অন্যান্য > টেবিল টেনিস

টেনিসকে বিদায় বলে দিলেন ফেদেরার

টেনিস থেকে অবসরের ঘোষণা সুইস মহাতারকার।

ডেস্ক রিপোর্ট

১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, রাত ১০:৫৭ সময়

[ 20220915_225206.jpg ]

কদিন আগেই টেনিসকে বিদায় বলেছিলেন কিংবদন্তি সেরেনা উইলিয়ামস। তর্কসাপেক্ষে মেয়েদের টেনিসের সর্বকালের সেরা তারকার বিদায়ে এখনও শোকে মুহ্যমান গোটা বিশ্ব। 

সেই শোক কাটিয়ে উঠার আগেই আরও বড় ধাক্কাটা খেল টেনিস দুনিয়া। দীর্ঘদিন ধরেই চোটের সঙ্গে লড়াই করছেন রজার ফেদেরার। আরেকটি গ্র্যান্ডস্লামে স্বপ্নও মনের ভেতর লুকিয়ে রেখেছিলেন তিনি। 

কিন্তু, চোটের সঙ্গে লড়াই করে আর পেরে উঠলেন না। বর্নাট্য ক্যারিয়ার আর প্রলম্বিত না করে ৪১ বছর বয়সী সুইস কিংবদন্তিও টেনিসকে বলে দিলেন বিদায়। চলতি মাসের লেভার কাপ দিয়ে বিদায় জানানোর এ ঘোষণা দিয়েছেন টেনিসের মহাতারকা।

আজ (বৃহস্পতিবার) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সব ধরনের প্রতিযোগিতামূলক টেনিসকে বিদায়ের ঘোষণা দেন  রজার ফেদেরার। জানিয়ে দেন অবসরের ক্ষণটাও।

“আমার টেনিস পরিবার এবং এর বাইরে যারা আছেন। বছরের পর বছর ধরে টেনিস আমাকে যে সব উপহার দিয়েছে, তার মধ্যে সবচেয়ে বড় নিঃসন্দেহে, সেসব মানুষ যাদের সঙ্গে আমি দেখা করেছি: আমার বন্ধুরা, আমার প্রতিযোগীরা এবং বেশিরভাগ ভক্ত যারা খেলাটিকে প্রাণ দিয়েছেন,  আজ আমি আপনাদের সবার সাথে কিছু বিষয় শেয়ার করতে চাই।”

গত দুই বছরে ফেদেরারের হাঁটুতে তিনবার অস্ত্রোপচার হয়েছে। ২০২১ সালের জুলাইয়ে উইম্বলডনে কোয়ার্টার -ফাইনালে হুবের্ত হুরকাজের বিপক্ষে হারের পর থেকে আর কোনো প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচ খেলেননি তিনি।

কোর্টে ফেরার শত চেষ্টা করেছিলেন ফেদেরার। কিন্তু কঠোর পরিশ্রম করেও আর পারছেন না, বুঝে ফেলেছেন সুইস এই মহাতারকা। তাই, প্রতিযোগিতামূলক টেনিস এখনই থামিয়ে দিতে চান তিনি। যদিও, গ্রান্ড স্ল্যাম কিংবা আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট ছাড়া টেনিস খেলে যাবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। 

”আপনারা অনেকেই জানেন, গত তিন বছর আমাকে আঘাত ও অস্ত্রোপচারের মতো চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হয়েছে। আমি সম্পূর্ণ প্রতিযোগিতামূলক ফর্মে ফিরে আসার জন্য কঠোর পরিশ্রম করেছি। কিন্তু আমি আমার শরীরের ক্ষমতা ও সীমা জানি এবং ইদানীং আমার কাছে এর বার্তা স্পষ্ট হয়েছে।”

“আমার বয়স ৪১ বছর। আমি ২৪ বছরে দেড় হাজারেরও বেশি ম্যাচ খেলেছি।  টেনিস আমাকে আমার কল্পনার চেয়েও বেশি কিছু দিয়েছে। এখন আমার ক্যারিয়ারের ইতি টানার সময় হয়ে এসেছে। আগামী সপ্তাহে লন্ডনের লেভার কাপ হবে আমার শেষ এটিপি টুর্নামেন্ট। ভবিষ্যতে আমি অবশ্যই আরও টেনিস খেলব, কিন্তু কোনো গ্রান্ড স্ল্যাম কিংবা আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট নয়।’  

১৯৯৮ সালে মাত্র ১৬ বছর বয়সে পেশাদার টেনিসে অভিষেক হয় রজার ফেদেরারের। ক্যারিয়ারের প্রথম গ্র্যান্ড স্ল্যাম জেতেন তিনি ২০০৩ সালের উইম্বলডনে।

২০০৪ সালে প্রথমবারের মতো র‍্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষে ওঠেন। এরপর ৩১০ সপ্তাহ শীর্ষে অবস্থান করেন তিনি। গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে তাঁর রেকর্ডটটি টপকে যান নোভাক জোকোভিচ।

বর্নাট্য ক্যারিয়ারে ২০টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম জিতেছেন রজার ফেদেরার। ইতিহাসে তার চেয়ে বেশি জিতেছেন কেবল স্পেনের রাফায়েল নাদাল (২২) ও সার্বিয়ার নোভাক জোকোভিচ (২১)। 

টেনিসের ‘বিশ্বকাপ’ খ্যাত উইম্বলডন জিতেছেন সবচেয়ে বেশি আটবার।২০০৩ থেকে ২০০৭ পর্যন্ত জিতেছিলেন টানা পাঁচটি। এছাড়া, সুইস কিংবদন্তি অস্ট্রেলিয়ান ওপেন জেতেন ছয়বার, ইউএস ওপেন পাঁচবার। লাল দুর্গ ফ্রেঞ্চ ওপেনও জয় করেছেন একবার।