ক্রিকেট > ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট

প্রত্যাবর্তনের গল্প লিখে পিএসএলের ফাইনালে আফ্রিদিরা

ব্যাট হাতে ৮ বলে ২৮ রানের ঝড়ের পর বল হাতে দুর্দান্ত পারফর্মেন্স দেখিয়ে ম্যাচ সেরা ডেভিড ভিসা।

ডেস্ক রিপোর্ট

২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২২, সকাল ৯:২৫ সময়

[ 20220226_092323.jpg ]
সংগৃহীত

পাকিস্তান সুপার লিগের দ্বিতীয় এলিমিনেটর ম্যাচে ইসলামাবাদ ইউনাইটেডের বিপক্ষে ৬ রানের শ্বাসরুদ্ধকর জয়ে ফাইনালে উঠেছে লাহোর ক্যালেন্দার্স, ব্যাটিং এ দুর্দান্তভাবে ঘুরে দাঁড়ানোর পর ডেথ বোলিংয়েও অবিশ্বাস্য দক্ষতা দেখিয়েছে জামান খান, হ্যারিস রউফ ও ডেভিড ভিসারা।

জয়ের জন্য শেষ ৩ ওভারে ইসলামাবাদের সমীকরণ ছিল ২২ রানের, হাতে ৪ উইকেট। ক্রিজে আসিফ আলী ও হাসান আলী, টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে এই সমীকরণকে সহজই বলা যায়। তবে সেটাকেই কঠিন বানিয়ে ফেলেন জামান, হ্যারিস রউফ ও ভিসা, শেষ ওভারে ৮ রানের সমীকরণ মেলাতে দেয়নি ইসলাবাদকে।

শুরুটা করেন জামান খান, ১৮তম ওভারে মাত্র ৫ রান দিয়ে তুলে নেন হাসান আলীর উইকেট। দ্বিতীয় ওভারে ৯ রান দিলেও ইসলামাবাদের শেষ ভরসা আসিফ আলীকে ফেরান হ্যারিস রউফ, শেষ ওভারে ৮ রানের সমীকরণে মাত্র ১ রান দিয়ে চতুর্থ বলেই ম্যাচ শেষ করে দেন ডেভিড ভিসা। 

টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা একেবারে ভালো হয়নি লাহোরের, তৃতীয় ওভারে দুই ওপেনার ফখর জামান ও ফিল সল্টের উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে দলটি। চতুর্থ ওভারে লাহোরের স্কোর ছিল ২ উইকেটে ১৪ রান, সেখান থেকে ৪২ বলে ৭৩ রানের জুটি গড়ে বিপদমুক্ত করেন আব্দুল্লাহ শফিক ও কামরান গুলাম।

২৬ বলে ৩০ রান করে গুলাম আউট হলেও ফিফটি তুলে নেন শফিক, চতুর্থ ব্যাটার হিসেবে ফেরার আগে ২৮ বলে খেলেন ৫২ রানের দুর্দান্ত ইনিংস। হ্যারি ব্রুকস ২ রান করে রান আউটে কাটা পড়লে ১০২ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে আবারও চাপে পড়ে লাহোর, মোহাম্মদ হাফিজ ২৮ বলে ২৮ ও সামিত প্যাটেল ১৮ বলে ২১ রানে আউট হন।

লাহোরকে লড়াইয়ের পুঁজি এনে দেওয়ার কৃতিত্বটা ডেভিড ভিসার, মাত্র ৮ বলে ১ চার ও ৩ ছক্কায় ২৮ রানের বিধ্বংসী ইনিংসে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৬৮ রানের সংগ্রহ পায়। ২টি করে উইকেট নেন ইসলামাবাদের লিয়াম ডসন ও মহম্মদ ওয়াসিম, এছাড়াও শাদব খান ও ওয়াকাস মাকসুদ দখল নেন ১টি করে উইকেট।

জবাব দিতে নেমে ৪৬ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে ইসলামাবাদ ইউনাইটেডও, তবে ৫ম উইকেটে আলেক্স হেলস ও আজম খানের ৭৯ রানের জুটিতে ম্যাচে ফিরে তারা। যদিও ২৯ বলে ৩৮ রান করা হেলস ও ২৮ বলে আজম খান ৪০ রান করে আউট হলে শেষটা মেলাতে পারেননি আফিস আলী, হাসান আলী, ওয়াসিম জুনিয়ররা।