ফুটবল > ক্লাব ফুটবল

সালাহর ‘মহানুভবতা’ দেখে লিভারপুলের সমর্থক হয়েছেন বাস্কেটবল কিংবদন্তি

মানবিক সালাহ-য় মুগ্ধ এই এনবিএ কিংবদন্তি।

ডেস্ক রিপোর্ট

৩০ আগস্ট ২০২২, দুপুর ১২:৪১ সময়

[ Screenshot_20220830-123749_Picsart.jpg ]

বর্তমান সময়ে লিভারপুলের প্রতিশব্দ হয়ে যেন দাঁড়িয়েছেন মোহাম্মদ সালাহ। মাঠে ও মাঠের বাইরে মিশরীয় ফরোয়ার্ডের প্রভাব কিংবদন্তিতুল্য। ইংল্যান্ডের শীর্ষ ক্লাবটিতে যোগ দেওয়ার পর থেকে ‘মিশরীয় রাজা’র চেয়ে বেশি গোল পাননি অলরেডদের কেউই। 

লিভারপুল তো বটেই, এই সময়ে প্রিমিয়ার লিগের আর কেউই ৩০ বছর বয়সী এই তারকার চেয়ে বেশি গোল করতে পারেননি। গত কয়েক বছর ধরে ইউরোপিয়ান ফুটবলে লিভারপুলের নতুন করে উথানের পিছনেও রয়েছে তাঁর বড় অবদান। 

শুধু মাঠের পারফরম্যান্স-ই নয়। মাঠের বাহিরেও অসাধারণ সালাহ। মানবিক সালাহর প্রশংসা এখন মানুষের মুখে মুখে। এইতো কয়দিন আগে মিসরে অগ্নিকাণ্ডে ধ্বংস হওয়া গির্জা পুনর্নির্মাণের জন্য ৩০ লাখ মিসরীয় পাউন্ড দান করেছে তিনি। যা নেট দুনিয়ায় বেশ সাড়াও ফেলেছে।

মোহাম্মদ সালাহর মাঠের বাহিরের অসাধারণ এসব কর্মকান্ড সবাইকে মুগ্ধ করেছে। লিভারপুল এ তারকার এই গুনের সমর্থকও হয়েছেন অনেকেই। তাদের মধ্যে আছেন এনবিএ কিংবদন্তী কোচ স্টিভ ডগলাস কের।

গোল্ডেন স্টেট ওয়ারিয়ার্সের এই কোচ মাঠের বাহিরের সালাহকে এতটাই পছন্দ করেন যে এখন তিনি ইংলিশ ক্লাব লিভারপুলেরই সমর্থক বনে গেছেন। সম্প্রতি, অলরেড কোচ ইয়ুর্গন ক্লপের সঙ্গে দেখা করার সময় এসব বলেন তিনি। ইএসপিএনকে স্টিভ কের বলেছেন,

“পাঁচ থেকে ছয় বছর আগে আমি প্রিমিয়ার খেলা দেখা শুরু করি। তখন আমি সালাহকে খেলতে দেখি, তার সম্পর্কে কিছু লেখা পড়ি। সালাহ মিসরের এক স্কুল তৈরিতে সাহায্য করছে, এটা শুনে আমি মুগ্ধ হয়ে যাই।”

“আমি জানতাম, মিশরে সবাই তাকে কত ভালোবাসত, তখনই মনে হয়েছে, একেই তো আমি খুঁজছি! পরে যখনই জানতে পারি সালাহ লিভারপুলের ফুটবলার, তখনই মনে হয়েছে, লিভারপুলই আমার দল। সেই থেকেই আমি লিভারপুলের সমর্থক।”

চলতি মৌসুমে এখনও নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি মোহাম্মদ সালাহ। প্রিমিয়ার লিগের নতুন আসরে চার ম্যাচে গোল করতে পেরেছেন ২টি। এর মধ্যে গত ম্যাচে বোর্নমাউথকে লিভারপুল ৯-০ গোলে উড়িয়ে দিলেও জালের দেখা পাননি মিশরীয় তারকা।