ফুটবল > আন্তর্জাতিক ফুটবল

পেলে নয়, ব্রাজিলিয়ান আলভেজের চোখে, ‘মেসিই সর্বকালের সেরা’

ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তির মতে, মেসি একটি প্রজন্মকে বদলে দিয়েছেন।

ডেস্ক রিপোর্ট

১৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, সকাল ৭:৩৬ সময়

[ Screenshot_20220917-073334_Chrome.jpg ]

লিওনেল মেসি সর্বকালের সেরা কি না, এ নিয়ে আলোচনা, বিতর্ক চলছে প্রায় এক দশক বছর ধরে। মেসি নিজেও এই চাপ সামলে পারফর্ম করে যাচ্ছেন, জিতেছেন রেকর্ড সাতটি ব্যালন ডি’অর। 

তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো তার থেকে পিছিয়ে দুই ব্যালন ডি’অরের ব্যবধানে। মেসি রেকর্ডও ভেঙেছেন সমানতালে।

একমাত্র যে আক্ষেপ ছিল, সেই আন্তর্জাতিক শিরোপার অভাবও ঘুচিয়েছে গেল বছর। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিলকে হারিয়ে ২৮ বছর পর দেশকে এনে দিয়েছে কোপা আমেরিকা শিরোপা।

এবার, সর্বকালের সেরা ফুটবলার তালিকায় ব্রাজিলের কিংবদন্তি ডিফেন্ডার দানি আলভেজও লিওনলে মেসিকে এগিয়ে রেখেছেন। স্বদেশী ফুটবল সম্রাট পেলে ও মেসির মধ্যে সেরা বাছাইয়ে এক সময়ে বার্সেলোনায় খেলা সতীর্থ আর্জেন্টাইন মহাতারকাকেই বেছে নিয়েছে তিনি। 

সম্প্রতি মেক্সিকোর সাবেক ফরোয়ার্ড ও ইএসপিএনের সংবাদকর্মী হুগো সানচেজ আলভেজকে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন দানি আলভেজ। ফুটবল ইতিহাসের সবচেয়ে বেশি ৪৭টি শিরোপা জেতা এই ফুটবলার কথা বলেছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর বিপক্ষে খেলার অভিজ্ঞতা, লিওনেল মেসি ও পেলে মধ্যে সেরা ফুটবলার কে এসব নিয়েও। 

দানি আলভেজের চোখে, সবচেয়ে কঠিন প্রতিপক্ষ হচ্ছে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। ৩৭ বছর বয়সী তারকা  ফুটবলারকে ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তি রীতিমতো ‘গোলমেশিন’ বলেছেন। 

“সবচেয়ে কঠিন প্রতিপক্ষ?ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো, সে মাঠে এক সেকেন্ডের জন্যও স্বস্তিতে থাকতে দেবে না। তার বিপক্ষে আমি খুব খারাপ করিনি, তবে কাজটা কঠিন। কারণ, সে গোলমেশিন।”

এসময় ফুটবল সম্রাট পেলে ও মেসির মধ্যে সেরা কে- বেছে নিতে বলা হলে বন্ধু লিওনেল মেসিকে বেছে নেন দানি আলভেজ। ব্রাজিলিয়ান তারকার মতে, পেলে ফুটবলকে বদলে দিয়েছেন। তাই, ফুটবল সম্রাটকে এই বিতর্কে রাখা উচিত না। 

“একটা কারণে পেলেকে বেছে নেব; তিনি ফুটবল খেলাটা পাল্টেছেন। আর মেসি একটা প্রজন্ম পাল্টেছে। ফুটবলকে ছাপিয়ে যাওয়া মানুষদেরই আমি পছন্দ করব, আর আমি তো ব্রাজিলিয়ান। পেলের এই বিতর্কে (সর্বকালের সেরা) থাকা উচিত নয়। আমাকে যদি জিজ্ঞেস করেন, ইতিহাসের সেরা খেলোয়াড় কে? আমি মেসিকে বেছে নেব। পেলের এখানে জায়গা নেই।”