ফুটবল > আন্তর্জাতিক ফুটবল

বিশ্বকাপ জিততে পর্তুগালকে ‘এক হয়ে’ খেলতে হবে

বিশ্বকাপ জিততে রোনালদোদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার তাগিদ ম্যান সিটি তারকার।

ডেস্ক রিপোর্ট

৪ নভেম্বর ২০২২, রাত ৯:৩ সময়

[ Screenshot_20221104-205611_Twitter.jpg ]

২০০৬ বিশ্বকাপে সেমিফাইনাল খেলা—বিশ্বকাপের ইতিহাসে পর্তুগালের সর্বকালের সেরা সাফল্য বলতে এটাই। সেবার ইউরোপের মধ্যম সারির দলের তকমা নিয়েও বিশ্বকাপে চতুর্থ হয় ফিগো-রোনালদোরা। 

মূলত, তখন থেকেই পর্তুগিজ ফুটবলের বিপ্লব শুরু  হয়। যেখানে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো মতো প্রতিভাবান ফুটবলাররাও উঠে আসে। ধীরেধীরে তারা ইউরোপে নিজেদের ভীত শক্ত করেছে।

২০১৮ বিশ্বকাপের টপ ফেভারিট হয়ে রাশিয়ায় খেলতে যায় পর্তুগাল। ২০১৬ ইউরো জয়ের তাজা আত্মবিশ্বাস নিয়েই ফুটবলের বৈশ্বিক আসরে মাঠে নামে ফার্নান্দো সান্তোসের দল। তবে, রাশিয়া বিশ্বকাপে বেশ ভরাডুবি হয়ে খালি হাতেই ফিরতে হয় রোনালদোদের। 

রাশিয়া বিশ্বকাপে মতো এবারও পর্তুগাল ফেভারিটদের তালিকায় আছে। এবারও দলে রোনালদো, ব্রুনো ফার্নান্দেজ, বার্নাডো সিলভা, রুবেন দিয়াস ও জো কানসালো মতো তারকা ফুটবলাররা আছেন। 

প্লে-অফের কঠিন বাধা পেরিয়ে বিশ্বকাপ খেলা সুযোগ পেলেও তারকা ঠাসা দলটি এখন বিশ্ব জয়ের বড় স্বপ্ন দেখছে, পর্তুগিজরাও এবার বড় আশার বীজ বুনছেন। বিষয়টি বুঝতে পেরেছেন দলের তারকা সেন্টার ব্যাক রুবেন দিয়াস। 

তাই, ম্যানচেস্টার সিটিতে খেলা তারকা ব্যক্তিগত নৈপুণ্যের চেয়ে বিশ্বকাপে সফল হতে সবার এক হয়ে খেলাকেই বেশি প্রাধান্য দিয়েছেন। রুবেন দিয়াস বলেছেনে,

“প্রথমত, বিশ্বকাপের মতো বড় আসরে সফল হতে শক্তিশালী একটা দল প্রয়োজন। বিশ্বের সব বড় বড় ব্যক্তিগত নৈপুণ্যনির্ভর ও শক্তিশালী খেলোয়াড় থাকতে পারে, কিন্তু যেটা আসলেই গুরুত্বপূর্ণ, সেটা হচ্ছে, একটা দল হিসেবে আপনি কতটা শক্তিশালী।”

“এটা এমন একটা প্রতিযোগিতা, যেখানে একজন খেলোয়াড়কে অনুভব করতে হবে যে পুরো দেশ তার পেছনে আছে এবং এটা আমি শিখেছিলাম ২০১৮ সালের বিশ্বকাপ দলে থাকার সময়। এটা বিশেষ কিছু এবং ব্যক্তিগত পর্যায়ে যে অভিজ্ঞতাই আপনি অর্জন করুন না কেন, এটা তার চেয়ে বেশিকিছু।”

“অবশ্যই আমার এখন আরও বয়স হয়েছে, কিন্তু ঐক্যবদ্ধ একটা দেশকে পেছনে পাওয়া বাড়তি শক্তি যোগায়, এই প্রতিযোগিতায় এগিয়ে যাওয়ার জন্য যেটা প্রয়োজন।”

কাতার বিশ্বকাপে পর্তুগাল খেলবে ‘এইচ' গ্রুপে। যেখানে তাদের বাকি তিন প্রতিপক্ষ হচ্ছে- উরুগুয়ে, ঘানা ও দক্ষিণ কোরিয়া। আগামী ২৪ নভেম্বর ঘানার বিপক্ষে রোনালদোদের বিশ্বকাপ মিশন শুরু হবে।