ফুটবল > বাংলাদেশ ফুটবল

ইমরুলের পারফর্মেন্স ‘আপ টু দ্য মার্ক' নয়: রাজ্জাক

নিউজ ডেস্ক

৬ ফেব্রুয়ারি ২০২২, বিকাল ৫:২১ সময়

[ fb_img_1644167933496 ]
চলছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) খেলা, টুর্নামেন্ট শেষ হওয়ার পরপরই আফগানিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি ম্যাচের সিরিজ খেলবে টাইগাররা। যে সিরিজের জন্য দল নির্বাচনে প্রভাব থাকবে বিপিএলের পারফর্মেন্সের, বিবেচনায় থাকবেন পুলের বাহিরে থাকা ক্রিকেটাররাও। দীর্ঘদিন ধরেই আলোচনায় আছেন জাতীয় দলের বাহিরে থাকা ইমরুল কায়েস, বিশেষ করে ওপেনিং জুটিতে ধারাবাহিক ব্যর্থতার পর। ইমরুল নিজেও জাতীয় দলে ফেরা নিয়ে শুনিয়েছেন আক্ষেপ আর হতাশার গল্পই, জাতীয় দলের বাহিরে থাকা ক্রিকেটারদের ফেরার জন্য বিপিএল একটা আদর্শ প্ল্যাটফর্ম। ইমরুলের জন্যও তার ব্যতিক্রম নয়, তবে বিসিবির নির্বাচক প্যানেলের সদস্য আব্দুর রাজ্জাকের কথা শুনলে হতাশা দীর্ঘই হবে বাঁহাতি এই ব্যাটারের। কারণ, আন্দুর রাজ্জাকের মতে, জাতীয় দলে ফেরার জন্য তার পারফর্মেন্স আপ টু মার্ক নয়। এবারের বিপিএলে এখন পর্যন্ত ৫ ইনিংসে ৩৩.৭৫ গড়ে করেছেন ১৩৫ রান, সবশেষ ম্যাচে ৬১ বলে ৮১ রানের ইনিংস খেললেও ব্যর্থ ছিলেন বাকি ইনিংস গুলোতে। ব্যর্থ ছিলেন ঘরোয়া ক্রিকেটের দুই টুর্নামেন্ট এনসিএল ও বিসিএলেও, জাতীয় লিগে ৯ ইনিংসে ২১.৮৮ গড়ে ১৯৭ ও বিসিএলে ২৫ গড়ে করেছেন ১৫০ রান। ইমরুলের এই পারফর্মেন্স গুলো অজানা নয় বিসিবির নির্বাচকদের, অজানা নয় ভক্ত-সমর্থকদেরও। তবুও ইমরুলকে জাতীয় দলে দেখতে চাওয়ার মানুষের কমতি নেই, তবে আব্দুর রাজ্জাক তাদের মনে করিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছেন যে যাদের পারফর্মেন্স ভালো নয় তাদের নিয়ে লাফালাফি করাও উচিত না। আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের দল পারফর্মেন্সের ভিত্তিতেই বেছে নেওয়া হবে জানিয়েন আব্দুর রাজ্জাক, যারা পারফর্মেন্স করে না তাদের নিয়ে লাফালাফি না করতে আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, “পারফর্মেন্সের ওপর ভিত্তি করেই আসলে দল করা হবে। আমি মনে করি, যারা পারফর্মেন্স করে না, তাদেরকে নিয়ে লাফালাফি করা ঠিকও না।” পারফর্ম করতে পারলে পুলের বাহিরে থাকা ক্রিকেটারদেরও সুযোগ থাকছে জানিয়ে আব্দুর রাজ্জাক বলেন, “যেহেতু টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট চলছে, ওইদিকে টি-টোয়েন্টি সিরিজ আছে, অবশ্যই দেখার বিষয়। খেয়াল রাখা হচ্ছে বাইরে থাকাদেরও। এটা যেমন আমাদের সুবিধা হয়েছে, তেমনি খেলোয়াড়দের জন্যও সুবিধা হয়েছে। (কেউ যদি) পারফর্ম করে বা ওইরকম লক্ষণীয় কিছু হয়, তাহলে অবশ্যই সুযোগ থাকবে।” ইমরুল কায়েসের সাম্প্রতিক পারফর্মেন্স জাতীয় দলের জন্য বিবেচিত মানদণ্ডের নয় উল্লেখ করে আব্দুর রাজ্জাক বলেন, “ইমরুল গত ম্যাচটা ভালো খেলেছে। পারফর্মেন্স করছে, এটা বললে ঠিক হবে না। ও কিন্তু অনেকদিন ভালো খেলেনি। আপনি জাতীয় লিগ থেকে যদি চিন্তা করেন, তাহলে কিন্তু ও 'আপ টু দ্য মার্ক' না।” জাতীয় দলের হয়ে সর্বশেষ ২০১৯ সালে নভেম্বরে খেলেছেন ইমরুল কায়েস, সেবার ভার‍ত সফরে টেস্টে খেলেছিলেন তিনি। সীমিত ওভারের ক্রিকেটে খেলেছে আরও আগে, ইমরুলের শেষ ওয়ানডে ম্যাচ ২০১৮ ও সর্বশেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন ২০১৭ সালের অক্টোবরে।