ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপ

‘ইশশ! আমিও যদি বিশ্বকাপ খেলতে পারতাম’- হ্যালান্ডের আক্ষেপ

কাতার বিশ্বকাপ খেলতে না পারার আফসোস বয়ে বেড়াচ্ছেন ম্যান সিটি তারকা।

ডেস্ক রিপোর্ট

১৬ নভেম্বর ২০২২, দুপুর ১০:৩১ সময়

[ Screenshot_20221116-103117_Gallery.jpg ]

নতুন মৌসুমের শুরুতে দারুণ সম্ভাবনা আর প্রত্যাশার ডালি সাজিয়ে জার্মান জায়ান্ট ক্লাব বরুশিয়া ডর্টমুন্ড থেকে ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটিতে যোগ দেন আর্লিং হ্যালান্ড। ইত্তিহাদে নিজের জাত চেনাতে সময় লাগেনি নরওয়েজিয়ান তারকার।

ইংল্যান্ডে ক্লাবটির হয়ে রীতিমতো গোলের বন্যা বয়ে দিচ্ছেন তিনি। সামর্থ্যের ঝলক দেখিয়ে হয়ে উঠেছেন দলটির আক্রমণভাগের সেরা খেলোয়াড়। হ্যালান্ডই এখন সিটিজেনদের মধ্যমণি, পেপ গার্দিওলার সেরা অস্ত্রও বটে। 

ক্লাব ফুটবলের বিরতির পর গোটা দুনিয়া এখন মজেছে ফুটবল বিশ্বকাপ ঝড়ে। সেখানে ম্যান সিটির হয়ে খেলে এমন ১৬ জন ফুটবলার বিশ্বকাপে নিজের দেশ কে প্রতিনিধিত্ব করবে। অথচ, সময়ের অন্যতম সেরা হ্যালান্ডেরই বিশ্বকাপ খেলা হচ্ছে না। 

বিশ্বকাপ বাছাইয়ে নরওয়ের বিদায়ে ফুটবলের বৈশ্বিক আসর খেলার স্বপ্ন শেষ হয়ে গেছে ম্যান সিটির তারকার। কাতার বিশ্বকাপে তিনি দর্শক হয়েই থাকবেন। আর সেটা নিয়েই আফসোসের অন্ত নেই হ্যালান্ডের। স্কাই স্পোর্টসকে দেওয়া সাক্ষাৎকাররে ২২ বছর বয়সী তারকার সেই কষ্ট ফুটে উঠেছে। 

“ইশ, আমিও যদি বিশ্বকাপ খেলতে পারতাম! কিন্তু খেলতে পারছি না। এটাই বাস্তবতা। এই সময়টায় অবশ্য শারীরিক ও মানসিক প্রস্তুতিটা সেরে নেব।”

কাতার বিশ্বকাপে খেলতে না পারলেও ভবিষ্যতে নরওয়েকে নিয়ে বিশ্বকাপ আর ইউরো খেলতে চান হ্যালান্ড। ইউরোপে দুর্বল দলটি নিয়ে সেই কাজ কঠিন হলেও সময়ের অন্যতম সেরা তারকার লক্ষ্য এটাই। 

“আমরা সবচেয়ে বড় যে কাজটা করতে পারি, তা হলো কোনো বিশ্বকাপে বা ইউরোয় খেলতে পারি। জাতীয় দলের হয়ে এটাই আমার লক্ষ্য। জানি, এটা কঠিন। তবে আশা করি, ভবিষ্যতে একদিন আমি সেখানে খেলতে পারব।”

ক্লাবের মতোই ব্যক্তিগত নৈপুণ্যে জাতীয় দলেও উজ্জল আছেন আর্লিং হ্যা লান্ড। নরওয়ের হয়ে ২১ গোল করে ফেলেছেন তিনি। বিশ্বকাপ বাছাইয়েও করেছিলেন ৫ গোল। আর ন্যাশন্স লিগে তার গোলসংখ্যা ছিলো ৬টি।