকিন মেনিনি ও গঞ্জালো পেইলাত। এবারের প্রিমিয়ার ডিভিশন হকি লিগে মেসি-ম্যারাডোনার দেশের এই দুই হকি খেলোয়াড়কে উড়িয়ে এনেছিল মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। মোহামেডানের হয়ে আলো ছড়ালেও লিগ শিরোপার স্বাদ দিতে পারেননি তাঁরা। তাতে কি! বিশ্বমানের এই দুই খেলোয়াড় বাংলাদেশের মাঠ মাতিয়েছে এতেই বা কম কিসে?

ফুটবলের দেশ আর্জেন্টিনা, যেখানে জন্মের পর থেকেই দীক্ষা দেয়া হয় ফুটলের। সেই দেশই কিনা ধীরে ধীরে জনপ্রিয় হচ্ছে হকি নাম ইভেন্টের। যারা কিনা পুরো বিশ্বকে চমকে দিয়ে জিতে নিয়েছিল ২০১৬ রিও অলিম্পিকের সোনা। ফুটবলের পাশাপাশি কীভাবে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে হকি, বাংলাদেশের হকি এবং নিজের ক্যারিয়ার নিয়ে ডেইলিস্পোর্টসবিডির সাথে কথা বলেছেন আর্জেন্টিনার এই দুই হকি খেলোয়াড়।

প্রথমে জোয়াকিন মেনিনি-এর সাথে কথোপকথন…..

প্রশ্নঃ অনেক দেশে খেলেছেন – নেদারল্যান্ডস, মালয়েশিয়া। বাংলাদেশের সাথে কোন পার্থক্য পাওয়া যায়?

মেনিনিঃ হকি স্তরের পরিপ্রেক্ষিতে, আমি মনে করি নেদারল্যান্ডস আরও পেশাদার। সারা বছর তারা একই ক্লাবের সাথে প্রশিক্ষণ করে এবং খেলে। সুতরাং, তাদের দল সত্যিই কৌশলগত শক্তিশালী। তাঁদের স্তরটি আরও ভাল কারণ তারা একই দলের সাথে সারা বছর খেলতে পারে কিন্তু এখানে (বাংলাদেশ) এটি কেবল এক বা দুই মাসের জন্য হয়। এখানে (বাংলাদেশে) ছেলেরা আমাদের বলেছিল যে তারা এর আগে তিন বছর খেলেনি কারণ লিগ বাতিল হয়েছিল। কিন্তু এখনও খুব ভাল স্তর এখানে. আমরা এটাকে মালয়েশিয়া লিগের সাথে তুলনা করতে পারি যেখানে আমরা তিন বছর আগে খেলেছিলাম। এছাড়াও, ভালো লেভেল।

প্রশ্নঃ পিচ, লাইট, আম্পায়ারিং ও অন্যান্য আয়োজনে কোনো পার্থক্য আছে?

মেনিনিঃ না, আমি মনে করি স্টেডিয়াম খুব সুন্দর, পিচ খুব ভালো। মাঠে আরো দর্শক এলে হয়তো ভালো হত। বিদেশিদের থাকার ব্যবস্থা ও বিশ্রামের ব্যবস্থাও সত্যিই ভালো।

আরও খেলার খবরঃ   সাকিবকে পেতে মোহামেডানের সামনে ব্রাদার্স বাঁধা!

প্রশ্নঃ জাতীয় দল থেকে তাড়াতাড়ি অবসরের কারণ?

মেনিনিঃ না, আমি অবসর নিইনি, কোচ আমাকে অবসর দিয়েছেন। সে আমাকে বের করে দিয়েছে। তিনি বলেছিলেন যে আমি দলের অংশ হতে যাচ্ছি না কারণ তিনি আমাকে সেই মুহূর্তে পছন্দ করেননি এবং বলেছিলেন যে আমার খেলার মান ভাল ছিল না। তাই, আমি ভেবেছিলাম হয়তো আমার জাতীয় দলে ফেরার সযোগ রয়েছে এবং অনুশীলন শুরু করি। কিন্তু তিনি আমাকে আর ফোন করেননি, এমনকি আমাকে বলেননি যে আমি বাদ হয়ে গেছি। তবে আমি এখনও জাতীয় খেলতে চাই।

প্রশ্নঃ আপনার দেশে ফুটবল এবং হকির মধ্যে প্রতিযোগিতা কেমন?

মেনিনিঃ ফুটবল অন্য মাত্রায়। এখানে যেমন, ফুটবল প্রথম আসে এবং অন্যান্য খেলা বেশ দূরে। আমাদের দেশে হকি তেমন জনপ্রিয় নয়। ফুটবল সেখানে একটি ঐতিহ্য হয়ে উঠেছে, এটি অনেক বছর ধরে শীর্ষে রয়েছে। আর হকি অলিম্পিক জিতে একটু একটু করে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। হকি কিছুটা জনপ্রিয়, তবে ফুটবলের মত নয়।

প্রশ্নঃ অলিম্পিকে পদক জয়ের পর আপনার অনুভূতি কেমন ছিল?

মেনিনিঃ আশ্চর্যজনক.. কারণ তখন স্বপ্ন সত্যি হয়। জাতীয় দলের হয়ে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে খেলা আমাকে গর্বিত করে।

গঞ্জালো পেইলাত-এর সাথে কথোপকথন…..

প্রশ্নঃ বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের বড় ঘাটতি কী মনে হয়েছে?

পেইলাতঃ এ দেশের খেলোয়াড়েরা খুব বেশি ম্যাচ খেলার সুযোগ পায় না, আমার কাছে এটা একটা বড় সমস্যা মনে হয়েছে। দ্বিতীয় সমস্যা, অবকাঠামো, দলের কাঠামোতেও সমস্যা আছে। পেশাদারিত্বে ঘাটতি আছে। সবাই সারা মাঠে দৌড়াতে থাকে, বলের পেছনে ছুটতে থাকে। খেলার একটা ধরন আছে। এটা সবাইকে আগে বুঝতে হবে।

প্রশ্নঃ বাংলাদেশে আসার পর ব্যক্তিগত লক্ষ্য কী ছিল?

পেইলাতঃ আমি মনে করি, কারো ব্যক্তিগত লক্ষ্যে নয়, দলের জয়ের দিকে আমাদের মনোযোগ দিতে হবে। আমি এবং মেনিনি যখন এখানে এসেছিলাম, তখন আমরা বলেছিলাম যে আমরা দলকে জেতার জন্য এখানে এসেছি, আমাদের লক্ষ্যের জন্য নয়।

আরও খেলার খবরঃ   মাহেদির অনবদ্য ব্যাটিংয়ে সুপার লিগে প্রথম জয় গাজী গ্রুপের

প্রশ্নঃ এখানকার আবহাওয়া সম্পর্কে কী ধারণা পেলেন?

পেইলাতঃ আমার মনে হয় রাতটা খুব নিখুঁত। এটা সত্যিই গরম নয়. হকি খেলা ভালো। কিন্তু দিনের বেলায় বেশ গরম পড়ে। শীতকালে, গ্রীষ্ম বা বৃষ্টিতে কী হবে তা আমি কল্পনা করতে পারি না।

প্রশ্নঃ ফুটবল বিশ্বকাপের সময় পুরো বাংলাদেশে আর্জেন্টিনার পতাকা টানানো হয়। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে নিজ দেশের পতাকার এত কদর, কেমন লাগে?

পেইলাতঃ এটা সত্যিই চমৎকার, যখন আমরা সারা বিশ্বে যাই, আর্জেন্টিনার কথা শুনে সবাই অবাক হয়ে যায় কেননা আমরা মেসি-ম্যারাডোনার দেশের মানুষ! আর্জেন্টিনা থেকে আসা প্রতিটি মানুষই ম্যারাডোনা বা মেসি থেকে স্বীকৃত। আমরা খেলাধুলার মানুষ এবং আমরা সত্যিই ভাল বোধ করি কারণ সারা বিশ্বের এই বড় খেলোয়াড়দের কারণে লোকেরা আর্জেন্টিনাকে জানে।

প্রশ্নঃ মেসি বা ম্যারাডোনার সাথে কখনো দেখা হয়েছে?

পেইলাতঃ একবার ম্যারাডোনার সাথে দেখা হয়েছিল। আর্জেন্টিনার একটি খেলা দেখতে এসেছিলেন তিনি। ম্যাচের অর্ধেক সময়ে, তিনি আমাদের কাছে এসে ‘হ্যালো’ বললেন। এটা সত্যিই সুন্দর ছিল, এটা ছিল ২০১৫ সালে।

সাম্প্রতিক খবর

ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট / স্পোর্টিং উইকেটের আশা সাকিবের, নেতিবাচক ভাবনা নেই রিয়াদের
আন্তর্জাতিক ক্রিকেট / পাকিস্তানে অস্ট্রেলিয়ার ঐতিহাসিক সফরের জন্য ‘উত্তেজিত’ রিজওয়ান
টেনিস / ‘বিস্ময়কর’ রাডুকানুর অস্ট্রেলিয়ান ওপেন থেকে বিদায়
ক্লাব ফুটবল / এই তথ্যচিত্র দেখলে আমাকে নিয়ে মানুষের ‘দৃষ্টিভঙ্গি ও ভাবনা’ বদলে যাবে: নেইমার
ক্লাব ফুটবল / ‘রোনালদোর রাগ করা স্বাভাবিক’, বুঝেছেন ইউনাইটেড কোচও
আন্তর্জাতিক ক্রিকেট / আইসিসি বর্ষসেরা টেস্ট দলে ভারত-পাকিস্তানের জয়জয়কার
আন্তর্জাতিক ক্রিকেট / ভারতের হারানো সিংহাসনের দখল নিলো অস্ট্রেলিয়া
টপ ট্রেন্ডিং সাকিব আল হাসান/ তামিম ইকবাল/ মুশফিকুর রহিম/ বিরাট কোহলি/ বাবর আজম/ মেসি/ নেইমার/ রোনালদো/ ব্রাজিল/ আর্জেন্টিনা/ রিয়াল মাদ্রিদ/ বার্সেলোনা/ পিএসজি