ফুটবল > আন্তর্জাতিক ফুটবল

শতবর্ষে বিশ্বকাপ আয়োজন করতে চায় আর্জেন্টিনা

বিশ্বকাপের একশো বছর পূর্তি আসরের আয়োজক হতে চায় মেসিরা।

ডেস্ক রিপোর্ট

৪ আগস্ট ২০২২, রাত ৮:৫৬ সময়

[ Screenshot_20220804-205445_Gallery.jpg ]

১৯৩০ সালে প্রথমবার অনুষ্ঠিত হয় ফুটবল বিশ্বকাপ। সেবার ফুটবলের সবচেয়ে বড় আসরের আয়োজন করেছিলো উরুগুয়ে। ফাইনালে আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে শিরোপাও জিতেছিলো স্বাগতিকরা। 

২০৩০ সালে ‘দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ’-এর একশো বছর পূর্ণ হবে। বিশ্বকাপের শত বছর পূর্তি আসরেরও আয়োজক দেশ হতে চায় উরুগুয়ে। লাতিন আমেরিকায় দেশটির পাশাপাশি ঐতিহাসিক ওই আসরের আয়োজক দেশ হতে বিড জমা দিয়েছে ছিয়াশির বিশ্বকাপজয়ী দল আর্জেন্টিনাও।

তাদের সঙ্গে লাতিন আমেরিকার দুই দেশ চিলি এবং প্যারাগুয়েও ২০৩০ বিশ্বকাপের আয়োজক দেশ হতে বিড জমা দিয়েছে। এখন ফিফা এই প্রস্তাবে সাড়া দিলেই যৌথভাবে বিশ্বকাপ আয়োজনের সুযোগ পাবে লাতিন আমেরিকার দেশগুলি। 

২০১৪ সালে ব্রাজিলে অনুষ্ঠিত হয়েছিলো বিশ্বকাপ। ফের লাতিন আমেরিকায় বিশ্বকাপ আয়োজনের সব চেষ্টাই চালাচ্ছে কনমেবল। ২০৩০ সালের বিশ্বকাপও লাতিন আমেরিকায় আয়োজনে আশাবাদী কনমেবল। শতবর্ষী আসররের আয়োজক হওয়া এই মহাদেশের স্বপ্নের মতোই বলে জানিয়েছেন কনমেবল সভাপতি।

“এই মহাদেশের স্বপ্ন হলো বিশ্বকাপের শতবর্ষী আসরের আয়োজক হওয়া। সামনে হয়তো অনেক বিশ্বকাপ আসবে যাবে। কিন্তু শতবর্ষী বিশ্বকাপ তো একটাই। এটা বিচেবনা করে আমাদের মহাদেশকে সুযোগটা দেওয়া উচিত।”

উরুগুয়ের ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতিও শতবর্ষী বিশ্বকাপ আসরের আয়োজক হতে আশাবাদী। তার মতে, যেখানেই বিশ্বকাপের যাত্রা শুরু হয়েছিলো ঠিক সেখানেই শতবর্ষী বিশ্বকাপ আয়োজন করা উচিত।

“১০০ বছর পর বিশ্বকাপ সেখানেই হওয়া উচিত যেখানে এই আসর শুরু হয়েছিল।”

১৯৬২ সালের বিশ্বকাপ আয়োজন করেছিল চিলি। ১৯৭৮ বিশ্বকাপের আসর বসেছিল আর্জেন্টিনায়। ২০২০ বিশ্বকাপ হবে কাতারে এবং ২০২৬ বিশ্বকাপ যৌথভাবে আয়োজন করবে কানাডা, মেক্সিকো এবং যুক্তরাষ্ট্র। ২০৩০ বিশ্বকাপের আয়োজক দেশের নাম এখনও ঠিক করেনি ফিফা; বাছাই করা হবে ২০২৪ সালে।