ক্রিকেট > বাংলাদেশের ক্রিকেট

সাহসী ক্রিকেট দিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে জিততে চান তামিম

এখানে আমাদের ওয়ানডে ক্রিকেট খেলার খুব বেশি অভিজ্ঞতা নেই। তবে এতটুকু বলতে পারি এখানে আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জ থাকবে।

নিউজ ডেস্ক

১৮ মার্চ ২০২২, রাত ১:১৯ সময়

[ images (57).jpeg ]
উইজডেন

দক্ষিণ আফ্রিকা সফর বাংলাদেশের জন্য বিভীষিকার নাম। বাংলাদেশ দল সবসময়ই দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে বেশ ভালভাবে ভুগেছে। শুধু বাংলাদেশই না, এশিয়ার পরাশক্তি ভারতও হরহামেশাই হোয়াইটওয়াশ হয়ে গেছে রঙধনুর দেশে এসে। তবে, বাংলাদেশ যে ওয়ানডেতে বিদেশের মাটিতেও শক্তিশালী সেটি প্রমাণ করতে চান অধিনায়ক তামিম ইকবাল। 

তামিম ইকবাল তবুও কথা বলার সময় হয়েছেন কৌশলী। কন্ডিশন যে অনেক বেশি গুরত্বপূর্ণ সেটি মনে করিয়ে দেন তিনি। তামিম বলেন,

এখানে আমরা আমাদের কাজ নিয়ে মনোযোগী। দক্ষিণ আফ্রিকায় সব সময়ই কঠিন সফর হয় আমাদের জন্য। এবার আমাদেরকে সেই জিনিসটার পরিবর্তন করতে হবে। এজন্য আমাদের সাহস নিয়ে খেলতে হবে এবং চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হবে। এটা খুব গুরুত্বপূ্র্ণ। অনুপ্রেরণার কথা যেটা বললেন, আপনি যখন দেশের জার্সি পরে মাঠে নামেন তার থেকে বড় কিছু আর থাকে না।

দক্ষিণ আফ্রিকায় বাংলাদেশ খুব বেশি সফর করার সুযোগ পেতে পারে না। সেই আফসোসটা লুকিয়ে রেখে তামিম জানালেন, "এখানে আমাদের ওয়ানডে ক্রিকেট খেলার খুব বেশি অভিজ্ঞতা নেই। তবে এতটুকু বলতে পারি এখানে আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জ থাকবে। যদি পরিসংখ্যান দিয়ে বিবেচনা করি তাহলে বলবো, এটা বেশ হাই স্কোরিং গ্রাউন্ড যেখানে অনেক রান হয়। মাঠের আকৃতি এবং আউটফিল্ড বড় কারণ। তবে পরিসংখ্যান যতই দেখি না কেন আমাদের মাঠে ভালো ক্রিকেট খেলতে হবে। কোনো সন্দেহ নেই তারা আমাদের ওপর চড়াও হয়ে উঠবে। ওই জিনিসটা আমাদের ভালো করে সামলে নিতে হবে।"

সবশেষ ম্যাচে বিশ্বকাপে বাংলাদেশই জিতেছে। তামিম বলেন, "সাম্প্রতিক সময়ে বিশ্বকাপে আমরা ওদের বিপক্ষে ভালো খেলেছি। তাই এখানেও ভালো না খেলার কোনো কারণ দেখি না। আমি যত কিছু বলি না কেন, আমরা কাল শুরুটা কীভাবে করছি সেটা গুরুত্বপূর্ণ। পরবর্তীতে দেখা যাবে আমরা কীভাবে এগিয়ে যাই।"

"তিনটা-চারটা সেশন অনুশীলন করেছি। এ সময়ে আমরা যতটা সম্ভব কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেছি। একটা জিনিস বুঝতে হবে, এরকম কন্ডিশনে আমরা সব সময় খেলি না। কিন্তু একদিক থেকে ভালো যে আমরা সেন্টার উইকেটে বেশ কয়েকটি অনুশীলন করতে পেরেছি। ওয়ান্ডারার্সে আমরা দ্বিতীয় ম্যাচ খেলবো। সেখানে আমরা সেন্টার উইকেটে অনুশীলন করেছি। যেটা নিজেদের মধ্যে অনুশীলন ম্যাচের মতো হয়েছিল। যতটুকু আমরা পারছি কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেছি।" তামিম ইকবাল আরো যোগ করেন। 

"দুই-তিন দিনে তো এগুলোর পরিবর্তন হয় না। মূল বিষয় হচ্ছে আপনি মানসিকভাবে যতটুকু প্রস্তুত থাকবেন, যতটা লড়াই করতে পারবেন তাহলে ভালো করতে পারবেন। এটাই মূল বিষয়। আপনি সারাবছর এক ধরনের উইকেটে খেলে সাতদিন আগে এখানে এসে নিজেকে প্রস্তুত করছেন। নিশ্চয়ই নিজেদের ভাগ্যবান মনে করা উচিত। যেটা বললাম, যতটুকু মানসিকভাবে নিজেকে প্রস্তুত করবেন তত ভালো ফল পাবেন।"