ক্রিকেট > বাংলাদেশের ক্রিকেট

বিশ্রী বোলিংয়ের পর দিশাহীন ব্যাটিংয়ে লড়াই করে হারল বাংলাদেশ

পছন্দের প্রতিপক্ষ জিম্বাবুয়ের কাছে হেরেই সিরিজ শুরু করল টাইগাররা।

ডেস্ক রিপোর্ট

৩০ জুলাই ২০২২, রাত ৯:৩৫ সময়

[ Screenshot_20220730-213413_Gallery.jpg ]

ওয়ানডে ক্রিকেটের বাঘ, আর টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে বিড়াল- বাংলাদেশ যেন তাই আবার প্রমাণ করল। চার-ছক্কার লড়াইয়ে সীমাহীন ব্যর্থতার বৃত্ত থেকে প্রিয় প্রতিপক্ষ জিম্বাবুয়েকে পেয়েও বের হতে পারল না দলটি। তারুণ্যে ঠাসা দল নিয়েও বিশ্রী বোলিংয়ের পর দিশাহীন ব্যাটিং করে হারল নুরুল হাসান সোহানে দল।

আজ (শনিবার) হারারেতে তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে স্বাগতিক জিম্বাবুয়ের কাছে ১৭ রানে হারল বাংলাদেশ। টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে টাইগারদের বিশ্রী বোলিংয়ের সুযোগ কাজে লাগিয়ে ২০৫ রানের বিশাল টার্গেট পায় বাংলাদেশ। 

জবাবে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৮৮ রানেই থেমে যায় বাংলাদেশের ইনিংস। ২৬ বলে ৪২ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেও সফরকারীদের রক্ষা করতে পারেনি কাপ্তান নুরুল হাসান সোহান। 

ঘরের মাঠে টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে ওয়েসলি মাধেভেরে ও সিকান্দর রাজার জোড়া হাফ সেঞ্চুরিতে বাংলাদেশকে ২০৬ রানের বড় টার্গেট দেয় জিম্বাবুয়ে।

প্রথম ১০ ওভারে এসেছিল মাত্র ৭টি বাউন্ডারি, সব কটিই ছিল চার। সেই জিম্বাবুয়ে ইনিংস শেষ করল ২৩টি চার ও ৫টি ছয় নিয়ে। 

বাংলাদেশের দুর্বল বোলিং ও ফিল্ডিং এবং ওয়েসলি মাধেভেরের হাফ সেঞ্চুরি, সিকান্দার রাজার ২৬ বলে ৬৫ রানের ঝোড়ো ইনিংসে জিম্বাবুয়ে তুলেছে ২০ ওভারে ৩ উইকেটে ২০৫ রান। বাংলাদেশের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতে এটিই সর্বোচ্চ স্কোর তাদের, সব মিলিয়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ।

পাহাড়সম রান তাড়া করতে নেমে শুরুতেই ফিরে যান বাংলাদেশ ওপেনার মুনিম শাহরিয়ার।তারপর দারুণভাবে ব্যাট করা লিটন দাস অদ্ভুতভাবে আউট হন। শন উইলিয়ামসের বলে স্কুপ করতে গিয়ে শর্ট ফাইন লেগে ক্যাচ তুলে দেন লিটন। 

রিচার্ড এনগারাভা ক্যাচ নিলেও তা হাতে রাখতে পারেননি। কিন্তু লিটন সেটি খেয়ালই করেননি। নন স্ট্রাইক প্রান্তে থাকা এনামুল হক বিজয়ের ডাকে সাড়া না দিয়ে ড্রেসিংরুমের দিকে হাঁটা ধরেন।

তখন আম্পায়াররা থামান তাকে। তবে এরই মধ্যে উইলিয়ামস নন স্ট্রাইক প্রান্তের স্টাম্প ভেঙে দেন। উইলিয়ামস যখন নন স্ট্রাইক প্রান্তের স্টাম্প ভেঙেছেন, লিটন তখন ক্রিজের বাইরে। ফলে রান আউট হয়ে যান লিটন।

এর দুই ওভার পরই ২৬ রান করে আউট হয়ে যান এনামুল হক বিজয়ও। সিকান্দর রাজার বলে ক্যাচ তুলে দেন বিজয়। কিছুক্ষণ পর আফিফ হোসেনও ১০ করে আউট হয়ে গেলে বড় চাপে পড়ে বাংলাদেশ।

স্বল্প বিরতির পর শান্ত ও আফিফও ফিরে যান। এরপর মোসাদ্দেকও ফিরে যান ১৩ রানে। তারপর দলের হাল ধরেন অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহান। শেষ পর্যন্ত একাই লড়াই করেন তিনি।

যদিও অপরাজিত ২৬ বলে ৪২ রান করেও টাইগারদের জেতাতে পারেননি সোহান। নির্ধারিত ওভার শেষে ৬ উইকেটে ১৮৮ রানে থামে বাংলাদেশ। ১৭ রানের জয়ে সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে যায় জিম্বাবুয়ে।