ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপ

আমিরাতকে গোলে ভাসিয়ে ব্রাজিলকে ছাড়িয়ে গেল আর্জেন্টিনা

বিশ্বকাপে যাওয়ার আগে নিজেদের ভালোভাবেই ঝালিয়ে নিল আকাশী-নীলরা।

ডেস্ক রিপোর্ট

১৬ নভেম্বর ২০২২, রাত ১১:২৯ সময়

[ 20221116_232635.jpg ]

কাতার বিশ্বকাপের আগে নিজেদের ভালোভাবেই ঝালিয়ে নিল আর্জেন্টিনা। বিশ্ব মঞ্চে যাওয়ার আগে শেষ প্রস্তুতিমূলক ম্যাচে দুর্দান্ত একটি জয় পেয়েছে আকাশী-নীলরা। সংযুক্ত আরব আমিরাতে এসে স্বাগতিকদের বিপক্ষে রীতিমতো গোলউৎসব করেছে দলটি। 

আজ (মঙ্গলবার) রাতে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচটি ৫-০ গোলে জিতেছে আর্জেন্টিনা। আলবিসেলেস্তেদের হয়ে জোড়া গোল করেছেন আনহেল ডি মারিয়া। একটি করে গোল করেছেন জুলিয়ান আলভারেজ, লিওনেল মেসি ও জোয়াকিন কোরেয়া। 

দুর্দান্ত জয়ে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিলকে ছাড়িয়ে গেল আকাশী-নীলরা। সবধরনের প্রতিযোগিতায় এই নিয়ে সবশেষ টানা ৩৬ ম্যাচ অপরাজিত থাকলো আর্জেন্টিনা। বিশ্ব ফুটবলে এতদিন দ্বিতীয় সবচেয়ে বেশি টানা ৩৫টি ম্যাচ অপরাজিত ছিলো ব্রাজিল। মেসিরা ছাড়িয়ে গেল তাদেরও। 

এবার,  মেসিদের সামনে আছে কেবল ইতালি। বিশ্বকাপের গ্রুপপর্বের প্রথম দুটো ম্যাচে হার এড়াতে পারলেই আজ্জুরিদের ছাড়িয়ে আন্তর্জাতিক ফুটবলে সর্বকালের সর্বোচ্চ ম্যাচ অপরাজিত থাকার রেকর্ড গড়বে লাতিন আমেরিকার সেরারা। টানা ৩৭ অপরাজিত থেকে রেকর্ড আছে ইতালির দখলে। 

আবুধাবিতে পূর্ণ শক্তির দল নিয়েই মাঠে নামে আর্জেন্টিনা। চোট কাটিয়ে এ ম্যাচে দলে ফিরেছেন বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে যাওয়ার শঙ্কায় থাকা আনহেল ডি মারিয়া। তবে শুরুর একাদশে ছিলেন না পাউলো দিবালা।

স্বাগতিকদের মাঠে ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমণের পসরা সাজায় আর্জেন্টিনা। গোছানো আক্রমণে ম্যাচে

১১তম মিনিটে গোলমুখে বল পেয়েছিলেন মেসি। তবে সেই সুযোগ কাজে লাগাতে পারেননি আর্জেন্টাইন অধিনায়ক। চার মিনিট পর মেসির আরেকটি শট ঠেকিয়ে দেন আমিরাতের গোলরক্ষক।

অবশ্য এরপরও গোল পেতে খুব বেগ পেতে হয়নি আকাশী-নীলদের। ম্যাচের ১৭তম মিনিটে জুলিয়ান আলভারেজের গোলে লিড পেয়ে যায় আর্জেন্টিনা। গোলের মূল কারিগর ছিলেন মেসি। ডান প্রান্ত থেকে তার বাড়ানো বলেই জাল ছুঁয়েছেন আলভারেজ।

২৫তম মিনিটে লিড দ্বিগুণ করেন ডি মারিয়া। বাম পাশের কর্নার থেকে একুনার ক্রস দুর্দান্ত ভলিতে জালে জড়ান অভিজ্ঞ এই ফরোয়ার্ড। ৩৬ তম মিনিটে আবারও ডি মারিয়া গোল। এবার গোলরক্ষকসহ কয়েকজন ডিফেন্ডারকে একাই কাটিয়ে নিয়ে গোল করেন তিনি।

প্রথমার্ধের শেষ দিকে গোলের দেখা পান লিওনেল মেসিও। ডি বক্সের সামনে ডি মারিয়ার সঙ্গে ওয়ান টু ওয়ান করে বক্সের মধ্যে ঢুকে ডান পায়ে দূরের পোস্টে শট নেন। বল উপরের অংশ দিয়ে জালে জড়ায়। তাতে আর্জেন্টিনা প্রথমার্ধেই লিড নেয় ৪-০ গোলে।

বিরতির পর পরই গোলের সুযোগ তৈরি করেছিল আরব আমিরাত। আব্দাল্লাহ রহমানের নেওয়া প্রথম শট বারে লেগে ফিরে আসে। এরপর আবার নেওয়া শট রুখে দেন আর্জেন্টিনার গোলরক্ষক এমিলিয়ানো মার্টিনেজ। এরপর আরও দুইবার নিশ্চিত গোলের সুযোগ মিস করে তারা।

তবে ৫৯ মিনিটে আর্জেন্টিনার জোয়াকুইন কোরেয়া যে সুযোগ পান সেটি মিস করেননি। এ সময় রদ্রিগো ডি পলের বাড়িয়ে দেওয়া বল পেয়ে জালে জড়ান তিনি। বাকি সময় চলে আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণ।

তবে আর গোল হয়নি। শেষ পর্যন্ত ৫-০ গোলের ব্যবধানের জয় দিয়ে প্রস্তুতি সারে লিওনেল স্কালোনির শিষ্যরা।