ক্রিকেট > ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট

হাফিজের ব্যাটে-বলে অধরা পিএসএল শিরোপা জিতলো আফ্রিদির লাহোর কালান্দার্স

ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন মুলতান সুলতান্সকে হারিয়ে পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) সপ্তম আসরের শিরোপা জিতেছে শাহীন শাহ আফ্রিদির নেতৃত্বাধীন লাহোর কালান্দার্স।

নিউজ ডেস্ক

২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২২, সকাল ৮:৪৭ সময়

[ InShot_20220228_083955538.jpg ]
পিএসএল

পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) বাকি পাঁচ দল অন্তত একবার করে শিরোপার স্বাদ পেলেও একমাত্র লাহোর কালান্দার্সই কখনো টুর্নামেন্টটিতে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করতে পারেনি। এতদিন ২০২০ সালে ফাইনালে উঠাই ছিল দলটির সেরা সাফল্য। তবে শাহীন শাহ আফ্রিদির অবশেষে সেই দুর্নাম ঘুচিয়ে অধরা পিএসএল শিরোপা ঘরে তুলেছে। 

রবিবার পিএসএলের সপ্তম আসরের ফাইনালে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন মুলতান সুলতান্সকে ৪২ রানে হারিয়ে প্রথমবারের মতো শিরোপা উৎসবে মেতেছে লাহোর কালান্দার্স। আর যার মধ্য দিয়ে টুর্নামেন্টটির সাত আসরে ভিন্ন ভিন্ন ছয়টি ফ্যাঞ্জাইজি চ্যাম্পিয়ন হওয়ার কৃতিত্ব দেখালো। প্রথম এবং তৃতীয় আসরে শিরোপা জিতা ইসলামাবাদ ইউনাইটেডেরই একমাত্র দুইবার পিএসএলের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার কৃতিত্ব আছে।

অথচ লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে ফাইনালে টসে জিতে শুরুটা মোটেও ভালো হয়নি লাহোর কালান্দার্সের। পাওয়ার প্লের পাঁচ ওভারের মধ্যেই দলীয় ২৫ রানেই আসরের সেরা রান সংগ্রহাক ফখর জামানসহ ৩ উইকেট হারিয়ে বসেছিল তারা। তবে চতুর্থ উইকেট জুটিতে কামরান গোলামকে নিয়ে এই ধাক্কা সামাল দেন মোহাম্মদ হাফিজ।

১২তম ওভারে দলীয় ৭৯ রানে ব্যক্তিগত ১৫ (২০) রান গোলাম আউট হলেও, অপরপ্রান্তে দ্রুত রান তুলতে থাকেন প্রফেসর খ্যাত অভিজ্ঞ হাফিজ। ফাইনালে শাহনেওয়াজ দাহানির শিকার হয়ে সাজঘরে ফেরার আগে ৪৬ বল মোকাবিলায় ৯ চার আর ১ ছয়ে ৬৯ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলেন পাকিস্তানের বর্ষিয়ান এই অলরাউন্ডার। 

হাফিজ ফিরলে শেষ দিকে রীতিমতো চার-ছক্কার বৃষ্টি নামিয়ে ফাইনালে লাহোরকে বড় পুঁজি এনে দেন দুই বিদেশি রিক্রুট হ্যারি ব্রোক এবং ডেভিড ভিসা। যেখানে শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থেকে ইংল্যান্ডের ব্রোক ২ চার আর ৪ ছক্কায় ২২ বলে ৪১* এবং নামিবিয়ার প্রোটিয়া অলরাউন্ডার ভিসা ১ চার আর ৩ ছক্কায় ৮ বলে ২৮* রান করেন।

ফলে শুরুতে দ্রুত ৩ উইকেট হারানোর পরেও শেষ পর্যন্ত ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ফাইনালে ১৮০ রানের বিশাল সংগ্রহ দাঁড় করায় লাহোর কালান্দার্স। মুলতানের পক্ষে ৪ ওভারে মাত্র ১৯ রান খরচায় ৩ উইকেট শিকার করেন আসিফ আলী।

জবাবে খেলতে নেমে শুরুটা মন্দ হয়নি মুলতান সুলতান্সের। তবে চতুর্থ ওভারের শেষ বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়ে মোহাম্মদ হাফিজের শিকার হয়ে দলীয় ৩৬ রানে অধিনায়ক মোহাম্মদ রিজওয়ান (১৪) আউট হওয়ার পর একের পর উইকেট হারাতে থাকে পুরো আসর জুড়ে দাপট দেখানো মুলতান। যেখানে লাহোরের বোলিং তোপে মাত্র ৬৫ রানেই ৫ উইকেট হারিয়ে ম্যাচ থেকে ছিটকে যায় তারা।

এরপর ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে খুশদিল শাহ (৩২) এবং টিম ডাভিড (২৭) ৫১ রানের জুটি গড়লেও শুধু পড়াজয়ের ব্যবধানই কমিয়েছে মুলতান সুলতান্স। যেখানে ২০ ওভারে শেষ পর্যন্ত ৯ উইকেটে ১৩৮ রানে থেমেছে তাদের ইনিংস, ৪২ রানের বড় জয়ে প্রথম শিরোপা ঘরে তুলেছে লাহোর কালান্দার্স। 

https://twitter.com/thePSLt20/status/1498007459406901251?s=20&t=YHo1j_x471eEFK6TFWHcKQ

ব্যাটে হাতে ৬৯ (৪৬) রানের ইনিংসের পর বল হাতেও ৪ ওভারে মাত্র ২৩ রান খরচায় ২ উইকেট শিকার করে ফাইনালে ম্যাচ সেরা হয়েছেন মোহাম্মদ হাফিজ। আর ফখর জামান, শাদাব খানদের পিছনে ফেলে টুর্নামেন্ট সেরার পুরস্কার জিতেছেন মুলতানের অধিনায়ক মোহাম্মদ রিজওয়ান।