ফিচার

জন্মদিন বিশেষ | ক্রিশ্চিয়ানোর সাঁইত্রিশ রেকর্ড ও গল্পকথা

নিউজ ডেস্ক

৫ ফেব্রুয়ারি ২০২২, সকাল ৪:৩৮ সময়

[ 20220205_101120 ]
ছবিঃ টুইটার
বিশ্বের সবচেয়ে প্রভাবশালী দেশ ইউনাইটেড স্টেট অব আমেরিকার ৪০তম প্রেসিডেন্ট রোনাল্ড রিগ্যান। একসময় হলিউডের দাপুটে অভিনেতা ছিলেন। রিগ্যান যখন ক্ষমতায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে কয়েক হাজার মাইল দূরে পর্তুগালের মাদেইরায় জন্মগ্রহণ করেন এক ফুটফুটে ছেলে। মা-বাবা রিগ্যানের নামানুসারে আদর করে যার নাম রেখেছিলেন রোনালদো। বাবা জোসে দিনিস আভেইরা ছিলেন সামান্য মালি আর মা মারিয়া দস সান্তোস ছিলেন সামান্য রাঁধুনী। অভাব অনটনের সংসারে বাড়তি খরচের কথা চিন্তা করে তারা সিদ্ধান্ত নিয়েই ফেলেছিলেন, রোনালদোকে তারা জন্ম দিবেন না। কিন্তু ভাগ্যক্রমে রোনালদো পৃথিবীর আলোয় আলোকিত হয়েছেন এবং আলোকিত করে চলেছেন গোটা ফুটবল দুনিয়া! [caption id="attachment_64988" align="aligncenter" width="1024"] ছবিঃ টুইটার[/caption] দারিদ্রতার কারণে যার জন্মই হওয়ার কথা ছিল না; সেই রোনালদোই এখন ফোর্বস ম্যাগাজিনে বিশ্বের সবচেয়ে ধনী অ্যাথলেটদের একজন। বলা হয়ে থাকে, একুশ শতকে তার চেয়ে বেশি টাকা-পয়সা কামাইতে পারেনি আর কোন ফুটবলার। দুনিয়ার সেরা দানশীল ব্যক্তিদেরও একজন তিনি। প্রায় চারশো মিলিয়নেরও বেশি মানুষ অনলাইনে অনুসরণ করেন তাকে, যা দুনিয়ার অন্য যেকোন অ্যাথলেটের চেয়ে বেশি। নিজের পরিশ্রম আর চেষ্টা দিয়ে নিজেকে নিয়ে গেছেন শূন্য থেকে সর্বোচ্চ শৃঙ্গে। আজ আরেকটি শীতে ৩৭তম বছরে পদার্পণ করল ছোট্ট ছেলেটি। ফুটবলের সর্বকালের অন্যতম সেরা ফুটবলারের ৩৭ম জন্মদিনে আজ ডেইলিস্পোর্টসবিডি আলোচনা করবে রোনালদোর ৩৫টি অনন্য রেকর্ড নিয়ে। ১. ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো ক্যারিয়ারে অফিশিয়াল গোল করেছেন ৮০৩টি। ফুটবল ইতিহাসে পর্তুগিজ মহারাজার চেয়ে বেশি অফিশিয়াল গোল করতে পারেনি আর কোন ফুটবলার। পেশাদার ফুটবলে ৮০৩ গোল করতে পর্তুগিজ মহাতারকার খেলতে হয়েছে ১১০৩ ম্যাচ। ২. আন্তর্জাতিক ফুটবলে সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা রোনালদো। পর্তুগালে জার্সি গায়ে ১৮৪ ম্যাচে ৩৭ বছর বয়সী এই তারকা গোল করেছেন ১১৫টি। ৩.পর্তুগালের ইতিহাসে সর্বাধিক ১৮৪টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার রেকর্ড রোনালদোর দখলে। সাবেক ইউরোপ চ্যাম্পিয়নদের হয়ে এক বছরে সর্বাধিক ১৪ গোল করার রেকর্ডও রোনালদোর দখলে। পর্তুগালের হয়ে সর্বাধিক ৪০ অ্যাসিস্ট করার রেকর্ড রোনালদোর দখলে। ৪. পর্তুগালের ইতিহাসের সর্বকালের সর্বোচ্চ ১০টি হ্যাট্রিক করেছেন রোনালদো। বর্তমানে সক্রিয় ফুটবলারদের মধ্যে আন্তর্জাতিক ফুটবলে সর্বোচ্চ হ্যাট্রিকও রোনালদোর। আন্তর্জাতিক ফুটবলে সর্বাধিক ৪৫টি প্রতিপক্ষের বিপক্ষে গোল করার রেকর্ড রয়েছে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর। ৫. উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের ইতিহাসে সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা রোনালদো। মহাদেশীয় শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ে রোনালদো গোল করেন ১৪০টি। প্রথম ফুটবলার হিসেবে চ্যাম্পিয়নস লীগে শততম ম্যাচ জয়ের রেকর্ডটিও রোনালদোরই। তাছাড়া উয়েফা ইউরোর ইতিহাসে সর্বাধিক ৯ গোল করেন রোনালদো। পর্তুগালের হয়ে ইউরো বাছাইপর্ব গোল করেছেন ৩১টি। ইউরো বাছাইপর্বের ইতিহাসে আর কোন ফুটবলার রোনালদোর চেয়ে বেশি গোল করতে পারেনি। [caption id="attachment_64989" align="aligncenter" width="640"] ছবিঃ টুইটার[/caption] ৬. একক মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লীগের ইতিহাসে সর্বোচ্চ ১৭ গোলের গিনেজ ওয়ার্ল্ড রেকর্ড রোনালদোর দখলে। ৭. চ্যাম্পিয়নস লীগের ইতিহাসে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ ৪২টি গোলে সহায়তা করেছেন রোনালদো। ৮. উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের ইতিহাসে সর্বোচ্চ ৩ বার সেরা ফুটবলার হয়েছেন রোনালদো। ৯. ইতিহাসের প্রথম ফুটবলার হিসেবে চ্যাম্পিয়নস লীগে টানা ছয়বার শীর্ষ গোলদাতা হওয়ার রেকর্ডটি রোনালদোর দখলে। ১০. চ্যাম্পিয়নস লীগের ইতিহাসে ফাইনালে সর্বোচ্চ গোলদাতা রোনালদো। বর্তমানে সক্রিয় ফুটবলারদের মধ্যে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের ইতিহাসে সর্বোচ্চ শিরোপাজয়ী ফুটবলারও রোনালদো। ১১. একক মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লীগের ইতিহাসে গ্রুপ পর্বে সর্বোচ্চ ১১ গোল করেছেন রোনালদো। ১২. প্রথম ফুটবলার হিসেবে চ্যাম্পিয়নস লীগের গ্রুপ পর্বে সবকটি ম্যাচে গোল করার রেকর্ডটিও রোনালদোর দখলে। ১৩. লীগের ইতিহাসে নক আউট স্টেজে সবচেয়ে বেশি ৬০ গোল করার রেকর্ড রোনালদোর দখলে। ক্লাবের হয়ে ইউরোপ শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে সর্বোচ্চ ২২ গোল করেছেন রোনালদো। চ্যাম্পিয়নস লীগে ইতিহাসে সেমিফাইনালে সর্বোচ্চ ১৪ গোল করার রেকর্ডটি রোনালদোর দখলে। ১৪. ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো জুভেন্টাসের বিপক্ষে চ্যাম্পিয়নস লীগে গোল করেছেন ১০টি। ইউরোপের সবচেয়ে মর্যাদাবান প্রতিযোগিতায় কোন একক ক্লাবের বিপক্ষে এটাই সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড। ২০১৯- ২১ সাল পর্যন্ত আবার তুরিনের বুড়িদের হয়েও মাতিয়েছেন পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার। ১৫. উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগে টানা ১১টি ম্যাচে গোল করার রেকর্ডটি রোনালদোর দখলে। [caption id="attachment_64990" align="aligncenter" width="450"] ছবিঃ টুইটার[/caption] ১৬. চ্যাম্পিয়নস লীগের ইতিহাসে ঘরের মাঠে সর্বোচ্চ ৭৫ গোল করেছেন রোনালদো। ইউরোপ সেরার মঞ্চে প্রতিপক্ষের মাঠে সর্বোচ্চ ৬০ গোল করার রেকর্ডটিও রোনালদোর দখলে। ১৭. ৩০ বা তার বেশি বয়সে চ্যাম্পিয়নস লীগের ইতিহাসে সর্বোচ্চ ৬টি হ্যাট্রিক করেছেন রোনালদো। ১৮. উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের ইতিহাসে সর্বোচ্চ ১২টি ফ্রিকিক গোল করেছেন রোনালদো। এই মঞ্চে সর্বোচ্চ ১৯টি পেনাল্টি গোল করার রেকর্ডটিও রোনালদোর দখলে। ১৯. একক মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লীগের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি ৩টি হ্যাট্রিক করেন রোনালদো। ২০. উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের ইতিহাসে তিনটি ফাইনালে গোল করার রেকর্ডটি রোনালদোর দখলে। [caption id="attachment_64991" align="aligncenter" width="1180"] ছবিঃ টুইটার[/caption] ২১. ক্লাবের হয়ে ইউরোপ সেরার মঞ্চে সর্বোচ্চ তিন মৌসুম ১৫ বা তার বেশি গোল করেছেন রোনালদো। ২২. ইউরোপীয়ান প্রতিযোগিতায় সর্বোচ্চ ২২৪ গোল করার রেকর্ড রোনালদোর দখলে। ২৩. চ্যাম্পিয়নস লীগের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি টানা সাতবার ১০ কিংবা তার বেশি গোল করেছেন পর্তুগিজ মহারাজা। ২৪. চ্যাম্পিয়নস লীগের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি ১৫ বার মৌসুম সেরা একাদশে জায়গা পেয়েছেন রোনালদো। এই প্রতিযোগিতায় টানা সর্বোচ্চ ১৪ বার সেরা একাদশে জায়গা পাওয়া ফুটবলার রোনালদো। ২৫. স্প্যানিশ জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদের সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা রোনালদো। স্পেনের শীর্ষস্থানীয় ক্লাবটির হয়ে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো গোল করেছেন সর্বোচ্চ ৪৫০টি। রিয়াল মাদ্রিদের ইতিহাসে সর্বোচ্চ হ্যাট্রিকের রেকর্ডও রোনালদোর দখলে। ২৬. স্প্যানিশ লা লীগায় রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে সর্বোচ্চ ৩১১ গোল করেন রোনালদো। রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে স্পেনের ঘরোয়া লীগে সর্বাধিক ৩৪টি হ্যাট্রিকের মালিক রোনালদো। ২৭. স্প্যানিশ লা লীগার ইতিহাসে দ্রুততম দেড়শো, দুইশো, তিনশো গোলের রেকর্ড রোনালদোর দখলে। ২৮. স্প্যানিশ লা লীগার ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি ৬১টি পেনাল্টি গোল রোনালদোর দখলে। স্পেনের শীর্ষ ঘরোয়া লীগে সর্বাধিক টানা ৬ মৌসুম ৩০ কিংবা তার বেশি গোল করার রেকর্ডটিও রোনালদোর দখলে। [caption id="attachment_64992" align="aligncenter" width="768"] ছবিঃ টুইটার[/caption] ২৯. লা লীগার দ্রুততম ১৫ গোল করেন রোনালদো। ২০১৪-১৫ মৌসুমে মাত্র ৮ ম্যাচে রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে এই রেকর্ড গড়েন রোনালদো। স্প্যানিশ লীগে ১২ ম্যাচে দ্রুততম ২০ গোলের রেকর্ডটিও রোনালদোর দখলে। ৩০. ক্লাব ফুটবলের অন্যতম সেরা দ্বৈরথ এল ক্লাসিকোয় টানা ৬ ম্যাচে গোল করার রেকর্ডটি রোনালদোর। রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে এল ক্লাসিকোর ইতিহাসে সর্বোচ্চ ১৭ গোল করেন রোনালদো। স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সেলোনার মাঠ ন্যু ক্যাম্পে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ডও রোনালদোর। স্প্যানিশ লা লীগার ঐতিহ্যবাহী মাদ্রিদ ডার্বিতেও সর্বোচ্চ ২২ গোল করেন রোনালদো। ৩১. লা লীগার ইতিহাসে এক মৌসুমে সর্বোচ্চ ৮টি হ্যাট্রিক করেছেন রোনালদো। এই প্রতিযোগিতায় এক মৌসুমে সর্বাধিক ১৯ দলের বিপক্ষে গোল করার রেকর্ডটিও রোনালদোর দখলে। ৩২. ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগে প্রথম পর্তুগিজ ফুটবলার হিসেবে হ্যাট্রিক করেন রোনালদো। ইউরোপের টপ ফাইভ লীগে ৪০০ গোল করা প্রথম পর্তুগিজ ফুটবলার রোনালদো। ইতালিয়ান সিরি ‘আ ইতিহাসেও সর্বাধিক ৬২ গোল করেছেন রোনালদো। ৩৩. ইতালিয়ান সিরি ‘আর ইতিহাসে অভিষেক মৌসুমে সর্বাধিক টানা ৭টি অ্যাওয়ে ম্যাচে গোল করেছেন রোনালদো। ৩৪.জুভেন্টাসের হয়ে এক মৌসুমে সবমিলিয়ে সর্বাধিক ৩৭ গোল করার রেকর্ড রোনালদোর দখলে। ৩৫. ইতালিয়ান সিরি'আ তে এক পঞ্চিকাবর্ষে সর্বাধিক ৩৩ গোল করার রেকর্ডটি রোনালদোর দখলে। গেল ডিসেম্বরে পর্তুগিজ মহাতারকার রেকর্ডে ভাগ বসান সদ্য জুভেন্টাসে যোগ দেওয়া সার্বিয়ান স্ট্রাইকার দুসান ভ্লাহোভিচ। [caption id="attachment_64993" align="aligncenter" width="1200"] ছবিঃ টুইটার[/caption] ৩৬. একবিংশ শতাব্দীর প্রথম পাঁচশো, সাড়ে পাঁচশো, ছয়শো, সাড়ে ছয়শো, সাতশো, সাড়ে সাতশো এবং আটশো গোল করা ফুটবলার রোনালদো। ৩৭. ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপে সর্বাধিক ৭ গোলের রেকর্ড গড়েন রোনালদো। ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপের ইতিহাসে টানা দুটো ফাইনালে গোল করার অন্যন্য রেকর্ডটিও তার দখলে। এই ৩৭টি রেকর্ড ছাড়াও ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর ক্যারিয়ারে আরও অসংখ্য রেকর্ড রয়েছে। তবুও তার সবচেয়ে বড় গুণটা বোধহয়- নেভার গিভ আপ বা হার না মানা মানসিকতা। শ্রেষ্ঠত্বের মঞ্চে কতবার বিতাড়িত কিংবা উপেক্ষিত হয়েছে; কিন্তু কখনও দমে যাননি। বরং, আগে থেকে আরও ভয়ংকরভাবে নিজেকে শানিয়ে ফিরেছেন বারবার। যার আঘাতে প্রতিনিয়ত লণ্ডভণ্ড হচ্ছে সমালোচনা কিংবা সংশয়ের সব জবাব। একজন রোনালদো ক্রীড়া দুনিয়ায় শতশত অ্যাথলেটের অনুপ্রেরণা। কী পরিমাণ ইচ্ছাশক্তি থাকলে মাদেইরার ছাদ ফুটো হয়ে থাকা বাসার সেই কিশোর থেকে এরকম মহীরূহ হওয়া যায়? কতটা অধ্যবসায় থাকলে অল্পবয়সে বাবাকে হারিয়ে ফেলার ধাক্কা সামলে এতোটা বড় হওয়া যায়? কতটা উদ্যম থাকলে একজন অখ্যাত পর্তুগিজ থেকে ছয় বছরের মধ্যে বিশ্বের সবচেয়ে দামি খেলোয়াড় হওয়া যায়? যেটা ক্রিশ্চিয়ানো করে দেখিয়েছেন। তাই কঠোর পরিশ্রম, অধ্যবসায় আর ডেডিকেশনের সফল মানুষের বড় উদাহরণ পর্তুগিজ মহাতারকাই। [caption id="attachment_64994" align="aligncenter" width="1023"] ছবিঃ টুইটার[/caption] বয়সের মাপকাঠিতে রোনালদো  আজ ৩৭টি বসন্ত পাড়ি দিয়েছেন বটে, তবে  দুঃখ-দুর্দশা, জীর্ণ-শীর্ণ, ক্লান্ত-পরিশ্রান্ত, হতাশা-বিষাদ সবকিছুকে পাশ কাটিয়ে জীবন যুদ্ধে হার না মানা অকুতোভয় এক ‘চ্যাম্পিয়ন’ তিনি। বয়সের ভারে পারফরমেন্সে কিছুটা ভাটা পড়লেও সাফল্যের এই পুরো উপন্যাসে ব্যর্থতা হয়তো সামান্যই।

শুভ জন্মদিন, রোনালদো।

লেখা: এ.এইচ বাদশা