ফুটবল > ক্লাব ফুটবল

ফুটবলের নরকে গিয়ে গোল্ডেন বয়ের ‘জাদুর ছোঁয়ার’ পর শার্প-শ্যুটারের লক্ষ্যভেদে শেষ আটে বার্সা

তুর্কি ক্লাব গ্যালাতাসারাইকে হারিয়ে ইউরোপা লিগের শেষ আট নিশ্চিত করেছে বার্সেলোনা।

ডেস্ক রিপোর্ট

১৮ মার্চ ২০২২, রাত ২:২৯ সময়

[ 20220318_022317.jpg ]
টুইটার

স্প্যানিশ লা লিগায় দারুণ ছন্দে থাকার পরও ইউরোপা লিগের শেষ ষোলোয় প্রথম পর্বে ঘরের মাঠে ড্র করে কিছুটা ব্যাকফুটে ছিল বার্সেলোনা। আসরে টিকে থাকতে হলে পরের লেগে জয়ের আর কোন বিকল্প ছিল না জাভি শিষ্যদের।

ইতিহাস, ঐতিহ্য আর শক্তির বিচারে গ্যালাতাসারাইকে হারানোটা বড় কোন কাজ নয় কাতালানদের। তবে, সফরকারী যেকোন দলের জন্য তুর্কি ক্লাবটির ফুটবলারদের চেয়েও বড় প্রতিপক্ষ হয়ে দাঁড়ায় স্বাগতিকদের চরম উত্তেজিত সমর্থকরা। তুরস্কের এই স্টোডিয়ামে গোটা ম্যাচ জুড়ে গ্যালাতাসারাইয়ের সমর্থকদের চেয়ে এত গগনবিদারী আওয়াজ ইউরোপের অন্য খুব কম ক্লাবের স্টোডিয়ামে হয়। ইউরোপে তাই স্টোডিয়ামটি ‘ফুটবলের নরক’ নামেই পরিচিত পেয়েছে।

ফুটবলের এই নরকে গিয়ে শুরুতে পিছিয়েও পড়েছিল বার্সেলোনা। চ্যাম্পিয়নস লিগের পর ইউরোপের দ্বিতীয় সেরা লিগ থেকেও বিদায়ের শঙ্কা জাগে কাতালানদের শিবিরে। কিন্তু, শেষ পর্যন্ত তা হতে দেননি বার্সেলোনার ‘গোল্ডেন বয়’ পেদ্রি ও লিওনেল মেসির পূর্বসূরি হয়ে ন্যু ক্যাম্পে পাড়ি জমানো আক্রমণভাগে সেই শার্প-শ্যূটার পিয়েরিক অবামেয়ং। 

আজ (বৃহস্পতিবার) রাতে উয়েফা ইউরোপা লীগের ম্যাচটি ২-১ গোলে জিতেছে বার্সেলোনা। কাতালানদের হয়ে গোল করেছেন পেদ্রি ও অবামেয়ং। স্বাগতিকদের হয়ে একমাত্র গোলটি করেছেন মার্কাও। এই নিয়ে সব ধরনের প্রতিযোগিতায় সবশেষ ১১ ম্যাচেই অপরাজিত আছে জাভি হার্নান্দেজের দল।

প্রতিপক্ষের মাঠে স্বভাবতই এদিনও বল দখলের লড়াই য়ে এগিয়ে ছিলো বার্সেলোনা। গোটা ম্যাচের প্রায় ৬৬ শতাংশ বল নিজেদের পায়ে রাখে দলটি। গোলমুখে শট নেওয়ার ক্ষেত্রেও দাপট ছিল জাভির শিষ্যদের। ১৯ শট নিয়ে ৪টি লক্ষ্যে রাখে কাতালনরা। বিপরীতে, ৯ শটের ৩টি লক্ষ্যে রাখে স্বাগতিকরা। 

ঘরের মাঠে শুরুতেই এগিয়ে যায় গ্যালাতাসারাই। ম্যাচে ২৮তম মিনিটে স্বাগতিকদের এগিয়ে দেন মার্কাও। সমতায় ফিরতে বেশি সময় নেয়নি কাতালানরা। ৯ মিনিটের মধ্যেই ফেরান তোরেসের পাস থেকে দুর্দান্ত এক গোল করে সমতায় টানে মেসির পর বার্সেলোনার দ্বিতীয় ফুটবলার হিসেবে গোল্ডেন বয় এওয়ার্ড’ জেতা পেদ্রি। প্রথমার্ধের খেলা ১-১ গোলের সমতায় শেষ হয়।

বিরতির পর আক্রমণে ধার বাড়ায় বার্সেলোনা। ফলও আসে দ্রুতই। ৪৯তম মিনিটেই ফ্র্যাঙ্ক ডি ইয়ংয়ের পাস থেকে গোল করে কাতালানদের এগিয়ে দেন পিয়েরে অবামেয়ং। ম্যাচের ভাগ্যেও নির্ধারণ হয়ে যায় ওই গোলে। 

বাকিসময় আর চেষ্টা করেও ম্যাচে ফিরতে পারেনি গ্যালাতাসারাই। ফলে ২-১ গোলের জয়ে দুই লেগ মিলিয়ে ৩-২ গোলের অগ্রগামিতায় ইউরোপা লিগের শেষ আট নিশ্চিত করে বার্সেলোনা। এই জয়ে আগামী আগামী রোববার লা লিগায় চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়ালের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে বাড়তি আত্মবিশ্বাস যোগাবে জাভি হার্নান্দেজের দলে।