ফুটবল > আন্তর্জাতিক ফুটবল

ইতালির বিশ্বকাপ খেলতে না পারা ক্যারিয়ারের ‘সবচেয়ে বড় হতাশা’, আক্ষেপ মানচিনির

ইতালির বিশ্বকাপ খেলতে না পারার আক্ষেপ মানচিনির কন্ঠে।

ডেস্ক রিপোর্ট

২৬ মার্চ ২০২২, সকাল ৭:৩০ সময়

[ Roberto-Mancini-768x508.jpg ]
সংগৃহীত

২০১৮ সালে রাশিয়া বিশ্বকাপ খেলার সুযোগ পায়নি ইতালি। বিশ্বকাপ খেলতে না পারার সেই ক্ষত উয়েফা ইউরো জিতে কিছুটা হলেও কাটিয়ে উঠে চারবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। 

রবার্তো মানচিনির অধীনে বদলে গিয়ে ইউরোপসেরা হওয়া কিংবা অপরাজিত ৩৪- সবাই ধরে নিয়েছিলো, আজ্জুরিরা বুঝি আবারও তাদের সেরা ফর্মে ফিরে এসেছে। আসন্ন কাতার বিশ্বকাপেও হয়তো আনায়াসে খেলবে দলটি। কিন্তু, তা আর হলোটা কই? আবারও ভক্তদের হতাশ করেছে চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। কাতার বিশ্বকাপেও বাছাইয়েই বাদ পড়েছে দলটি। 

আগেই বাছাইপর্ব থেকে সরাসরি বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা অর্জন করতে ব্যর্থ হয় রবার্তো মানচিনির দল। 

গত (২৪ মার্চ) রাতে প্লে-অফ সেমিফাইনালে আরও একটা সুযোগ ছিল। কিন্তু অপেক্ষাকৃত দুর্বল ও নতুন দল উত্তর মেসিডোনিয়ার কাছে হেরে সেই আশাও শেষ হয়ে গেল দলটির। এর ফলে টানা দুটি বিশ্বকাপে খেলা যোগ্যতা অর্জন করতে ব্যর্থ হলো ফুটবল ইতিহাসের অন্যতম সফল দলটি। 

দুর্দান্ত ফর্ম নিয়ে অপরাজিত ইউরোপ চ্যাম্পিয়ন, তার পর আবার গত তিন বছরে মাত্র ১টি হার; তারুণ্যে ঠাসা দল নিয়েও বিশ্বকাপে খেলতে না পেরে হতাশ ইতালির কোচ রবার্তো মানচিনি।

৪৪ বছর বয়সী এই কোচের মতে নিজের বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারে এটিই সবচেয়ে বড় হতাশা ও আক্ষেপের। পুরো বিষয়টিই অবিশ্বাস্য ও কঠিন লাগছে মানচিনির। ম্যাচ শেষে রাই স্পোর্টকে এসব বলেছেন তিনি।

ইউরো ২০২০ জেতাটা যেমন আমার জীবনের সবচেয়ে আনন্দময় অভিজ্ঞতা ছিল, এটি তেমনি সবচেয়ে বড় হতাশার। এখানে কিছু বলার কিছু নেই কারণ এটাই ফুটবল। এখানে মাঝে মাঝে অবিশ্বাস্য ঘটনা ঘটে।
হয়তো আমাদের এখানে থাকার কথা ছিল না, আমরা ম্যাচটি জেতার জন্য সবকিছু করেছি। কিছু ম্যাচ এরকম থাকে, যা নিয়ে কথা বলা কঠিন।