ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপ

২২ লাখ কোটি টাকার অনন্য বিশ্বকাপের পর্দা উঠবে আজ

আর কয়েক ঘন্টা পরই পর্দা উঠবে সর্বকালের সবচেয়ে ব্যয়বহুল বিশ্বকাপের।

ডেস্ক রিপোর্ট

২০ নভেম্বর ২০২২, দুপুর ১:৮ সময়

[ Screenshot_20221120-130244_Gallery.jpg ]

অপেক্ষার পালা শেষ হচ্ছে। আর মাত্র কয়েক ঘন্টা। মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতারে সর্বকালের সর্বোচ্চ ২২ লাখ কোটি টাকার বাজাটের ‘দ্যা গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ’ ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপের ২২তম আসরের পর্দা উঠবে। 

সেই সঙ্গে সকল ফুটবলপ্রমী অপেক্ষার অবসান ঘটবে। ম্যাচে পর্দা ওঠার আগে রাজধানী দোহায় হবে বিশ্বকাপ ফুটবলের বড় জমকালো উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। তাই সারা দুনিয়া তাকিয়ে রয়েছে মরুর বুকে।

ইতিমধ্যে, প্রিয় দেশকে সমর্থন জানাতে ভক্ত সমর্থকরা এখন কাতারে। নেচে গেয়ে উদযাপনে এই মহাজঙ্গে প্রাণের সঞ্চার করছেন তারা। তবে, ফুটবল দুনিয়ার সিংহভাগ দর্শক টিভিতে খেলা উপভোগ করবেন। প্রায় দেড় মাস গোটা ফুটবল দুনিয়া মেতে থাকবে বিশ্বকাপ ফুটবলের শিরোপার যুদ্ধ নিয়ে।

অন্য যেকোনবারের তুলনয়ায় এবারের কাতার বিশ্বকাপ অনন্য। সেটা বাজেট, অত্যাধুনিক প্রযুক্তি, মরুর বুকে প্রথম বিশ্বকাপ, বিশ্বকাপ আয়োজনে আর্থিক দুর্নীতি,কিংবা মানবাধিকার লঙ্ঘনের মতো ঘটনা— সর্বক্ষেত্রেই। 

কাতার বিশ্বকাপ আয়োজনে বাজেটে ক্ষেত্রে ইতিহাসে সব রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে। মধ্যপ্রাচ্যের দেশটি বলছে, এবারের ফিফা বিশ্বকাপে তারা ২২০ বিলিয়ন ডলার খরচ করছে। যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ২২ লাখ ৩০ হাজার কোটি টাকা। 

আর যা কিনা বিশ্বকাপ ইতিহাসের সবচেয়ে ব্যয়বহুল আয়োজন হতে চলছে। ২০১৮ সালে প্রতাপশালী রাশি য়া যে পরিমাণ খরচ করেছে, কাতার বিশ্বকাপে তার ২০ গুণ বেশি ব্যয় হচ্ছে। শুধু তাই নয়, ১৯৯৪ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত ৭টি বিশ্বকাপের একত্রিত খরচকেও হার মানিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে আয়োজক দেশ কাতার।

যদিও স্বপ্নের বিশ্বকাপ আয়োজন করতে কাতার বিশাল অর্থ ঘুষ দিয়েছে বলে অভিযোগ অনেক আগে থেকেই। এমনকি, বিশ্বকাপ শুরু হওয়ার দুদিন আগেও আসরের উদ্বোধনী ম্যাচে ইকুয়েডরকে হেরে যেতে কাতারে বিরুদ্ধে ঘুষ দেওয়ার অভিযোগও উঠেছে। 

ইতিহাসে এবারই প্রথম মধ্যপ্রাচ্যে তো বটেই, আরবের কোন দেশে হচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় ক্রীড়াযজ্ঞ। সবমিলিয়ে বিশ্বের সবচেয়ে বেশি জনগোষ্ঠীর এশিয়া মহাদেশেও মাত্র দ্বিতীয়বার মতো হচ্ছে ফুটবল বিশ্বকাপে। এর আগে ২০০২ সালে এশিয়ার দুই দেশ জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়া যৌথভাবে ‘দ্যা গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ’ আয়ো জন করে। 

এবার বিশ্বকাপে থাকবে প্রযুক্তির ছড়াছড়ি। ইতিহাসে এবারই প্রথমবার বিশ্বকাপে ব্যবহার করা হবে টেকনো বল। বিখ্যাত অ্যাডিডাস কোম্পানির তৈরি এই বলের নাম রাখা হয়েছে ‘আল রিহলা’। কাতারে অফসাইডের সিদ্ধান্ত আরও নিখুঁত করতে চালু হচ্ছে প্রথমবার সেমি অটোমেটেড অফসাইড প্রযুক্তি। প্রতিটি স্টেডিয়ামের ছাদের নিচের অংশে ১২টি ট্র্যাকিং ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে।

এছাড়া, ফুটবলারদের পারফরম্যান্সের বিশ্লেষণ ও নিখুঁত তথ্য সংরক্ষণ করে রাখার জন্য এবার ডেটা অ্যাপ প্রযুক্তিরও ব্যবস্থা করা হয়েছে। এতে প্রতিটি ফুটবলার ম্যাচের পর নিজের খেলার তথ্য দেখতে পারবেন।

ফুটবল বিশ্বকাপ সর্বজনীন খেলা। তাই, ছেলেদের বিশ্ব কাপে এবার মেয়েরাও ইতিহাস গড়তে যাচ্ছে। ছেলেদে র ফুটবল বিশ্বকাপের ইতিহাসে এবারই প্রথম নারী রেফারির দেখা মিলবে। 

কাতার বিশ্বকাপ পরিচালনা করবেন  জাপানের ইয়োশিমি ইয়ামাশিতা, ফ্রান্সের স্টিফানি ফ্রাপার্ট ও রুয়ান্ডার সালিমা মুকানসাঙ্গা নারী রেফারি সবমিলিয়ে বিশ্বকাপের ৬৪টি ম্যাচের জন্য মোট ৩৬ জন প্রধান রেফারির মধ্যে আছেন এই ৩ নারী রেফারিও।