ক্রিকেট > বাংলাদেশের ক্রিকেট

করোনা পরিস্থিতিতে কিভাবে চলবে বিপিএল, ব্যাখ্যা দিয়েছে বিসিবি

নিউজ ডেস্ক

২১ জানুয়ারী ২০২২, দুপুর ১:২৭ সময়

[ received_1464785700684642 ]
দেশের করোনা পরিস্থিতি ক্রমেই অবনতির দিকে যাচ্ছে, সার্বিক দিক বিবেচনা করে এরই মধ্যে দুই সপ্তাহ সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। একই দিনে মাঠে গড়িয়েছে দেশের একমাত্র ফ্রাঞ্চাইজি ভিত্তিক টি-টোয়েন্টি লিগ বিপিএলের। শতাধিক ক্রিকেটার, কোচিং স্টাফ ও সংশ্লিষ্ট মিলিয়ে কয়েকশো মানুষের মিলন মেলায় পরিণত হয়েছে বিপিএল, বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার ও সাপোর্ট স্টাফদের শরীরে মিলেছে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি। তবুও নিজস্ব গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে বিপিএলের খেলা, প্রথম দিনে মাঠে গড়িয়েছে দুইটি ম্যাচও। দেশের করোনা পরিস্থিতি মাথায় আছে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলেরও, আপাতত তাদের ভাবনায় টুর্নামেন্টটা সফল ভাবে শেষ করার। বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল চেয়ারম্যান ইসমাঈল হায়দার মল্লিক বলেন, “দেখুন এখন ওমিক্রনের যে পরিস্থিতি তাতে স্বস্তি নেওয়ার কারোর কোনো অবকাশ নেই। এই যে এই মাঠে কাভার করতে আপনারাই ইলেকট্রনিক প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকরা আসছে, মাঠকর্মীরা কাজ করছেন, বিদেশি খেলোয়াড়, লোকাল খেলোয়াড় কোচিং স্টাফ, তারপরে আমাদের আম্পায়ার সবাই কিন্তু মাঠে।” বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে স্বস্তিতে থাকার সুযোগ নেই উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, “করোনার এই সংক্রমণটা বেড়ে যাওয়ার কারণে আসলে স্বস্তি নেওয়ার কোনো অবকাশ নেই, তবে আমরা সবাই চেষ্টা করছি যাতে বিপিএলটা সফলভাবে শেষ করতে পারি।” বর্তমান প্রেক্ষাপটে আলাদা ৩ ভেন্যুতে খেলা যেমন কঠিন, ঠিক তেমনি অসম্ভব ৬ দলের বিপিএল একই মাঠে সম্পন্ন করা। দুইটি বিষয়ই মাথায় রেখে আপাতত ৩ ভেন্যুতে খেলা চালিয়ে নেওয়ার পক্ষেই মল্লিক, “না, দেখুন এই টুর্নামেন্টটার জন্য কিন্তু টানা খেলা দেওয়া সম্ভব না। হয় আমাকে চার পাঁচদিনের বিরতি দিতে হবে না হয় আমাকে অন্য ভেন্যুতে স্থানান্তর করতে হবে। তিনি আরও বলেন, “আর একটা জিনিস হলো আমাদের দ্বিপক্ষীয় সিরিজগুলো কিন্তু সিলেটে হয় সুতরাং ওই উইকেটকে আমাদের লোকাল প্লেয়াররা আত্মস্থ করে সেটাকে কিন্তু আমাদের মাথায় নিতে হয়। এটা যেহেতু আমাদের টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট তাই আমরা এখন পযন্ত সিলেট ও চট্টগ্রামকে সিলেক্ট করছি। আল্লাহ রহমতে কোনো রকমের বাধাবিপত্তি না আসলে আমরা ওখানে খেলা চালাবো।” তবে, পরিস্থিতি আরও খারাপ হলে বিকল্প ভাবনাও যে নেই সেটা অস্বীকার করেননি শীর্ষ এই কর্তা, “যে কোন পরিস্থিতি হলে তো ওটা মানে বাধা ধরা কোন নিয়মের মধ্যে থাকব তা না, আমরা অবশ্যই পরিবেশ পরিস্থিতি দেখে আমাদের সিদ্ধান্ত পাল্টাবো। স্টেক হোল্ডারের সঙ্গে আলাপ আলোচনা করে যেটা ভালো হবে সেই সিদ্ধান্ত নিবো, পরিস্থিতি খারাপ হলে আমরা সিদ্ধান্ত পাল্টাতে পারি।” টুর্নামেন্ট শুরুর আগেই করোনা ধাক্কায় জর্জরিত ফরচুন বরিশাল, প্রথম ম্যাচে নুরুল হাসান সোহান ও মুনিম শাহরিয়ারকে পায়নি তারা। ডাগ আউটে নাজমুল আবেদিন ফাহিমের সার্ভিসও মিস করেছে দলটি, বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল চেষ্টা করছে এটি যেন ভয়াবহ ভাবে ছড়িয়ে না পড়ে। তবে সিরিয়াস কিছু হলে রিপ্লেসমেন্ট দিয়ে টুর্নামেন্ট শেষ করতে চায় বিসিবি বলে জানিয়েছেন ইসমাইল হায়দার মল্লিক।