ক্রিকেট > বাংলাদেশের ক্রিকেট

পুরোনো ইতিহাস নিয়ে আলোচনা করতে চান না রোডস

নিউজ ডেস্ক

১৮ জানুয়ারী ২০২২, দুপুর ১:৫৩ সময়

[ fb_img_1642413334557 ]
ছবি - ফেসবুক
ক্রিকেটারদের বিবর্ণ পারফর্মেন্সের কারণে ২০১৯ বিশ্বকাপ ব্যর্থতা বাদ দিলে বাংলাদেশের কোচ হিসেবে বেশ সফলই বলা যেতে পারে ইংলিশম্যান স্টিভ রোডসকে। তবে, নিজেদের ইতিহাসের সেরা স্কোয়াড নিয়ে ২০১৯ বিশ্বকাপে খেলতে যাওয়া বাংলাদেশের ব্যর্থতা মেনে নিতে পারেনি বিসিবি। ব্যর্থতার দায় রোডসের কাধে চাপিয়ে তাকে বরখাস্ত করে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড, বিদায়ের ২ বছর পেরিয়ে গেছে, তবে কোচিং দর্শন, ব্যক্তিত্ব কিংবা দলের প্রতি নিবেদন দিয়ে এখনো বাংলাদেশের ভক্ত-সমর্থকদের মনে জায়গা জুড়ে আছেন স্টিভ রোডস। ব্যর্থতার দায় নিয়ে বাংলাদেশ ছাড়ার পর আবারও ঢাকায় এসেছেন ইংলিশ এই কোচ, তবে সেটা ভিন্ন ভূমিকায়। বিপিএলের দল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের ব্যাটিং পরামর্শক হিসেবে দায়িত্ব নিতে বাংলাদেশে এসেছেন রোডস, গতকাল দলটির অনুশীলনেও সময় কাটিয়েছেন তিনি। আজ অনুশীলন শেষে সংবাদ মাধ্যমের সাথে কথাও বলেছেন স্টিভ রোডস, সেখানে বাংলাদেশের কোচের দায়িত্ব থেকে বরখাস্ত হওয়ার তেতো অভিজ্ঞতাটা মনেও আনতে চান না তিনি। তবে বাংলাদেশে আবারও ফিরতে পেরে খুশিই হয়েছেন রোডস, এরকম সমর্থকদের মাঝে ফিরতে পারাটা সম্মানের বলেও জানান তিনি। বাংলাদেশে আবারও ফেরা প্রসঙ্গে স্টিভ রোডস বলেন, “আবারও এখানে ফিরতে পেরে দারুণ লাগছে। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স আমাকে উষ্ণভাবে গ্রহণ করেছে, যেটা ছিল বিশেষ কিছু। যখনই আমি বাংলাদেশে আসি মানুষ-জন আমাকে আন্তরিক ভাবে গ্রহণ করে, এসব মানুষদের মধ্যে ফেরাটা সম্মানের।” বাংলাদেশে এসেছেন, স্বাভাবিকভাবেই ২০১৯ বিশ্বকাপ ও রোডসের বিদায় নিয়ে কথা হবেই। রোডসের সামনেও সেই প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হলে এড়িয়েই গেছেন তিনি, জানিয়েছেন বিসিবির বিষয়ে কোন কথাই বলতে চান না। রোডস বলেন, “আসলে আমি বিসিবিকে নিয়ে কোন আলোচনা তুলে আনতে চাই না, এটা এখন ইতিহাস।” বিশ্বকাপে বাংলাদেশের পারফর্মেন্স প্রসঙ্গে রোডস বলেন, “আপনি যদি বিশ্বকাপের দিকে দেখেন, পাকিস্তান ছাড়া সব ম্যাচেই আমরা ভাল খেলেছি। এমন কি ইংল্যান্ড ও ভারতের বিপক্ষেও একটা সময় পর্যন্ত ভাল খেলছিলাম। এটা বাংলাদেশের জন্য ধ্বংসাত্মক আসর ছিল না, ভালো মন্দ মেশানো ছিল।” তিনি আরও বলেন, “আমাদের ভাল কিছু জয় ছিল, আমরা নিউজিল্যান্ডকে চাপে ফেলেছিলাম। মানুষ যেমন মনে করে এটা এত খারাপ আসর ছিল না, যে কোন পদ বা চাকরি ছাড়া নিয়ে মানুষের অনেক কথা থাকে।”