ফুটবল > বাংলাদেশ ফুটবল

মার্চে জাতীয় দলের ম্যাচের জন্য পাঁচটি দেশের সাথে যোগাযোগ করেছে বাফুফে

নিউজ ডেস্ক

৩১ জানুয়ারী ২০২২, দুপুর ১:৩৭ সময়

[ img-20211003-wa0049-2 ]
ফিফার জানুয়ারি উইন্ডোতে ইন্দোনেশিয়ার বিপক্ষে দুটি ম্যাচ খেলার কথা ছিল বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের। কিন্তু বাংলাদেশ দলের সব ফুটবলারের করোনার দুই ডোজ টিকা না নেওয়ায় বাতিল হয়ে যায় ইন্দোনেশিয়া সফর। তবে মার্চ উইন্ডোতে ম্যাচ আয়োজনে আশাবাদী বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন। ইতিমধ্যে ৫টি দেশের সঙ্গে আলোচনা করছে বলে জানিয়েছেন বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ। ব্যাটে বলে লেগে গেলে হতে পারে ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্টও। সোমবার বাফুফে ভবনে গণমাধ্যমের মুখোমুখি হন তিনি। "মার্চ উইন্ডোতে খেলা আয়োজনের ব্যাপারে আমরা ৫ টি দেশের সাথে আলোচনা করছি – মঙ্গলীয়া, লাওস, শ্রীলংকা, ইন্দোনেশিয়া ও কম্বোডিয়ার সঙ্গে যোগাযোগ করছি। এদের সাথে কাজ হচ্ছে। আশা করি, ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝির মধ্যে মার্চ উইন্ডোতে কার সাথে খেলছি তা চূড়ান্ত করা যাবে।" দ্বিপাক্ষিক সিরিজ না হয়ে হতে পারে ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্টও। ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্ট খেলার জন্য প্রস্তুত বাংলাদেশ। "দ্বিপক্ষিক আলোচনা হচ্ছে, হোম ও অ্যাওয়ে। যদি কোনো কারণে তিন দেশের সিরিজ হয়ে যায় সেটা যেখানেই হোক আমরা স্বাগতম জানাবো।" আবু নাঈম সোহাগ কথা বলেছেন নাইজেরিয়ান থেকে বাংলাদেশি নাগরিকত্ব নেওয়া এলিটা কিংসলেকে নিয়েও। বাংলাদেশি নাগরিকত্ব পেলেও এখনো লাল-সবুজের জার্সি পড়ে খেলার অনুমতি পায়নি তিনি। তবে ফিফার সঙ্গে এখনো যোগাযোগ করা হচ্ছে বলে জানান তিনি। মূলত এলিটা কিংসলের বাবা অথবা মা কেউই বাংলাদেশি না হওয়ায় এত জটিলতার তৈরি হয়েছে। এ বিষয়ে আবু নাঈম সোহাগ আরও বলেন, "এলিটার ব্যাপারে আমরা বিভিন্ন কমিউনিকেশন ফিফার সাথে করেছি, এর আগে আমরা যেসব খেলোয়াড় যেমন জামাল, তারিকের নেচারালাইজেশন ব্যাপারে কাজ করছি। তাদের ক্ষেত্রে সহজ ছিল তাদের বাবা অথবা মা বাংলাদেশের নাগরিক ছিল। বাট এলিটার ব্যাপার বিষয়টা সহজ না, তার কেউই বাংলাদেশের না।" "এলিটা নাইজেরিয়ান নাগরিকত্ব ছেড়ে বাংলাদেশের নাগরিক হয়েছে। অনেক দেশে এসব ব্যাপারে অনেক কাজ হয়েছে। ফিফা এসব ব্যাপারে অনেক কিছু দেখে বুঝে সিদ্ধান্ত নিতে চায়। তারা দেখে শুধু জাতীয় দলে খেলার জন্য নাগরিকত্ব পাল্টেছে কিনা। এলিটার ব্যাপারে যে বিষয়গুলো -- শেষ ৫ মৌসুমে সে বাংলাদেশে ছিল এটা কনফার্ম করা, বিভিন্ন সময়ে যে সে বাইরে গিয়েছে সেটা কি কারণে, তার বাইরে যাওয়ার উদ্দেশ্য কি বা বাইরে গিয়ে সে কোনো প্রকার ফুটবলীয় কর্মকান্ডে অংশ নিয়েছে কিনা এসব ব্যাপারে বাফুফে থেকে আন্ডার টেকিং দিয়েছি। এখনও পর্যন্ত ফিফা থেকে কোন ফিডব্যাক পাইনি। ন্যাশানাল টিমের পরবর্তী সভায় পুরো বিষয়ে আলোচনা হবে।"