ফুটবল > ক্লাব ফুটবল

ঘরের মাঠে তুর্কি ক্লাবকেও হারাতে পারেনি বার্সা

সবমিলিয়ে সর্বশেষ চার ম্যাচে ১৪ গোল করা দলটিকে রুখে দিয়েছে তুরস্কের ক্লাব গ্যালাতাসারাই।

ডেস্ক রিপোর্ট

১১ মার্চ ২০২২, সকাল ৯:৫৩ সময়

[ fc-barcelona-v-galatasaray-round-of-16-leg-one-uefa-europa-league-2-1024x662.jpg ]
সংগৃহীত

ইউরোপের দ্বিতীয় শীর্ষ লিগে এসে আগের ম্যাচে নাপোলির জালে গোলউৎসব করেছিল। না শুধুই নাপোলি নয়, সবধরনের প্রতিযোগিতায় টানা চার ম্যাচে বড় জয়ে স্বরুপে ফিরছিল যেন বার্সেলোনা। কিন্তু, এবার উড়ন্ত বার্সেলোনার সেই পথযাত্রায় সঙ্গী হলো ড্র। আসরের শেষ ষোলোর প্রথম পর্বেই তুর্কি ক্লাবের কাছে হোঁচট খেলো কাতালানরা। সর্বশেষ চার ম্যাচে ১৪ গোল করা দলটিকে রুখে দিয়েছে গ্যালাতাসারাই।

গতকাল (বৃহস্পতিবার) রাতে ইউরোপা লিগের শেষ ষোলোয় ম্যাচটি গোলশূন্য ড্র করেছে বার্সেলোনা। ১৯৯৬-৯৭ মৌসুমের লুইস ফন গালের পর প্রথমবার বার্সেলোনার কোচ হিসেবে ইউরোপীয় প্রতিযোগিতায় ঘরের মাঠে নিজে প্রথম টানা দুই ম্যাচ জিততে পারেননি জাভি হার্নান্দেজ। বার্সেলোনা ইউরোপে লিগে আগের ঘরের মাঠের ম্যাচেও নাপোলির বিপক্ষে ১-১ গোলে ড্র করেছিল। 

ঘরের মাঠে বল দখলের লড়াইয়ে এগিয়ে ছিল বার্সা। গোটা ম্যাচে ৬৯ শতাংশ বল নিজেদের পায়ে রাখে দলটি। গোলমুখে শট নেওয়া ক্ষেত্রেও দাপট ছিল জাভি হার্নান্দেজের দলের। পুরো ম্যাচে ১৬ শট নিয়ে ৪টিই লক্ষ্যে রাখে কাতালনরা। বিপরীতে, ৩ শটের মাত্র ১টি লক্ষ্যে রাখতে পারে গ্যালাতাসারাই। 

ন্যু ক্যাম্পে আক্রমণ প্রতি আক্রমণের ম্যাচের ২৬তম মিনিটে ডি-বক্সে বাইরে পেদ্রি ফাউলের শিকার হলে ফ্রি কিক পায় স্প্যানিশ জায়ান্টরা। ২৭তম মিনিটে মেম্পিস ডিপাইয়ে শট প্রতিহত করেন গ্যালাতাসারায়ে গোলরক্ষক ইনাকি পেনা।

দশ মিনিট পর গোল হজম করতে বসেছিল স্বাগতিক বাহিনী। প্যাট্রিক ভ্যান অ্যানহোল্টের ক্রসে আসা বল হেড করেন মার্কাও। তার হেড প্রতিহত করেন বার্সা গোলরক্ষক মার্ক আন্দ্রে টের স্টেগান। বিরতির আগে ৪১ মিনিটের মাথায় লুক ডি ইয়ংয়ের পাসে বল নিয়ে বাঁ প্রান্ত থেকে শট নেন ডিপাই। তাকে আবারো হতাশ করে বল ঠেকান পেনা। প্রথমার্ধের খেলা গোলশূন্য ড্র হয়।

বিরতির পর মাঠে ফিরে আক্রমণের ধার বাড়ায় জাভি শিষ্যরা। খেলার ৫৭তম মিনিটে ডিপায়ের ক্রসে ভেসে আসা বলে হেড করেন সার্জিও বুস্কেটস। কিন্তু, দারুণ দৃঢ়তায় পেনা হেড ঠেকিয়ে দেন। সাত মিনিট পর ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ংয়ের নেয়া দূরপাল্লার শটও পেনাকে পরাস্ত করতে পারেনি। ৭৫তম মিনিটে জি ইংয়ের শট বারে লেগে ফিরলে বার্সার ডেরায় হতাশা ভর করে।

৭৮ মিনিটে বার্সার জালে বল পাঠিয়ে দেন বাফেটিম্বি গোমিস। তবে তিনি অফসাইডে থাকায় গোল বাতিল হলে পরাজয়ের হাত থেকে বাঁচে বার্সেলোনা। বাকি সময় আর কোন গোল না হলে গোলশূন্য সমতায় ম্যাচ শেষ হয়। 

ন্যু ক্যাপে হোঁচট খাওয়া বার্সা আগামী ১৭ মার্চ ইস্তাম্বুলে গ্যালাতাসারাইয়ের বিপক্ষে দ্বিতীয় লেগের ম্যাচ খেলতে নামবে।