ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপ

ইতিহাসের সেরা আয়োজনে শুরু হয়ে গেল বিশ্বকাপ

পর্দা উঠলো ২২তম ফুটবল বিশ্বকাপের।

ডেস্ক রিপোর্ট

২০ নভেম্বর ২০২২, রাত ১০:১৭ সময়

[ Screenshot_20221120-221531_Gallery.jpg ]

রীতিমতো অবিশ্বাস্য ২২ লাখ কোটি টাকা খরচ করে আগেই গোটা দুনিয়ার চোখে বিস্ময় সৃষ্টি করেছিলো কাতার।  এবার বাকি ছিলো স্রেফ আনুষ্ঠানিকতার। কেন এবার বিশ্বকাপটিই ইতিহাসের সবচেয়ে ব্যয়বহুল জমকালো আয়োজনে সেটাও দেখিয়ে দিলো মধ্যপ্রাচ্যের দেশটি। 

ইতিমধ্যে নাক সিটকানো ইউরোপের গণমাধ্যমগুলিও মেনে নিয়েছে, কাতারেই ইতিহাসের সেরা বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হয়ে গেল। বিশ্বকাপের উদ্বোধন অনু ষ্ঠানে কাতার যা করেছে তা করতে পারেনি আর কেউ।

আজ (রোববার) উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শুরু হওয়া অনেক আগে থেকেই ভিড় জমতে শুরু করেছিলো রাজধানী দোহার আল বায়াত স্টেডিয়ামের বাইরে। নির্ধারিত সময়ের কিছুটা পরেই শুরু হল উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। 

প্রথমেই দেখা যায় কাতারের আমীর শেখ তামিম বিন হামাদ আল থানিকে। উদ্ধোধনী ভাষণে বিশ্বকে দোহায় স্বাগতম জানিয়েতিনি বলেছেন, “মানুষে মানুষে বিভেদ ভুলে এ ঐক্য দেখতে কী সুন্দর লাগছে! গোটা বিশ্বকে দোহায় স্বাগতম!”

তার পরেই বিশ্বকাপে ঐক্যের বার্তা শোনাতে শোনাতে হাজির হন হলিউডে প্রখ্যাত অভিনেতা মর্গ্যান ফ্রিম্যান। তাঁর সঙ্গে মঞ্চে প্রবেশ করে কাতার বিশেষ ভাবে সক্ষম ঘানেম আল-মুফতাহ।

এরপরই ঝড় তুলেন কোরীয় ব্যান্ড বিটিএস-এর প্রধান গায়ক জান কুক। তাঁর সঙ্গেই এলেন কাতারের গায়ক ফাহাদ আল-কুবায়সি। তার সঙ্গেই বিশ্বকাপের মাসকট লা’ইবও পারফর্ম করে মঞ্চে। আগের বারের বিশ্বকাপে যে সব ম্যাসকট ছিল, তাদেরকেও একে একে হাজির করানো হল।

এরপর একে একে শোনা যায় ১৯৯৮ বিশ্বকাপে রিকি মার্টিনের গাওয়া ‘ওলে, ওলে’ থেকে ২০১০ বিশ্বকাপে শাকিরার গাওয়া ‘ওয়াকা, ওয়াকা’, সবই শোনা গেল।

মঞ্চে পারফর্ম শেষে একটি শোকসের মধ্যে দিয়ে আনা হয় বিশ্বকাপের সোনালী ট্রফি। ১৯৯৮ বিশ্বকাপজয়ী ফ্রান্সের সাবেক ডিফেন্ডার মার্সেল দেশাইকে তখন দেখায় যায় বিশ্বকাপ ট্রফির পাশে।