ফিচার

পাকিস্তান: সুখী পরিবারের বড় বিজ্ঞাপন

নিউজ ডেস্ক

২৬ জানুয়ারী ২০২২, সকাল ৬:২১ সময়

[ screenshot_20220125-020624_gallery ]
ছবিঃ টুইটার
গত বছর পাকিস্তানে পুরো দমে কেবলই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফিরতে যাচ্ছিলো, সফরে যেতে শুরু করেছিল বড় বড় দেশগুলো। সবকিছুই যখন ঠিকঠাক চলছিল ঠিক তখনই হঠাৎ বিনা মেঘে বজ্রপাত! নিরাপত্তা শঙ্কায় ম্যাচ না খেলে শেষ মুহূর্তে নিউজিল্যান্ডের পাকিস্তান ছাড়ার সিদ্ধান্ত নেয়। মুহুর্তে বদলে যায় সব প্রেক্ষাপট। বিশ্বকাপের ঠিক আগে নিউজিল্যান্ডের এমন স্বীদ্ধান্তে পাকিস্তানের ক্রিকেটে ফের  কালো মেঘ নেমে আসে। অক্টোবরে কিউই সফর বাতিল হয়ে গেলে ইংল্যান্ডও জানিয়ে দেয়,  আপতত পাকিস্তানে সফর করবে না তারাও। [caption id="attachment_63840" align="aligncenter" width="1080"] ছবিঃ টুইটার[/caption] এমন সর্বনাশে কিউইদের নতুন শত্রুর তকমা দিয়েছিলেন পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) নতুন চেয়ারম্যান রমিজ রাজা। কেন উইলিয়ামসনদের এমন আচরণে তখন পাকিস্তানের ক্রিকেটাররাও ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছিলেন। পিসিবি চেয়ারম্যান প্রকাশ্যই বলেছিলেন, বাবর আজমরা বিশ্বকাপেই অপমানের প্রতিশোধ নিবে। বিশ্বসেরার এই আসরে নিউজিল্যান্ডকে হারাতে পারলে পাক এক ব্যবসায়ী ক্রিকেটারদের ব্ল্যাংক চেক উপহার দেওয়ার ঘোষণাও আসে! অক্টোবর-নভেম্বরে আবুধাবিতে অনুষ্ঠিত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে রমিজ রাজার কথা রাখে বাবর-শাদাব খানরা। আসরে গ্রুপপর্বে প্রতিশোধের জ্বালায় জ্বলসে উঠে পাকিস্তানি ক্রিকেটাররা। শুরুতেই বিশ্বকাপের ইতিহাসে প্রথমবার চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের হারিয়ে আসর শুরু করে দলটি। তার পর কিউইদেরও হারিয়ে বড় মধুর প্রতিশোধ নেয় বাবর আজমের দল। আসরে গ্রুপপর্বে একমাত্র দল হিসেবে সবকটি ম্যাচ জিতে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করে দলটি, যদিও শেষ চারে রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরে বিদায় নেয়। গ্রুপপর্বে আধিপত্য দেখিয়ে অজিদের বিপক্ষে টপ ফেভারিট হয়ে ম্যাচ জিততে না পারলেও গোটা আসরে পাক ক্রিকেটারদের লড়াই মন কাড়ে ক্রিকেট বিশ্বেরও। বিশ্বকাপে ভালো খেলার স্বীকৃতি খুব দ্রুতই পেয়ে যায় পাকিস্তান। তার প্রথম খবরটি আসে গত ডিসেম্বরেই। যে নিউজিল্যান্ড নিরাপত্তার অজুহাতে ম্যাচ শুরু আগে পাকিস্তান ছেড়েছিল, তারাই এবার মাত্র চার মাসেই দুবার পাকিস্তান সফর করার ঘোষণা দেয়। [caption id="attachment_63841" align="aligncenter" width="715"] ছবিঃ ইন্টারনেট[/caption] ২০২২ সালের ডিসেম্বরে প্রথম সফরে খেলবে ২ টেস্ট ও ৩ ওয়ানডে। চার মাস পর আবার পাকিস্তানে যাবে নিউজিল্যান্ড। সেবার সফরে তারা পাকিস্তানের বিপক্ষে ৫টি ওয়ানডের পাশাপাশি খেলবে ৫টি টি-টোয়েন্টি! বিশ্বকাপের মাঠে চোখধাঁধাঁনো পারফরম্যান্সে  আরও পাকিস্তান আরও সুখবর পেয়েছে। শুধু, নিউজিল্যান্ড নয়; এবার দেশটিতে ধীরেধীরে সফরে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে ক্রিকেটের তিন মোড়লের দুই দেশ অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ড। মাঠে খেলায় বাবর আজমদের পারফরম্যান্স ও রমিজ রাজা অধীন নতুন বোর্ডের কূটনৈতিক পরীক্ষায় দারুণ সাফল্যে সবমিলিয়ে ২০২২ সালের মার্চ থেকে ২০২৩ সালের এপ্রিলের মধ্যে নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া এবং ইংল্যান্ডের মতো ক্রিকেটের তিন পরাশক্তির বিপক্ষে নিজেদের মাটিতে ৮টি টেস্ট, ১১টি ওয়ানডে ও ১৩ টি-টোয়েন্টি খেলা নিশ্চিত করে ফেলেছে পাকিস্তান! এখন পাকিস্তান ক্রিকেটের বৃহস্পতি তুঙ্গে- তার প্রমাণ মিলেছে আইসিসির ২০২১ সালের পুরস্কারেও। গেল বছরের আইসিসির বর্ষসেরা পুরস্কারে পাকিস্তানিদের জয়জয়কার। পুরুষদের ক্রিকেটের বর্ষসেরা পুরস্কারের ৩ বিভাগের দুটোই গেছে পাকদের দখলে। ২০২১ সালে আইসিসির বর্ষসেরা ওয়ানডে ক্রিকেটার হয়েছেন দেশটির অধিনায়ক বাবর আজম। স্বপ্নের মতো একটি বছর কাটিয়ে টি-টোয়েন্টির বর্ষসেরার ক্রিকেটারের পুরস্কার জিতেছেন পাক উইকেটরক্ষক ব্যাটার মোহাম্মদ রিজওয়ান। ওয়ানডে বা টি-টোয়েন্টির বর্ষসেরা ক্রিকেটার পুরস্কার ছাড়া ২০২১ সালের আইসিসির বর্ষসেরা ক্রিকেটারের পুরস্কারটিও গেছে পাকিস্তানের ঘরে। গোটা বছরজুড়ে প্রতিপক্ষের ব্যাটারদের মধ্যে বোলিংয়ে ত্রাস ছড়িয়ে ইতিহাসে প্রথম কোন পাকিস্তানি হিসেবে স্যার গ্যারফিল্ড সোবার্স পুরস্কার জিতে নিয়েছেন শাহীন শাহ আফ্রিদি। এবার শূন্যে হাতে ফিরেনি পাকিস্তানের মেয়েদের ক্রিকেটও। মেয়েদের সেরা উদীয়মান খেলোয়াড়ের পুরস্কার জিতে নিয়েছেন ফাতিমা সানা। মেয়েদের আইসিসির বর্ষসেরা দলেও জায়গা করেন এই অলরাউন্ডার। [caption id="attachment_63842" align="aligncenter" width="1080"] ছবিঃ ইন্টারনেট[/caption] শুধু আন্তর্জাতিক ক্রিকেট নয়। করোনা ভাইরাসের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে আবুধাবি ছেড়ে পাকিস্তানে ফিরেছে সুপার লীগও। নিজেদের মাঠে ঘরোয়া লিগ স্মরণীয় করে রাখতে চোখধাঁধাঁনো আয়োজন শুরু করে দিয়েছে। গত সেপ্টেম্বরে পিসিবির দায়িত্ব নেওয়ার এক মাস পর পাকিস্তান ক্রিকেটের উল্টোপথে যাত্রা দেখেছিলেন রমিজ রাজা। দায়িত্ব নেওয়ার পরই খেয়েছিলেন বড় ধাক্কা। নভেম্বরে বিশ্বকাপে নজরকাঁড়া পারফরম্যান্সে সেই ধাক্কা অনেকটাই কাটিয়ে উঠেছে রমিজ রাজার বোর্ড। বাবর আজমের দৃঢ় নেতৃত্বে একাট্টা পাকিস্তানি ক্রিকেটাররাও সবকিছু জয় করতে মুখিয়ে আছে। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারত মাঠে এবং মাঠের বাহিরে যেখানে বিপর্যস্ত, সেখানে পাকিস্তান এখন সুখী পরিবারের বড় বিজ্ঞাপন!