ক্রিকেট > বাংলাদেশের ক্রিকেট

ক্যারিবিয়ানদের ‘হোয়াইটওয়াশ’ করার সুবর্ণ সুযোগ টাইগারদের

তামিম ইকবালের দলের সামনে স্বাগতিকদের ‘হোয়াইটওয়াশ’ এর লজ্জা দেওয়ার সুবর্ণ সুযোগ রয়েছে।

ডেস্ক রিপোর্ট

১৬ জুলাই ২০২২, দুপুর ২:৪১ সময়

[ Screenshot_20220716-143534_Messenger.jpg ]
সংগৃহীত

টেস্ট ও টি-টোয়েন্টিতে হারের দুঃখ ঘুচে আগেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ জয় নিশ্চিত করে ফেলেছে বাংলাদেশ। নিজেদের পছন্দের ফরম্যাটে প্রথম ম্যাচ ৬ উইকেটে জয়ের পর দ্বিতীয় ম্যাচটিও ৯ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে জিতেছে টাইগাররা। এবার, তামিম ইকবালের দলের সামনে স্বাগতিকদের ‘হোয়াইটওয়াশ’ এর লজ্জা দেওয়ার সুবর্ণ সুযোগ রয়েছে।

আজ (শনিবার) গায়ানায় প্রভিডেন্স স্টোডিয়ামে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের শেষ ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। আগের দুই ম্যাচ জিতে সিরিযে ২-০ তে এগিয়ে থাকায় এবার টাইগারদের লক্ষ্য স্বাগতিকদের ’হোয়াইট ওয়াশ’ এর লজ্জা দেওয়া।

ওয়ানডে ফরম্যাটে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশ সবশেষ ৯ ম্যাচই জিতেছে। সবমিলে ক্যারিবিয়ানদের বিপক্ষে ওয়ানডে ফরম্যাটে টাইগরা সর্বশেষ টানা ৪টি সিরিজই জিতেছে।

এবার, ঘরের মাঠে উইন্ডিজকে পরবাসী করে সিরিজের শেষ ওয়ানডেও জিতলে বাংলাদেশ শুধু স্বাগতিকদের হোয়াটওয়াশ করবে না, বরং সমতা আনবে দু'দলের মুখোমুখি লড়াইয়ে। উইন্ডিজ-বাংলাদেশের মুখোমুখি ৪৩ ম্যাচের মধ্যে উইন্ডিজরা জয় পেয়েছে ২১ টিতে। অন্যদিকে বাংলাদেশের জয় ২০ টি। অর্থাৎ, শেষ ওয়ানডে ম্যাচেও জয় পেলে ক্যারিবিয়ানদের বিপক্ষে মুখোমুখি লড়াইয়ে সমতায় ফিরবে তামিম ইকবালের দল।

যদিও, ওয়াইটওয়াশের সুবর্ণ সুযোগ রয়েছে; তবে বাংলাদেশ দলের লক্ষ্য ভিন্ন। পরিসংখ্যানের দিকে না তাকিয়ে টাইগাররা শেষ ম্যাচে নিজেদের বেঞ্চের শক্তি পরখ করে দেখতে চায়। দ্বিতীয় ম্যাচ শেষে গায়ানায় সংবাদ সম্মেলনে এমন কথাই জানিয়ে ছিলেন জাতীয় দলের অধিনায়ক তামিম ইকবাল।

“এখন আমাদের সময় এসেছে ‘বেঞ্চ স্ট্রেংথ’ দেখে নেওয়ার। সাধারণত যখন পয়েন্টসের ব্যাপার থাকে, তখন সুযোগ থাকে না। কিন্তু এরকম সিরিজে যদি ২-০তে এগিয়ে যান, তখন যারা খেলেনি বা যাদেরকে নিয়ে আমরা অনেক দিন ধরে ঘুরছি, তাদের সুযোগ দেওয়া উচিত। এটির জন্য আমারও এক-দুই ম্যাচ মিস করতে হলে, ইটস ফাইন। কোনো সমস্যা নেই।”

“বেঞ্চ স্ট্রেংথ অবশ্যই আমাদের পরীক্ষা করা উচিত। এই একটা জিনিস বাংলাদেশের ক্রিকেটে আমরা খুব কম করি। সব ম্যাচ তো আমরা অবশ্যই জিততেই চাই। তবে মাঝেমধ্যে এটা করা খুব জরুরি, বিশেষ করে ওয়ানডেতে। কারণ, কে জানে, বড় সিরিজে গিয়ে দুজন গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটার চোট পেতেই পারে।”