ফুটবল > বাংলাদেশ ফুটবল

এখন উল্টো ক্লাবকেই দোষ দিচ্ছে বাফুফে

নিউজ ডেস্ক

২৫ ডিসেম্বর ২০২১, দুপুর ৩:১৫ সময়

[ bff ]
টুর্নামেন্ট শুরুর ২৪ ঘণ্টা আগে বসুন্ধরা কিংস জানায়, ফেডারেশন কাপে অংশ নিবে না তারা। এরপর তাদের পথেই হেঁটেছে মুক্তিযোদ্ধা ক্রীড়া সংসদ ও উত্তর বারিধারা। তিন ক্লাবেরই অভিযোগ ছিল কমলাপুরের স্টেডিয়াম। এই মাঠের বাজে টার্ফে খেলতে চায়না তারা। তাদের চাওয়া ছিল ঘাসের মাঠে টুর্নামেন্ট আয়োজন করা। কিন্তু বাফুফে বলছে ভিন্ন কথা। পেশাদার লিগ কমিটির চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম মুর্শেদীর মতে, টুর্নামেন্ট শুরুর আগে সব দলই কমলাপুরে খেলতে রাজি হয়। কিন্তু টুর্নামেন্ট শুরুর একদিন আগে তিন ক্লাবের না খেলার ব্যাপারে ক্লাবগুলোকেই দুষলেন তিনি। শুক্রবার বিকেলে বসুন্ধরা কিংসের সিদ্ধান্তের পর থেকেই ফেডারেশন কাপ শুরু নিয়ে দেখা যায় অনিশ্চয়তা। এরপর মুক্তিযোদ্ধা ক্রীড়া সংসদ ও উত্তর বারিধারাও নিজেদের নাম প্রত্যাহার করে নেওয়ার পর প্রথম দিন মাঠেই গড়ায়নি ফেডারেশন কাপের কোনও ম্যাচ। স্বাধীনতা ক্রীড়া সংঘ ও আবাহনী মাঠে এলেও তাদের প্রতিপক্ষ বসুন্ধরা কিংস ও উত্তর বারিধারা না এসে বিরল ঘটনার জন্ম দিয়েছে । পেশাদার লিগ কমিটির চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম মুর্শেদীর মতে, সব কিছু জেনে ও মেনে নিয়েও এখন কমলাপুর স্টেডিয়ামে খেলতে রাজি হচ্ছে না ক্লাবগুলো। তিনি আরও বলেন, “গত ৬ই ডিসেম্বর ফেডারেশন কাপের বাইলজ মেনে সব ক্লাবের প্রতিনিধি সাক্ষর করেছে। এখন সব কিছু জেনে ও মেনে নিয়েও টুর্নামেন্ট শুরুর আগে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করলে সেটা তাদের ব্যক্তিগত ব্যাপার।” এদিকে ভিন্ন কথা বলছেন উত্তর বারিধারার সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম। অভিযোগ করেন গত ১৮ ডিসেম্বর স্বাধীনতা কাপ শেষে বাফুফে ক্লাবগুলোর সঙ্গে কোনও আলোচনায় বসেনি, তাদের দাবি-দাওয়াও শোনেনি। তারা চেয়েছিল প্রিমিয়ার লিগ সামনে রেখে ঘাসের মাঠে খেলতে। জাহাঙ্গীর আরও বলেন, “আমরা ঘাসের মাঠে খেলতে চেয়েছি। আর্মি স্টেডিয়াম বা গাজীপুর স্টেডিয়ামে খেলতে চেয়েছিলাম, কেননা আমাদের প্রস্তুতিই হচ্ছে প্রিমিয়ার লিগ এবং সেটা ঘাসের মাঠে হবে। কমলাপুরে খেলে প্রত্যেকটা দলের কোনও না কোন ফুটবলারের ইনজুরি হয়েছে, কারও পা ছিলে গেছে।” “স্বাধীনতা কাপের পর বাফুফের উচিত ছিল ক্লাবগুলোর সঙ্গে বসে তাদের কথা শোনা, কিন্তু তারা শোনেনি। হঠাৎ একদিন দাওয়াত দিয়ে বলল, ফেডারেশন কাপের ড্র, আপনারা আসেন। আগে মিটিং ডাকলে ১২টা ক্লাব যেত, ভোটাভুটি করে সিদ্ধান্ত নিতে পারত বাফুফে, কিন্তু তারা সেটা করেনি।”