ফুটবল > আন্তর্জাতিক ফুটবল

ইতালিকে ৩-০ গোলে হারিয়ে আরো একটি ট্রফি মেসির আর্জেন্টিনার

অবিশ্বাস্য খেলা প্রদর্শন করেছে লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনা। কি দারুন নৈপুন্য দেখিয়ে একপেশে করে ম্যাচ জিতে নিলো শক্তিশালী ইতালির বিপক্ষে!

ডেস্ক রিপোর্ট

২ জুন ২০২২, রাত ৩:২৫ সময়

[ received_1015299319380440.jpeg ]
সংগৃহীত

অবিশ্বাস্য! লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনার পরিবর্তনের গল্পটা লিখতে হলে শুরু করতে হবে অনেক আগে থেকেই৷ এতগুলো ম্যাচ অপরাজিত থাকার গল্পটা নেহাত ছোট তো না। তবে কোপা আমেরিকা চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর থেকে দলটার উপর আলাদা করে নজর পরেছে বেশ। আর্জেন্টিনার এই দলটাকে রীতিমতো অবিশ্বাস্য, অপ্রতিরোধ্য করেছেন কোচ লিওনেল স্কালোনি। 

মূলত গল্পটার শুরু সেখান থেকেই। রদ্রিগো ডি পল, লো সেলসো, পাপু গোমেজ, রোমারোর মত ফুটবলারদের যখন দলে নেন স্কালােনি তখন শুরুতে অনেক সমালোচনা শুরু হয়েছিল। এরিক লামেলা, এভার বানেগার মত পরীক্ষিত তারকাদের ছেঁটে ফেলেন তিনি। তারুণ্য নির্ভর দলটিকে মেসিকে করেন চাপমুক্ত। ফলাফল, এই মেসি যেন অচেনা। সেই চিরতরুণ লিওনেল মেসি। 

ছবি - সংগৃহীত

কোপা আমেরিকা চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা এবং ইউরো চ্যাম্পিয়ন ইতালির মধ্যকার ম্যাচটি নিয়ে জম্পেশ এক আয়োজন উয়েফা আর কনমেবলের। লন্ডনের বিখ্যাত ওয়েম্বলি স্টেডিয়াম রীতিমতো টইটুম্বুর দর্শকে, সেখানেও আধিপত্য আর্জেন্টাইনদেরই। ম্যাচের শুরু থেকেই আধিপত্য ধরে রেখে খেলতে থাকে স্কালােনির আর্জেন্টিনা। 

এরপর ইতালি খেলায় ফিরে আসে মিনিট দশেক পরই। বেশ কয়েকবার আক্রমণের পসরা সাজিয়ে আর্জেন্টিনার ডিফেন্সের শক্তির পরীক্ষা নিয়েছে তারা। কিন্তু রোমারো, ওটামেন্ডিরা ছিলেন যেন চীনের প্রাচীর হয়ে, অন টার্গেট শট হলেও সেখানেও অতন্দ্র প্রহরী এমিলিয়ানো মার্টিনেজ। প্রায় ৬০ শতাংশ পজিশন নিয়ে আর্জেন্টিনা বার বার আক্রমনে গেলেও গোলের দেখা পাচ্ছিলো না। 

বনুচ্চির পায়ের বলের ভুলেই বল পেয়ে যান লিওনেল মেসি। সেখান থেকে মেসি ছোটেন গোলবার পর্যন্ত, শট নিতে পারতেন নিজেও। না নিয়ে তিনি পাস দিলেন, সহজ গোল করলেন লাউতারো মার্টিনেজ। এরপর কিছুটা ডিফেন্সিভ ভাবে খেলতে থাকে আর্জেন্টিনা। বিরতিতে যাওয়ার খানিকটা আগে মার্টিনেজের অ্যাসিস্টে ডি মারিয়ার বিখ্যাত ওয়েবসাইট গোলে ২-০ গোলে এগিয়ে যায় আর্জেন্টিনা। 

দ্বিতীয় অর্ধে ইতালির আক্রমণ প্রত্যাশিত ছিল, কিন্তু উল্টো আর্জেন্টিনার আক্রমণই সামলাতে হিমশিম খেয়ে যাচ্ছিলো তারা। সহজ সুযোগ মিস না করলে এই ম্যাচে আর্জেন্টিনা গোল করতে পারতো ৫-৬ টি। লিওনেল মেসির তিনটি অন টার্গেট শট ঠেকিয়ে দেন দনারুমা। ডি মারিয়া বাম পাশ থেকে কাটিয়ে দারুণ এক শট নিলেও সেটিও প্রতিহত করেন গোলকিপার। 

খেলার শেষ বাঁশি বাজার কিছু সময় আগে ডি মারিয়াকে বসিয়ে দিয়ে পাওলো দিবালাকে নামান স্কালােনি। নেমেই বাজিমাত, আরো একটি গোল আর্জেন্টিনার পক্ষে। ৩-০ গোলের বিরাট জয় নিয়ে বিশ্বকাপ প্রস্তুতি সেরে নিলো আর্জেন্টিনা। ডিয়াগো মারাডোনাকে স্মরণ করে ইতালি - আর্জেন্টিনার ভাতৃত্বের ম্যাচটিকে ছাপিয়ে সব আলো কেড়ে নিলেন মেসির আর্জেন্টিনা। লিওনেল মেসি দুইটি গোলে অ্যাসিস্ট করে বুঝিয়ে দিলেন তিনি ফুরিয়ে যাননি।