ফুটবল > ক্লাব ফুটবল

বেনজেমার গোলে ভাইয়েকানোর মাঠে স্বস্তির জয় রিয়ালের

প্রথমার্ধ গোল শূন্য থাকার পর দ্বিতীয়ার্ধে ভিনিসিউসের পাস থেকে লস ব্ল্যাংকোসদের হয়ে পার্থক্য গড়ে দেন করিম বেনজেমা।

ডেস্ক রিপোর্ট

২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২২, দুপুর ১০:৪৪ সময়

[ FMjnWF1WQAEHH3H.jpg ]
সংগৃহীত

প্রথমার্ধের ভাইয়েকানোর রক্ষণে আক্রমণের পসরা সাজিয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ-ই। কিন্তু, গোলের দেখা পায়নি দলটি। ফেব্রুয়ারিতে স্প্যানিশ সুপার কাপে অ্যাথলেটিকো বিলবাওয়ে হারে হারের পর এ নিয়ে সর্বশেষ আট ম্যাচই বিরতির আগের গোলের দেখা পেল না কার্লো আনচেলত্তির দল। পয়েন্ট হারানোর শঙ্কা জাগে লস ব্ল্যাংকোসদের শিবিরে। এমন সময় শেষ মুহুর্তে ভিনিসিউস-বেনজেমা ঝলকে জয় নিয়ে বাড়ি ফিরেছে ইউরোপের সফলতম দলটি।

গতকাল (শনিবার) স্প্যানিশ লা লিগায় ম্যাচটি ১-০ গোলে জিতেছে রিয়াল মাদ্রিদ। প্রথমার্ধ গোল শূন্য থাকার পর দ্বিতীয়ার্ধে ভিনিসিউসের পাস থেকে লস ব্ল্যাংকোসদের হয়ে পার্থক্য গড়ে দেন করিম বেনজেমা। রায়ে ভাইয়েকানোর বিপক্ষে এই নিয়ে সর্বশেষ ২২ ম্যাচের ২১টিই অপরাজিত থাকলো রিয়াল মাদ্রিদ।

প্রতিপক্ষের মাঠে বল দখলের লড়াইয়ে এগিয়ে ছিল রিয়াল মাদ্রিদ। গোটা ম্যাচে ৬৬ শতাংশ বল নিজেদের পায়ে রাখে দলটি। যদিও গোলমুখে শট নেওয়ার ক্ষেত্রেও কার্লো আনচেলত্তির দলকে বেশ টেক্কা দিয়েছে ভাইয়েকানোও। পুরো ম্যাচে রিয়াল মাদ্রিদ যেখানে ১৩ শটের ৬টি লক্ষ্যে রাখতে পেরেছে, স্বাগতিকরা সেখানে ১৯ শটের ৫টি লক্ষ্যে রাখে।

ভাইয়েকানোর মাঠে ম্যাচের প্রথম মিনিট থেকেই চড়াও হয় রিয়াল মাদ্রিদ। মার্কো আসেনসিও এসময় বেশ কয়েকবারই ভয়ঙ্করভাবে ঢুকে পড়েছিলেন প্রতিপক্ষের রক্ষণভাগে। গোলও প্রায় পেয়ে যাচ্ছিলেন এ স্প্যানিশ তারকা। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে গোলবঞ্চিত হন তিনি। ম্যাচের ৫৮ সেকেন্ডে এগিয়ে যেতে পারত রিয়াল। কিন্তু দুরূহ কোন থেকে গোলরক্ষকের গায়ে মেরে সুযোগ নষ্ট করেন তিনি।

৫ মিনিটের মাথায় ফের সুযোগ নষ্ট করেন তিনি। এবার পেনাল্টি বক্সের মাথায় পাওয়া পাস সোজাসুজি ঠিক গোলরক্ষকের হাতে তুলে দেন তিনি। এর কিছুক্ষণ পরেই ভিনিসিয়াসের দূরপাল্লার শট অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। ধীরেধীরে নিজেদের গুছিয়ে নেওয়া ভাইয়েকানোও সুযোগ বুঝে আক্রমণ শানায়। কিন্তু, রিয়াল গোলরক্ষক থিবো কর্তোয়ার নৈপুণ্যে গোলের দেখা পায়নি দলটি।

ম্যাচের ঠিক ৩৯তম একবার গোলের দেখা পেয়েছিল রিয়াল। ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার ক্যাসেমিরো রায়ো ভায়োকানোর জালে বল পাঠান। গোলের উল্লাসে মাতে রিয়াল মাদ্রিদের খেলোয়াড়রা। কিন্তু, আগেই ফাউল করায় প্রতিপক্ষের অভিযোগ আমলে নিয়ে ভিএআরে চেক করে গোল বাতিল করেন রেফারি। প্রথমার্ধে খেলা গোলশূন্য সমতায় শেষ হয়।

বিরত্তির পরও বেশকিছু সুযোগ সৃষ্টি করেও গোলের দেখা পাচ্ছিল না কোন দলই। খেলা এগিয়ে যাচ্ছিল গোলশূন্য ড্রয়ের দিকে। কিন্তু বাঁধ সাধলেন বেনজেমা। এই গোলে কৃতিত্ব বেশি ব্রাজিলিয়ান ভিনিসিউসেরই।

ম্যাচের ৮২ মিনিটে ডিবক্সে বল পেয়ে দুজনকে কাটান ভিনিসিয়াস। সামনে শুধু গোলরক্ষক থাকলেও নিজে গোলে শট না নিয়ে তিনি বল পাস বাড়ান অরক্ষিত বেনজেমার কাছে। এমন সহজ সুযোগ হাতছাড়া করেননি। তাতেই এই মৌসুমে সর্বাধিক জয়সূচক গোল করলেন এই ফ্রেঞ্চম্যান। এ নিয়ে মোট ছয়বার জয়সূচক গোল করলেন তিনি।

এই জয়ে সেভিয়ার সঙ্গে ব্যবধান আরও বাড়াল রিয়াল। ২৬ ম্যাচে ১৮ জয় ও ৬ ড্রয়ে তাদের পয়েন্ট ৬০। এক ম্যাচ কম খেলা সেভিয়া ৫১ পয়েন্ট নিয়ে আছে দুইয়ে। সমান ২৫ ম্যাচে ৪৬ পয়েন্ট নিয়ে তিন নম্বরে রিয়াল বেতিস। ২৫ ম্যাচে ৩১ পয়েন্ট নিয়ে ১২ নম্বরে আছে ভাইয়েকানো।