ক্রিকেট > বাংলাদেশের ক্রিকেট

সালমা-রিতুর বিশ্বরেকর্ডে বিশাল ব্যবধানে কেনিয়াকে হারালো বাংলাদেশের মেয়েরা

নিউজ ডেস্ক

১৯ জানুয়ারী ২০২২, সকাল ৭:২ সময়

[ inshot_20220119_125047082 ]
নাহিদা আক্তার (ছবিঃ ইন্টারনেট)
কুয়ালালামপুরে কমনওয়েলথ গেমস ক্রিকেটের বাছাইপর্বে কেনিয়াকে উড়িয়ে দিয়ে টানা দ্বিতীয় জয় তুলে নিয়েছে বাংলাদেশের মেয়েরা। বুধবার সালমা খাতুন এবং রিতু মনির ইতিহাস গড়া পার্টনারশিপে ভর করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১২৫ রান সংগ্রহ করেছিল বাংলাদেশ নারী দল। জবাবে নাহিদা আক্তারের রেকর্ড গড়া বোলিংয়ে মাত্র ৪৫ রানেই গুটিয়ে গেছে কেনিয়া, ৮০ রানের বিশাল জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। যদিও কিনারা একাডেমি ওভালে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা মোটেও ভালো হয়নি বাংলাদেশের। ওপেনার মুর্শিদা খাতুন ১৯ বলে ২৬ রান করলেও বাকি পাঁচ ব্যাটার ব্যর্থ হয়েছেন দুই অঙ্কের ঘরে পৌঁছাতে। ফলে স্কোরবোর্ডে মাত্র ৫০ রান যোগ করতেই ৫ উইকেট হারিয়ে মহাবিপদে পড়েছিল টাইগ্রেসরা। তবে সেই ধ্বংসস্তূপ থেকেই দূর্দান্ত এক পার্টনারশিপ গড়ে দলকে খাদের কিনারা থেকে টেনে তুলেন সালমা খাতুন এবং রিতু মনি। সপ্তম উইকেট জুটিতে এ দুজন মিলে যোগ করেন ৭৫ রান, যা কিনা মেয়েদের টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে এই উইকেটে সর্বোচ্চ পার্টনারশিপের বিশ্বরেকর্ড। সালমা ৩২ বলে ৩৩ করে আউট হলেও শেষ পর্যন্ত অপরাজিত ছিলেন রিতু। যেখানে ৩৪ বলে ৩৯ রান আসে তার ব্যাট থেকে। আর এই দুজনের ব্যাট ভর করেই শেষ পর্যন্ত ২০ ওভার শেষে ৬ উইকেটে ১২৫ রানের লড়াকু পুঁজি পায় বাংলাদেশ। জবাবে খেলতে নেমে বাংলাদেশি বোলারদের বিরুদ্ধে বিন্দুমাত্র প্রতিরোধ গড়তে পারেনি কেনিয়ার মেয়েরা। ১২.৪ ওভারেই অলআউট হয়েছে মাত্র ৪৫ রানে। যেখানে মাত্র ১২ রান খরচায় ৫ উইকেট তুলে নিয়ে কেনিয়াকে প্রায় একাই গুড়িয়ে দিয়েছেন টাইগ্রেস স্পিনার নাহিদা আক্তার। যা কিনা মেয়েদের টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে বাংলাদেশের পক্ষে সেরা বোলিংয়ের রেকর্ড। আর এমন রেকর্ড গড়া বোলিংয়ে ম্যাচ সেরার পুরস্কারও বাগিয়ে নিয়েছেন বাঁহাতি এই স্পিনার। [caption id="attachment_63022" align="aligncenter" width="2560"] নাহিদা আক্তার (ছবিঃ ইন্টারনেট)[/caption] উল্লেখ্য, বাংলাদেশের নারী ক্রিকেটে টি-টোয়েন্টিতে সেরা বোলিংয়ের আগের রেকর্ডটি ছিল পান্না ঘোষের। যেখানে ২০১৮ সালে ইউট্রেখটে আয়ারল্যান্ড নারী দলের বিপক্ষে ১৫ রান খরচায় ৫ উইকেট শিকার করেছিলেন তিনি।