ক্রিকেট > বাংলাদেশের ক্রিকেট

আবেগের নিয়ন্ত্রণহীনতা বিপদে ফেলছে মুশফিককে

মুশফিকের আবেগ যেন বড় ধরনের কনট্রোভার্সি তৈরী করছে। খবরের শিরোনামে রসিকতাও ছড়াচ্ছে মুশফিকের হতাশার গল্প। অথচ এমন হবার কথা ছিল কি?

ওয়াহেদ মুরাদ

২৪ জুলাই ২০২২, দুপুর ১০:২০ সময়

[ IMG-20220526-WA0045.jpg ]

এই বর্ষাকালের সব সকালেই ভোর আকাশে লাল সূর্যের দেখা মিলেনা। কালো মেঘে ঢেকে থাকা সকালগুলো গুমোট হয়ে থাকে, ঠিক তেমনি মুশফিকুর রহিমের সময়টাও ঠিক পক্ষে যাচ্ছেনা। দেশের অন্যতম সেরা এই ব্যাটসম্যান এখন ব্রাত্য হয়ে পরেছেন জাতীয় দলের টি টোয়েন্টি ফরম্যাটে।

বাংলাদেশ জাতীয় দলের সবথেকে পরিশ্রমী ক্রিকেটার হিসেবে গণ্য করা হয় মুশফিককে। নিজের ফিটনেস এবং টেকনিক্যাল অনুশীলন করতে মুশফিকের মত পরিশ্রম করেন খুবই কম ক্রিকেটার। মুশফিকুর রহিমকে বাংলাদেশ জাতীয় দল টিম ম্যানেজমেন্ট ওয়ানডে দলে রাখলেও বাদ দিয়েছে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাট থেকে। 

বিশ্বকাপে বাজে পারফরম্যান্সের পর পাকিস্তান সিরিজ প্রথমবার বিশ্রাম দেওয়া হয় মুশফিকুর রহিমকে। পরবর্তীতে গনমাধ্যমের সামনে মুশফিকুর রহিম খোলাসা করেন যে তাকে বাদ দেওয়া হয়েছিল, 'বিশ্রাম' শব্দটাই ভূল। এরপর ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের দল ঘোষণা করবার আগ মুহুর্তে ছুটি নেন হ্বজ পালনের উদ্দেশ্যে। 

বিসিবির নির্ভরযোগ্য একটি সূত্রের খবর অনুযায়ী, সে সফরের টিটোয়েন্টি ফরম্যাটেও মুশফিককে ডাকা হতোনা। জানা গেছে, মুশফিকুর রহিমকে বিসিবি টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে আপাতত খেলতে 'না' করলেও, মুশফিক তিন ফরম্যাটেই খেলার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। যদিও বিসিবি আপাতত জিম্বাবুয়ে সিরিজে কোন সিনিয়র ক্রিকেটারকেই দলে রাখেনা। 

এরপরই মুশফিকুর রহিম মিরপুরে সাতসকালে অনুশীলন করতে গিয়ে দুই দিন পোস্ট করে রীতিমতো ঝড় তুলেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। ড্রেসিংরুমে চোখ বন্ধ করে আয়েশী ঢঙে তোলা একটি ছবিতে মুশফিক ইঙ্গিত দিয়েছেন, তথাকথিত দেওয়া বিশ্রামে তিনি বিশ্রাম নিচ্ছেন। যদিও এখানে মুশফিক সমালোচিত হচ্ছেনই বেশি। 

বিসিবির একজন উর্ধ্বতন বোর্ড পরিচালক মুশফিকের এমন আচরনে কিছুটা হতাশা প্রকাশ করেছেন। ডেইলি স্পোর্টসবিডিকে নাম না প্রকাশ করবার শর্তে তিনি বলেন, " আমাদের সিনিয়র ক্রিকেটার হিসেবে, টি-টোয়েন্টিতে নতুনদের সুযোগ দেবার ব্যাপারে মুশফিকের কাছে ইতিবাচক মনোভাব আশা করেছিলাম। সামাজিক মাধ্যমে এমন ছবি দেওয়া বা ইঙ্গিত দেওয়া অপেশাদারিত্ব প্রকাশ করে। তবে আশা করছি সবকিছু সামনে ঠিক হয়ে যাবে৷ আপাতত দল ভালো করুক, এটা ছাড়া আর কিছুই আমাদের মাথায় নেই৷ " 

যদিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মুশফিকুর রহিম সোহানের সাথে একটা ছবি প্রকাশ করে ২২ জুলাই তরুন এই দলের প্রতি সমর্থন প্রকাশ করে লিখেছেন, " সোহানকে অভিনন্দন জিম্বাবুয়ে সিরিজে নতুন টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক হবার জন্য। তরুন দলটার প্রতি আমার পূর্ন সমর্থন আছে এবং আমি বিশ্বাস করি যে ইনশাআল্লাহ এই দলটা ভালো করবে "

ক্রিকেট পাড়ায় যারা খোঁজ খবর রাখেন তারা জানেন মুশফিক নিজের আবেগকে নিয়ন্ত্রন করতে পারেন কম। এর আগে গণমাধ্যমের সামনে অপেশাদার কথার কারনে বিসিবি থেকে মুশফিককে মিডিয়ার সামনে প্রেস কনফারেন্সে তেমন একটা পাঠানো হতোনা। মাঠে জুনিয়র ক্রিকেটারকে তেড়ে মারতে যাওয়া থেকে শুরু করে সামাজিক মাধ্যমে মুশফিকের আবেগী পোস্ট প্রমাণ করে মুশফিক নিজের আবেগকে সেভাবে নিয়ন্ত্রন করতে পারেননা। 

টি-টোয়েন্টি ফরম্যাট থেকে নিজেকে অনেক আগেই সরিয়ে নিয়েছেন তামিম ইকবাল। জিম্বাবুয়ে সিরিজের পর মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ এবং মুশফিকুর রহিম বিহীন দল এশিয়া কাপে অংশ নিলে, পান্ডবদের আরো দুইজন ছিটকে পরবেন ক্রিকেটের নতুনতম এই ফরম্যাট থেকে। তবে ফরম্যাট ভিন্ন হলেও ওয়ানডেতে দলে থাকায় নিজেদের প্রমাণের আরো একটা উপলক্ষ্য পাচ্ছেন মুশফিক ও রিয়াদ