ফুটবল > ক্লাব ফুটবল

মেসিকে ‘দুয়ো দিলে’ সম্মান পাবে কে, প্রশ্ন ব্রাজিলিয়ান রোনালদিনহোর

বিশ্বের সেরা ফুটবলার লিওনেল মেসিকে পিএসজি সমর্থকদের দুয়ো দেওয়ার কারণ জানেন না ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তি।

ডেস্ক রিপোর্ট

১ এপ্রিল ২০২২, রাত ২:৩৫ সময়

[ Screenshot_20220401-023333_Chrome.jpg ]
সংগৃহীত

গত মার্চে ফরাসি লীগ ওয়ানে খেলতে গিয়ে চরম বাজে অভিজ্ঞতার স্বীকার হয়েছেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক লিওনেল মেসি।

পিএসজির হয়ে ঘরের মাঠে খেলতে গিয়ে স্বাগতিক দলের সমর্থকদেরই দুয়ো শুনছেন তিনি। দেড় দশকের বেশি বর্নাট্য ফুটবল ক্যারিয়ারে এর চেয়ে বাজে অভিজ্ঞতা আর কখনওই হয়নি সাত বারের বর্ষসেরা এই ফুটবলারের। 

ইউরোপ শ্রেষ্ঠত্বের আসরে তারকায় ঠাসা দল নিয়ে রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে প্রথম লেগের জয়ে এগিয়ে থাকলেও বার্না ব্যুতে করিম বেনজেমার মাত্র সতের মিনিটের জাদুতে অসহায় আত্মসমর্পণ কিছুতেই মান তে পারেনি প্যারিসিয়ানরা। যার ঝাল পরের ম্যাচেই পার্ক দেস প্রিন্সেসে মেটায় তারা।

ঘরের মাঠে বোর্দোর বিপক্ষে সেদিন যতবার লিওনেল মেসির পায়ে বল গেছে ততবারই দুয়ো ধ্বনি তুলেছেন পিএসজি সমর্থকরা। নিজেদের চেনা আঙ্গিনায় নিজের দর্শকের কাছে এভাবে অপমানিত হওয়া মেসিদের যেন দিয়েছিলেন নতুন বার্তা। হয়তো পিএসজির সমর্থকরা-ই বলে দিল, তোমার সময় শেষ হয়ে আসছে!

পিএসজি সমর্থকদের এমন ব্যবহার কিছুতেই যেন মেনে নিতে পারছেন না ব্রাজিলিয়ান জীবন্ত কিংবদন্তি রোনালদিনিয়ো। লিওনেল মেসির মতো ফুটবলারকে কিভাবে সমর্থকরা দুয়ো দিতে পারলেন তা বুঝতেই পারছেন না বিশ্বকাপজয়ী এই তারকা। পিএসজির সাবেক এই ফুটবলারের প্রশ্ন, মেসিকেই যদি দুয়ো দেয়; তাহলে সম্মান পাবে কে? গত বুধবার 

স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম এএসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এই প্রশ্ন ছুড়ে দেন রোনালদিনহো। এক সময়ের বার্সা সতীর্থকে পিএসজির সমর্থকদের দুয়ো দেওয়া প্রসঙ্গে ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তি বলেন,

“যেখানে সবসময় একই ধরনের ফুটবল খেলা হয় তেমন একটি ক্লাবে অনেক বছর খেলার পর সে পিএসজিতে যোগ দিয়েছে, তার জন্য স্বাভাবিকভাবেই এখানে মানিয়ে নেওয়া কঠিন। তাকে শুধু নতুন জায়গায় মানিয়ে নিতে হবে, বাকিটা স্বাভাবিকভাবেই আসবে। তার শুধু সময়ের প্রয়োজন।”

“মেসিকে দুয়ো দেওয়ার কারণ আমি বুঝতে পারছি না। আপনি যদি মেসিকে দুয়ো দেন, তাহলে বুঝতে হবে আর কিছুই বাকি নেই! বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়কে দুয়ো দিলে কাকে সাধুবাদ জানাবেন? আমি কিছুই বুঝতে পারছি না।”