ক্রিকেট > আন্তর্জাতিক ক্রিকেট

‘বিশ্বকাপ জেতার লক্ষ্যেই মাঠে নামা উচিত শ্রীলঙ্কার’, বললেন জয়াবর্ধনে

শ্রীলঙ্কার বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন হওয়া ছাড়া আর কিছু ভাবা উচিত না বলে মনে করেন কিংবদন্তি এই ক্রিকেটার।

ডেস্ক রিপোর্ট

১৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, দুপুর ২:৩৯ সময়

[ Screenshot_20220917-143508_Gallery.jpg ]

চলতি বছর এশিয়া কাপ হওয়ার কথা ছিলো শ্রীলঙ্কাতেই। তবে দেশটি এমন অর্থনৈতিক সঙ্কটে বিপর্যস্ত যে, এত গুলো দলকে আতিথেয়তা দেওয়ার সামর্থ্য ছিল না। যে কারণে নিজেদের দেশে খেলার বদলে খেলতে হলো পরভূমে। আর সেখানেই সব চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে এশিয়ান চ্যাম্পিয়ন হয়ে দেশে ফিরেছে হাসারাঙ্গা-শানাকারা।

চরম অর্থনৈতিক দেওলিয়ার মুখে পড়ে যখন বেঁচে থাকার দৈনন্দিন লড়াইয়ে লঙ্কানদে কাছে বিনোদন স্রেফ বিলাসিতা হয়ে দাড়িয়েছিলো; ঠিক তখনই দেশের মানুষকে স্বস্তির ছোঁয়া এনে দিয়েছে তাদের ক্রিকেট দল। উজ্জীবিত পারফর‌ম্যান্সে তারা জিতে নিয়েছে এশিয়া কাপের ট্রফি। 

দুবাইয়ে ফাইনালে পাকিস্তানকে হারায় ২৩ রানে। অথচ টুর্নামেন্ট শুরুর আগে ফেভারিটের কাতারে রাখা হয়নি তাদের। শুরুটাও হয়েছিল তাদের যাচ্ছেতাই। আসরের উদ্বোধনী ম্যাচে তারা আফগানিস্তানের কাছে ১০৫ রানে গুটিয়ে ম্যাচ হারে বাজেভাবে।

সেই দলই ঘুরে দাঁড়ানোর দারুণ নজির গড়ে শেষ পর্যন্ত মেতে উঠল উৎসবে। ভারতের পর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ষষ্ঠবার এশিয়ার রাজা হলো লঙ্কানরা।

এশিয়ান ক্রিকেটে সবচেয়ে বড় প্রতিযোগিতার ট্রফি ঘরে তুলার পর আত্মবিশ্বাস টুইটম্বর শ্রীলঙ্কান শিবিরে। তাই, আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও শক্তিশালী দল ঘোষণা করেছে দলটি। 

গতকাল (শুক্রবার) টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য ১৫ সদস্যের দল ঘোষণা করে শ্রীলঙ্কা। চার-ছক্কা লড়াইয়ে লঙ্কানদের দলে ডাক পাওয়া ১৩ জনই ছিলেন সংযুক্ত আরব আমিরাতে অনুষ্ঠিত এশিয়া কাপ শিরোপা জেতা দলটিতে।

অস্ট্রেলিয়ায় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে এশিয়া কাপ চ্যাম্পিয়নরা ফিরে পেয়েছে পছন্দের দুই পেসার দুশমন্থ চামিরা এবং লাহিরু কুমারাকে। যদিও জায়গা হয়নি অভিজ্ঞ ব্যাটার বদিনেশ চান্দিমালের।

ক্রিকেটের নবীন সংস্করণের বৈশ্বিক আসরে নিজেদের দল নিয়ে খুশি কিংবদন্তি মাহেলা জয়াবর্ধনে। সাবেক লঙ্কান তারকার মতে, শ্রীলঙ্কার এই দলের বিশ্বকাপে জেতার সামর্থ্যে আছে। দ্য আইসিসি রিভিউ অনুষ্ঠানে আলাপচারিতায় এসব বলেন তিনি।

“যদি তারা সর্বশেষ (টি-টোয়েন্টি) বিশ্বকাপের পারফরম্যান্স এবং এবারের এশিয়া কাপের পারফরম্যান্স থেকে পাওয়া আত্মবিশ্বাস বিবেচনায় নেয় তাহলে আমার মনে হয় চ্যাম্পিয়ন হওয়া ছাড়া অন্যকিছু তাদের ভাবাই উচিত না।”

“আমি মনে করি, এই দলের এরকম চিন্তাধারা থাকা উচিত এবং তাদের মাঠে গিয়ে ভয়ডরহীন ক্রিকেট খেলা দরকার। তাদের উচিত শুধু মাঠে গিয়ে নিজেদের খেলাটা উপভোগ করা।”

“গত নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়াতে গিয়ে তারা বেশ ভালো টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট খেলেছে। সবকিছু যদি বিবেচনায় নেওয়া হয় তাহলে আমি মনে করি তারা এখন বেশ ভালো অবস্থানে আছে।”

অস্ট্রেলিয়ায় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রাথমিক পর্বে খেলতে হবে এশিয়ান চ্যাম্পিয়নদের। ‘এ’ গ্রুপে তাদের সঙ্গী নামিবিয়া, নেদারল্যান্ড ও সংযুক্ত আরব আমিরাত। 

আগামী ১৬ অক্টোবর নামিবিয়ার বিপক্ষে লড়াই দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু হবে শানাকাদের। একদিন পর তারা খেলবে আমিরাতের বিপক্ষে। ২০ অক্টোবর মুখোমুখি হবে নেদারল্যান্ডসের।