ফুটবল > ক্লাব ফুটবল

‘আমি তোমাকে খুন করবো’- রিয়ালের কাছে হারের পর ক্ষুব্ধ পিএসজি সভাপতির হুমকি!

দুই গোলে এগিয়ে থাকলেও এমন হার কিছুতেই মেনে নিতে পারছেন না পিএসজি সভাপতি নাসের-আল খেলাইফি। মেসি-নেইমারদের সর্বোচ্চ কর্তা বার্নাব্যুতে গিয়ে ক্ষুব্ধ হয়ে স্বাগতিকদের দলের এক কর্মকর্তাকে হত্যার হুমকি দিয়ে বসলেন!

ডেস্ক রিপোর্ট

১০ মার্চ ২০২২, সকাল ৬:৩৯ সময়

[ Screenshot_20220310-063540_Gallery.jpg ]
সংগৃহীত

নাসের আল-খেলাইফির চ্যাম্পিয়নস লিগ জয়ের স্বপ্ন বহুদিনের। কিন্তু, ফরাসি লিগ ওয়ানে গত কয়েক বছর ধরে একচেটিয়া আধিপত্য দেখালেও কখনও ইউরোপ সেরা হতে পারেনি তার দল পিএসজি। ২০১৯-২০ মৌসুমে প্রথমবারের মতো ইউরোপ শ্রেষ্ঠত্বের মঞ্চের শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে খেলেছিল তৎকালীন টমাস টুখেলের দল। জার্মান জায়ান্ট বায়ার্ন মিউনিখের কাছে হেরে রানার্সআপ হয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে প্যারিসের বড় ক্লাবটির। 

বরাবরের ন্যায় এবারও আরাধ্য শিরোপাটির নাগাল পেতে চেষ্টা বড় করছিল পিএসজি। কাতারি অর্থে তারকা ঠাসা দলও বানিয়েছিল। সাতবারের বর্ষসেরা ফুটবলার লিওনেল মেসিকে অন্তর্ভুক্ত করে আত্মবিশ্বাসের চূড়ায়ও ছিল প্যারিসিয়ানরা।

কিন্তু, এবারও নাসের আল-খেলাইফির স্বপ্ন পূরণ হলো না। চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোয় প্রথম পর্বে ঘরের মাঠে জয়ের পর রিয়ালের মাঠেও শুরুতে এগিয়ে যায় তারা। সেই লিড আর ধরে রাখতে পারলো না শেষ পর্যন্ত। অভিজ্ঞ করিম বেনজেমার দুর্দান্ত হ্যাট্রিকে প্রত্যাবর্তনে গল্প লিখে শেষ আট নিশ্চিত করে রিয়াল। শেষ ষোলোয় বিদায়ঘন্টা বাজে তারকা ঠাসা ফরাসিদের। 

দুই গোলে এগিয়ে থাকলেও এমন হার কিছুতেই মেনে নিতে পারছেন না পিএসজি সভাপতি নাসের-আল খেলাইফি। মেসি-নেইমারদের সর্বোচ্চ কর্তা বার্নাব্যুতে গিয়ে ক্ষুব্ধ হয়ে রেফারির খোঁজ করছিলেন। কিন্তু, ম্যাচ রেফারিকে না পেয়ে প্রতিপক্ষের এক কর্মকর্তাকে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে বসলেন। দিয়ারিও এএসের নাম করা রিপোর্টার মনিকা মার্চেন্টের বরাতে ‘অপ্রীতিকর’ এমন ঘটনার খবর ছাপিয়েছে মার্কা। 

স্প্যানিশ পত্রিকাটি প্রতিবেদনে জানায়, রিয়ালের কাছে এভাবে হারের পর নাসের আল-খেলাইফিকে বার্নাব্যুর করিডরে চিৎকার করতে দেখা যায়। এরপর তিনি রিয়ালের চেঞ্জিং রুমে যান রেফারির সন্ধানে! 

ডাচ রেফারিকে খুঁজে না পেয়ে রিয়াল মাদ্রিদ কর্মকর্তা মেজিয়া দাভিলার বাসায় ডুকে পড়েন পিএসজি সভাপতি। রিয়ালের আরেক কর্মকর্তা পুরো ঘটনাটি নিজের মোবাইলে রেকর্ড করেন যা আল-খেলাইফিকে আরও ক্ষুব্ধ করে তোলে। পিএসজি মালিক মোবাইলটি তাদের হাত থেকে কেড়ে নেন!

ক্যাডেন এসইআর-এর জাভিয়ের হেরেজ জানান, নাসের আল খেলাইলি রিয়াল কর্মচারীকে ছবিগুলি মুছে দেওয়ার দাবি করেন। এসময় তার পাশেই ছিলেন পিএসজি স্পোর্টিং ডিরেক্টর লিওনার্দো। হেরাজ বলেন, 

আল-খেলাইফি চিৎকার করতে থাকেন। আর বলেন, 'আমি তোমাকে খুন করবো!'এরপর পরিস্থিতি যাতে আর না বাড়ে খেলাইফিকে তার দেহরক্ষীরা সরিয়ে দেন। 

মার্কা আরও জানায়, পুরো ঘটনার ভিডিওটি হাতে পেয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। লস ব্ল্যাংকোসরা খেলাইফির এমন ‘অপ্রীতিকর’ ঘটনার ভিডিওটি উয়েফার কাছে পাঠিয়েছে। ইউরোপিয়ান ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রণ সংস্থা ভিডিওটে আমলেও নিয়েছে।